খুলনা | শনিবার | ২৩ নভেম্বর ২০১৯ | ৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

‘পথচারীদেরও সচেতনভাবে চলতে হবে’

নকশা না মেনে গাড়ি নামালে কঠোর ব্যবস্থা : প্রধানমন্ত্রী

খবর প্রতিবেদন | প্রকাশিত ২৩ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:২০:০০

নকশা পরিবর্তন করে কোনো প্রশস্ত গাড়ি রাস্তায় নামালে, এমনকি যেকোনো নিয়ম না মেনে গাড়ি চালালে বড়-ছোট সবার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই সঙ্গে তিনি নিয়মের বাইরে গাড়ি না চালাতে সবাইকে আহ্বানও জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, রাস্তা বিবেচনা করে সবাইকে গাড়ি চালাতে হবে। নকশা পরিবর্তন করে গাড়ি বড় করা যাবে না। আরেকটি গাড়ি যাওয়ার সাইট বিবেচনা করতে হবে। এটা করলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। গতকাল মঙ্গলবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে রাজধানীর কৃষিবিদি ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, পেছনে কোনো গাড়ি আছে কি-না, রাস্তার সাইট কতটুকু আছে, ভুল পথে গাড়ি চলছে কি-না এমন বিষয় মাথায় রেখে চালকদের গাড়ি চালাতে হবে। এছাড়া চালকদের অসুস্থ প্রতিযোগিতা বন্ধ করতে হবে। নয়তো কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে আরও। তবে পথচারীদেরও সচেতনভাবে চলতে হবে। শুধু চালকদের দোষ দিলে হবে না।
শেখ হাসিনা বলেন, চলাফেরায় সচেতন থাকতে হবে সবাইকে। নিজেকে দায়ী করতে হবে। দুর্ঘটনা ঘটলে দেখতে হবে কার দোষ আসলে। পথচারীদের নিজেদের দায়িত্ব আছে। যারা চালান তাদেরও দায়িত্ব আছে। পেছনে দেখে চলতে হবে। দায়িত্ব নিজের। এটা সড়কপথের পাশাপাশি রেলপথের ক্ষেত্রেও। রেলপথে আরও সতর্ক হতে হবে ক্রসিংয়ে গেলে।
তিনি  বলেন, ড্রাইভার কতক্ষণ গাড়ি চালাচ্ছে, ড্রাইভার খেল কিনা, ড্রাইভারের পর্যাপ্ত বিশ্রাম আছে কিনা- আমাদের যারা গাড়ির মালিক, যারা ড্রাইভারকে ব্যবহার করেন- এই বিষয়টা কখনো চিন্তা করেন কিনা আমার সন্দেহ আছে। তাদের বিশ্রামের দরকার আছে; খাবারেরও প্রয়োজন আছে। তার কিছু সময়েরও প্রয়োজন আছে।
সড়ক-মহাসড়কে গাড়ি চালকদের ওভারটেক করার প্রবণতা বন্ধ করার আহ্বান জানিয়ে তিনি আরো বলেন, এই অসুস্থ প্রতিযোগিতার কারণেও কিন্তু দুর্ঘটনা হয়।
সড়ক দুর্ঘটনায় শুধু গাড়িচালককে দোষ দেওয়ার প্রবণতার সমালোচনা করে তিনি বলেন, সরকার ফুট ওভারব্রিজ, আন্ডারপাস, ফুটপাত করে দেবার পরও পথচারীরা নিয়ম মানেন না। একটা চলন্ত গাড়ি যখন আসে সেই গাড়ির সামনে দিয়ে শুধুমাত্র হাত দেখিয়ে দৌড় মারলে.. সেটা তো একটা যন্ত্র। ব্রেক কষলেও তো কিছু সময় লাগে সেটা থামতে। পথচারীদের তো এই বোধটা, এই জ্ঞানটা থাকতে হবে। দুর্ঘটনা প্রতিরোধে গাড়িচালক ও পথচারীদের মোবাইল ফোন ব্যবহারে সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, এখন আন্তর্জাতিকভাবে সব দেশে গাড়ি চালানোর সময় মোবাইল ফোন ব্যবহার করা কিন্তু নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়েছে। শুধু ড্রাইভারদের ক্ষেত্রেই না। রাস্তায় হাঁটার সময় মোবাইল ফোন নিয়ে কথা বলতে বলতে.. শুধু সড়কে না আমরা দেখেছি রেললাইনের পাশ ধরে হাটার সময় মোবাইলে কথা বলতে বলতে.. পেছনে যে রেল আসছে সে আওয়াজ আর শুনতে পারছে না, কথায় মশগুল।
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ