খুলনা | রবিবার | ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯ | ১ পৌষ ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

পণ্যের দাম বৃদ্ধিতে চুয়াত্তরের পদধ্বনি : মওদুদ

হীরক রাজার কাহিনীকে হার মানিয়েছে সরকার : গয়েশ্বর

খবর প্রতিবেদন | প্রকাশিত ২২ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:৫০:০০

নিত্যপণ্যের দাম বাড়ার ঘটনা প্রবাহে দেশে ১৯৭৪ সালের মতো অস্থিরতা তৈরির আলামত দেখতে পাচ্ছেন বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদ। বৃহস্পতিবার সকালে এক দোয়া মাহফিলে তিনি বলেন, “পেঁয়াজের সমস্যা নিয়ে আজকে বাংলাদেশের মানুষ ক্ষুব্ধ। একটা সরকার যে একটি সামান্য পণ্যের ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে পারে না সেই সরকারের মনে হয় আর ক্ষমতায় থাকার নৈতিক অধিকার থাকে না। পেঁয়াজের পরে আসলো লবণ, এখন চালের দাম একদিনে পাঁচ টাকা বেড়েছে। “চুয়াত্তর সাল এখনও আমার চোখের সামনে ভাসছে। চুয়াত্তর সালের যে ঘটনা বাংলাদেশে, যে অর্থনৈতিক, সামাজিক অবস্থা বিরাজ করছিল, যে অস্থিরতা বিরাজ করছিল, আজকে সেই একই পদধ্বনি আমি দেখতে পাচ্ছি।”
সরকারের ব্যর্থতার সমালোচনা করেন মওদুদ বলেন, “আমরা এই সরকারকে হুঁশিয়ার করে দিতে চাই, একথা বলতে চাই, যে এখনই সময়, আপনারা পদত্যাগ করুন এবং একটি অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা করুন, যাতে করে এদেশের মানুষ নির্ভয়ে-নির্বিঘেœ তাদের ভোটের অধিকার প্রয়োগ করতে পারে এবং তাদের পছন্দমতো একটি প্রতিনিধিত্বশীল সরকার প্রতিষ্ঠিত করতে পারে।”
বর্তমান বছরকে সরকারের জন্য দুর্ভাগ্যজনক বছর হিসেবে অভিহিত করে তিনি বলেন, “সরকার রাষ্ট্র পরিচালনায় সম্পূর্ণভাবে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেছে। কোনো কিছুই তাদের নিয়ন্ত্রণে আছে বলে মনে হয় না। বিরোধী দলকে দমন করার জন্য আমাদের নেত্রীকে অন্যায়ভাবে কারাগারে আটকে রেখেছে। রাজনৈতিক কারণে তাকে কারাগারে রাখা হয়েছে। তার বন্দিত্বও রাজনৈতিক, মুক্তি না পাওয়াও রাজনৈতিক।” খালেদা জিয়া জামিন মুক্তি না পেলে রাজপথেই তার ফয়সালা করতে হবে বলে জানান মওদুদ।
দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৫তম দিন জন্মদিন উপলক্ষে নয়া পল্টনে বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
তারেক রহমানকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে দলের মওদুদ আহমদ বলেন, “তারেক রহমান আগামী দিনে বাংলাদেশে রাষ্ট্রনায়কের ভূমিকা পালন করে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবেন- এই আশা-প্রত্যাশা আমাদের সকলের মধ্যে রয়েছে।” প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ‘অনেক গুণাবলী’ তারেক রহমানের মধ্যে রয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।
শেখ হাসিনার সরকার হীরক রাজার কাহিনীকেও হার মানায় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। তিনি বলেন, এই রাষ্ট্র, রাষ্ট্র নাই। সব ধ্বংস করে ফেলেছে এই সরকার। বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৫ তম জন্মদিন উপলক্ষে সম্মিলিত ছাত্র ফোরাম আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
গয়েশ্বর বলেন, যে যেমন পারছে, লুটেপুটে খাচ্ছে। আমরা সবাই জানি পণ্যর সরবরাহ বাড়লে দাম কমে, কিন্তু এই সরকারের আমলে তার বিপরীত দেখতে পাচ্ছি। কৃষক ধান উৎপাদন করে বিক্রি করতে পারছে না। ধান ক্ষেতে আগুন লাগিয়ে দিচ্ছে, দাম পাচ্ছে না। অথচ চাল কিনতে গেলে পকেট খালি হয়ে যাচ্ছে। সকালে পেঁয়াজের দাম বাড়ছে, বিকেলে লবণের দাম বাড়ছে। শেখ হাসিনার সরকার হীরক রাজার কাহিনীকেও হার মানিয়েছে।
রাষ্ট্রে গণতন্ত্র নেই উল্লেখ করে বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির এই সদস্য বলেন, যে রাষ্ট্রের গণতন্ত্র থাকে না তাকে রাষ্ট্র বলা চলে না। গণতন্ত্র অর্জন করার জন্য যিনি লড়াই করেছেন, যুদ্ধ করেছেন, গণতন্ত্রের মা বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে বন্দি করে রেখে এই সরকার গণতন্ত্র প্রচার করছেন এটা ঠিক না। দেশের প্রতিটি খাতে দুর্নীতি চলছে। সরকার দলীয় যে নেতাদের নাম কখনো শুনিনি, সেই নেতাদের হাড়ি থেকে বের হচ্ছে হাজার হাজার কোটি টাকা। তাহলে এমপি-মন্ত্রীদের পকেটে কত টাকা আছে? আমরা এই সরকারের পতন চাই।
 
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ






বিজয়ের মাস ডিসেম্বর 

বিজয়ের মাস ডিসেম্বর 

১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:৫১