খুলনা | মঙ্গলবার | ২২ অক্টোবর ২০১৯ | ৬ কার্তিক ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

ভিসির পদত্যাগসহ ৭ দফা দাবি শিক্ষক সমিতির

আজকের মধ্যে দাবি না মানলে বুয়েটে তালা দেবে শিক্ষার্থীরা

খবর প্রতিবেদন | প্রকাশিত ১১ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:৪১:০০

একের পর এক সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর নির্যাতনের ঘটনায় দোষীদের জবাবদিহির আওতায় আনার ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের নির্লিপ্ততা-নিস্ক্রিয়তার পরিণতিতে আবরার ফাহাদকে প্রাণ দিতে হয়েছে বলে মনে করছে বুয়েট শিক্ষক সমিতি। এর জন্য উপাচার্য সাইফুল ইসলামকে দায়ী করে অবিলম্বে তার পদত্যাগ দাবি করেছেন তারা।
বৃহস্পতিবার আবরার হত্যার প্রতিবাদে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সমাবেশে এসে শিক্ষক সমিতির সাধারণ সভায় গৃহীত এই সম্মিলিত বক্তব্য তুলে ধরেন সমিতির সভাপতি অধ্যাপক এ কে এম মাসুদ।
ওই সভার কার্যবিবরণী পড়ে শুনিয়ে তিনি বলেন, “ইতোপূর্বে সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপর বিভিন্ন নির্যাতনের ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দীর্ঘদিনের নির্লিপ্ততা, নিষ্ক্রিয়তা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিসিপ্লিনারি আইন অনুযায়ী যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ এবং আবাসিক হল সমূহে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে উপাচার্যের ধারাবাহিকভাবে অবহেলা ও ব্যর্থতা আবরার ফাহাদের নির্মম হত্যাকাণ্ডের উচ্ছৃঙ্খল শিক্ষার্থীদের সাহস জুগিয়েছে বলে সভা মনে করে।”
উপাচার্যের পদত্যাগের দাবি জানিয়ে অধ্যাপক মাসুদ বলেন, “ব্যর্থতার কারণে বুয়েটের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সাইফুল ইসলাম উপাচার্য পদে থাকার নৈতিক অধিকার হারিয়েছেন। এমতাবস্থায় অনতিবিলম্বে বুয়েটের উপাচার্য পদ হতে পদত্যাগ করার জন্য সভা অধ্যাপক ড. সাইফুল ইসলামের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছে। ”উপাচার্য স্বেচ্ছায় পদত্যাগ না করলে তাকে অবিলম্বে দায়িত্ব হতে অপসারণের জন্যে বুয়েট শিক্ষক সমিতি সরকারের নিকট জোর দাবি জানাচ্ছে।”
আবরার হত্যাকাণ্ডে জড়িত সবাইকে গ্রেফতারসহ কয়েকটি দাবিতে ধারাবাহিকভাবে আন্দোলন করছেন বুয়েটের শিক্ষার্থীরা। তাদের সমাবেশে বক্তব্যে উপাচার্যের পদত্যাগের পাশাপাশি ছাত্র-শিক্ষকদের দলীয় রাজনীতি বন্ধ, ধারাবাহিক ব্যর্থতার জন্য উপাচার্যের পদত্যাগসহ ছয়টি দাবি তুলে ধরেন শিক্ষক সমিতির সভাপতি।
আন্দোলনকারীদের ঘোষণা : আবরার ফাহাদ হত্যাকান্ডের পর থেকে আন্দোলন করে আসা শিক্ষার্থীরা তাদের দশ দফা পূরণে উপাচার্যকে শুক্রবার পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছেন, তা না হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ভবনে তালা ঝুলিয়ে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন আন্দোলনকারীরা। তুলে ধরা হয়েছে বিভিন্ন দাবি। তবে আজ বিকাল ৫টায় আন্দোলনকারীদের সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি বৈঠক করবেন বলে জানা গেছে
আবরারকে হত্যার পরদিন ৭ অক্টোবর সকাল থেকে আন্দোলনে নামেন বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। টানা চতুর্থ দিনের মতো আন্দোলন চলছে। বুয়েটের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সংহতি জানিয়ে সারা দেশের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতেও বিক্ষোভ প্রতিবাদ কর্মসূচি চলছে। শুধু শিক্ষার্থীরা নন, এই হত্যাকান্ডের প্রতিবাদ জানিয়ে কর্মসূচি পালন করছেন বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও অভিভাবকরা।
আবরার হত্যাকান্ডের পর বৃহস্পতিবার টানা চতুর্থদিনের মতো ক্যাম্পাসের শহিদ মিনারে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল করছে শিক্ষার্থীরা।
এদিকে আগামী ১৪ অক্টোবর বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। তবে এই উত্তাল পরিস্থিতিতে পরীক্ষা আদৌ হবে কিনা এ বিষয়ে একাডেমিক কাউন্সিলের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় রয়েছেন শিক্ষার্থীরা। এ ব্যাপারে তারা দ্রুত কাউন্সিলের বিবৃতির আশা করছেন।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ









১০ মাসে ডেঙ্গুতে মৃত্যু ১০৪

১০ মাসে ডেঙ্গুতে মৃত্যু ১০৪

২২ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:২৭





ব্রেকিং নিউজ