দৌলতপুরের কলেজ ছাত্র শিবলু হত্যা মামলায় রায় আজ


দৌলতপুরের সরকারি বিএল কলেজের ছাত্র আব্দুল্লাহ আল ফয়সাল ওরফে শিবলু মোল্লা (২৭)কে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যাকান্ডের মামলার রায় ঘোষণা আজ বুধবার। পুর্ব নির্ধারিত দিন হিসেবে খুলনার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোঃ নজরুল ইসলাম হাওলাদার এ রায় ঘোষনা করবেন।    
আলোচিত এ মামলার অভিযুক্ত আসামিরা হলেন, দেয়ানা পুর্বপাড়া হাসপাতাল রোডের আমির আলী শেখের ১০ ছেলে আরিফ (২৮), রহমু (২২), কাশেম (২৫), আবুল হোসেন (৪০), আবুল হাসান (৪০),   আবু হানিফ (৩৬), পুলিশ কনেস্টবল মোঃ গোলাম মোস্তফা ওরফে বিপ্লব (৪৫), বাবু (২৫),  ইউসুফ (২৪) ও জসিম (৩২)। এছাড়া ইয়াহিয়া শরীফের ছেলে বাবু (২৫), আব্দুল হান্নানের ছেলে জুয়েল ওরফে কসাই জুয়েল (৩০), আব্দুল হামিদের দু’ছেলে মোঃ শহিদুল ইসলাম (৫০) ও এনামুল শেখ ওরফে ইমা (২৬)। 
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই পুলিশ পরিদর্শক শেখ আবু বকর অভিযোগপত্রে উল্লেখ করেন, ২০১৭ সালের ২০জুন রাত সাড়ে ১০টার দিকে দেয়ানা উত্তরপাড়া হাসপাতাল মোড় এলাকায় নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হয় শিবলুকে। স্বাক্ষী ও তদন্তে আসামীরা ঘটনার সাথে জড়িত বলে প্রাথমিকভাবে প্রমান পাওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র আদালতে দাখিল করা হয়েছে। চার্জশিটে এজাহারভুক্ত ১৪জনের সবাইকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। চার্জশিটে ৪২ জনকে সাক্ষী করা হয়েছে। ধারালো অস্ত্রের আঘাতে তার শরীর ছিন্নভিন্ন হয়ে যায়। এলাকায় বিরোধের কারণে কসাই আমিরের ছেলেরা শিবলুকে হত্যা করেছে বলে তদন্তে উঠে এসেছে। এই হত্যাকান্ডে এজাহারের ১৪ আসামির সবাই জড়িত ছিল বলেও তদন্ত কর্মকর্তার রিপোর্টে বলা হয়। 
আদালতের বিশেষ পিপি মোঃ আহাদুজ্জামান জানান, অভিযুক্ত ১৪ আসামির সকলেই কারাগারে রয়েছেন। রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদকালে অভিযুক্তদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে তিনটি রাম দা, দুটি ছোরা, একটি লোহার রড ও দু’টি লাঠি হত্যাকান্ডের আলামু হিসেবে জব্দ করা হয়। যেগুলো কয়েকজন আসামীর বাড়ী এবং ঘটনাস্থলের পার্শ্বর্বুী ড্রেন থেকে উদ্ধার করা হয়েছিল। এর মধ্যে ১৫ ইঞ্চি সাইজের একটি ছোরার যার বাট নেই। যেটা শিবলুর বুকে ঢুকিয়ে দেয়া হয়েছিল। কিন্তু টেনে বের করার সময় বাটটি খুলে পড়ে যায়। অভিযোগপত্রে হত্যাকান্ডের প্রত্যক্ষদর্শী ২৬ জনসহ মোট ৪২জন সাক্ষীর জবানবন্দিতে নির্মম হত্যাকান্ডের লোমহর্ষক বিবরণ ফুঁটে উঠেছে। 
 


footer logo

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।