জিআরপি থানায় ধর্ষণ মামলার  ফের আবেদন আজ 


খুলনা জিআরপি থানার সাসপেন্ড ওসি উছমান গণি পাঠানসহ পাঁচ পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে এক নারীকে গণধর্ষণ মামলার আবেদন করা হয়েছে খুলনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে। তবে ট্রাইব্যুনাল-৩-এর বিচারক মো. মহিদুজ্জামান মামলা না নিয়ে বাদীপক্ষকে ট্রাইব্যুনাল-১-এ যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন।
বাদীপক্ষের আইনজীবী ও বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার জেলা সমন্বয়কারী এড. মোঃ মোমিনুল ইসলাম জানান, রবিবার খুলনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩-এ ধর্ষণের মামলার আবেদন জমা দেওয়া হয়। দুপুর আড়াইটায় আবেদনের শুনানির সময় বিচারক বলেন, মামলার ঘটনাস্থল তার আদালতের এখতিয়ারভুক্ত এলাকায় নয়। বিচারক বাদীপক্ষকে ট্রাইব্যুনাল-১-এ যাওয়ার পরামর্শ দেন। সোমবার তিনি বাদীপক্ষকে নিয়ে ট্রাইব্যুনাল-১-এ মামলা দায়ের করবেন জানিয়েছেন।
ভুক্তভোগী নারীর অভিযোগ, গত ২ আগস্ট যশোর থেকে ট্রেনে খুলনায় আসার পথে রেলওয়ে পুলিশের সদস্যরা তাকে আটক করে। পরদিন ৩ আগস্ট তাকে ৫ বোতল ফেন্সিডিলসহ একটি মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়।
ওই নারীর অভিযোগ, ২ আগস্ট রাতে থানার ওসি উছমান গণি পাঠানসহ পাঁচ পুলিশ সদস্য তাকে ধর্ষণ ও মারধর করে। এ ঘটনায় কারাগারে থাকা অবস্থায় গত ৯ আগস্ট তিনি খুলনা জিআরপি থানায় মামলা করেন। মামলায় খুলনা জিআরপি থানার ওসি, ওই রাতের ডিউটি অফিসার ও অজ্ঞাত তিন পুলিশ সদস্যকে আসামি করা হয়।


footer logo

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।