খুলনা | মঙ্গলবার | ২২ অক্টোবর ২০১৯ | ৭ কার্তিক ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

উত্তর প্রদেশ ও বিহারে বন্যায় ১২২ জনের প্রাণহানি

ফারাক্কার সব বাঁধ খুলে দিলো ভারত, দেশে বন্যার আশঙ্কা

খবর প্রতিবেদন | প্রকাশিত ০১ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০২:০০

ভারতের উত্তর প্রদেশ, মালদহ ও বিহারে রেকর্ড পরিমাণ বৃষ্টির কারণে বিহারের রাজধানী পাটনাসহ আরো ১২ জেলাকে রক্ষার জন্য ফারাক্কা বাঁধের সবক’টি লকগেট একসঙ্গে খুলে দিয়েছে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ। গতকাল সোমবার দুপুরে ফারাক্কা ব্যারেজের ১১৯টি লকগেটই খুলে দেয়ায় পদ্মার পানি বিপদসীমা ছুঁই ছুই করছে। স্থানীয় এমপির অনুরোধে কেন্দ্রীয় পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় এ সিদ্ধান্ত নেয় বলে টাইমস অব ইন্ডিয়ার সংবাদে জানানো হয়েছে। এদিকে রাজশাহীতে অতি বন্যার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।
ভারতের বিরোধী দল কংগ্রেসের সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধি কেন্দ্রীয় সরকারকে উত্তর প্রদেশ ও বিহারের বন্যা পরিস্থিতির প্রতি নজর দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি জানান, বন্যায় দুই রাজ্যে ৪৮ জন মারা গেছেন। তাদের মধ্যে বিহারে মৃত্যু হয়েছে ১৩ জনের।
জিনিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়, সোমবার ফারাক্কার সব গেট খুলে দেয়ায় পশ্চিবঙ্গের মুর্শিদাবাদের একাংশ ও বাংলাদেশে বন্যার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। মালদা জেলার ফুলহর, মহানন্দা ও কালিন্দী নদীতে পানি বাড়ছে। সেখানে একাধিক জায়গায় নদীর বাঁধ ভেঙে প্লাবিত হয়েছে বিস্তীর্ণ এলাকা। চরম বিপদসীমার ওপর দিয়ে বইছে গঙ্গা ও ফুলহর।
ইতিমধ্যেই কয়েক সেন্টিমিটার পানি বেড়েছে পদ্মায়। ফারাক্কা বাঁধের সবক’টি গেট খুলে দেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে সোমবার সন্ধ্যায় রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী পরিচালক সৈয়দ সাহিদুল আলম জানান, ফারাক্কা উজান থেকে পদ্মায় আসা পানিতে এ অঞ্চলে বন্যা হতে পারে এর জন্য আগাম সর্তকতা অবলম্বন করা হচ্ছে।
এদিকে রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডের গেজ রিডার এনামুল হক জানিয়েছেন, সোমবার সকাল ৬টায় রাজশাহীতে পদ্মায় পানি ছিল ১৭ দশমিক ৯০ সেন্টিমিটার সারাদিনে তা বেড়ে সন্ধ্যা ৬টায় ১৮ দশমিক ০১ সেন্টিমিটার হয়। তিনি বলেন, দু-একদিনের মধ্যেই পদ্মার পানি বিপদসীমা অতিক্রম করতে পারে। রাজশাহী পদ্মার পানির বিপদসীমা ধরা হয় ১৮ দশমিক ৫০ সেন্টিমিটার।
প্রাণহানী : ভারতের উত্তর প্রদেশ ও বিহারে ভারী বর্ষণে সৃষ্ট বন্যায় ১২২ জনের প্রাণহানি হয়েছে। স্থানীয় কর্মকর্তারা জানিয়েছে, বৃহ¯পতিবার থেকে সোমবার পর্যন্ত অন্তত ৯৩ জন বন্যায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। অন্যদিকে বিহারে বন্যা সংশ্লিষ্ট কারণে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৯। এ খবর দিয়েছে বিবিসি।
এদিকে বন্যা ও ভারীবর্ষণে আক্রান্ত  হয়েছে গুজরাট, উত্তরাখণ্ড, মধ্য প্রদেশ ও রাজস্থানও। গুজরাটে বন্যার পানিতে একটি মোটরগাড়ি ভেসে যাওয়ার ঘটনায় তিন নারীর মৃত্যু হয়েছে। রাজ্যটিতে ভারীবর্ষণ অব্যাহত রয়েছে। অন্যদিকে উত্তরাখণ্ড, মধ্য প্রদেশ ও রাজস্থানে বিভিন্ন ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে অন্তত ১৩ জনের। ভারীবর্ষণে জলাবদ্ধ হয়ে পড়েছে কলকাতার একাধিক রাস্তা। জম্মু ও কাশ্মীরে ৫৪ বছর বয়সী একজন সাব-ইন্সপেক্টর নদীতে ডুবে মারা গেছে বলে আশঙ্কা করছেন কর্মকর্তারা। 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ









‘ভারতের অর্থনীতি সংকটে’

‘ভারতের অর্থনীতি সংকটে’

১৬ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০





ব্রেকিং নিউজ