খুলনা | মঙ্গলবার | ২২ অক্টোবর ২০১৯ | ৭ কার্তিক ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

গীবত বা পরনিন্দা ঘৃণ্যতম অপরাধ

মুহাম্মদ মাহফুজুর রহমান আশরাফী | প্রকাশিত ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:৩৮:০০

গীবত মানব চরিত্রের একটি ভয়ানক খারাপ দিক। সামাজিক শান্তি বিনষ্টকারী একটি ঘৃণ্যতম অপরাধ। অথচ একটু গভীরভাবে খেয়াল করলে দেখা যায়, গীবত মানুষের প্রত্যাহিক জীবনে রুটিনে পরিণত হয়েছে। শরীয়ত গীবতকারীকে কঠোর শাস্তি ভোগের নির্দেশনা প্রদান করেছে।
গীবত আরবী শব্দ। যার অর্থ হল, পরনিন্দা করা, অসাক্ষাতে কারো দুর্নাম করা, দোষ-ত্র“টি প্রকাশ করা, কুৎসা রটনা করা ইত্যাদি। পরিভাষায়, কোন মানুষের অনুপস্থিতিতে তার সম্পর্কে এমন কথা বলা যা শুনলে সে মনে কষ্ট পায়, তাকে বলা হয় গীবত। গীবত সম্পর্কে মহান আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘তোমরা একজন অন্য জনের গীবত করনা। তোমাদের কেউ কি তার মৃত ভাইয়ের গোশত খাওয়া পছন্দ কর? তোমরা তো তা অপছন্দ কর (সূত্রঃ সূরা হুজরাত ঃ ১২)।’ গীবত এতই নিকৃষ্ট কাজ যে একে ব্যভিচারের চেয়েও নিকৃষ্ট বলা হয়েছে। ‘কোনো ব্যক্তি ব্যভিচার করার পর তওবা করলে আল্লাহ্ তার তওবা কবুল করলে সে ক্ষমা লাভ করতে পারে। কিন্তু কোনো ব্যক্তি গীবত করলে, যার গীবত করেছে সে ক্ষমা না করলে, মহান আল্লাহ তায়ালা তাকে ক্ষমা করেন না (বায়হাকি শরীফ)।’ ইমাম গাযযালি (রঃ) বলেছেন, ‘গীবত হচ্ছে তুমি তোমার ভাইয়ের দোষ ত্র“টি এমনভাবে উল্লেখ করলে তা যদি তার কানে পৌছায় তবে সে তা অপছন্দ করবে।’ 
যেভাবে গীবত করা হয় : গীবত বিভিন্নভাবে হতে পারে। যেমন প্রকাশ্যে কারো দোষ ত্র“টি আলোচনা করা, কারো পিছনে আলোচনা করা। লেখনির মাধ্যমে কোন দোষ-ত্র“টি তুলে ধরা, অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের ইশার মাধ্যমে প্রকাশ করা। পবিত্র কুরআনে উল্লেখ আছে, ‘আল্লাহ্ মন্দ কথা প্রকাশ করা ভালোবাসেন না, তবে কারো উপর যুলুম করা হয়ে থাকলে অন্য কথা (নিসাঃ ১৪৮)।’ গীবত সম্পর্কে আরো হাদিসে উল্লেখ আছে, হযরত আবু হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সাঃ) বলেন, ‘গীবত কী, তাকি তোমরা জান? লোকেরা উত্তরে বললো, আল্লাহ্ ও তাঁর রাসূলই ভালো জানেন।’ রাসূলুল্লাহ্ (সাঃ) বলেন, ‘গীবত হলো তোমার ভাইয়ের সম্পর্কে তোমার এমন কথা বলা  যা, সে অপছন্দ করে।’ জিজ্ঞাসা করা হল, ‘আমি যা বলি তা যদি আমার ভাইয়ের মধ্যে থাকে এটাও কি গীবত হবে?’ ‘রাসূলুল্লাহ্ (সাঃ) বলেন, ‘তুমি যা বল তা যদি তার মধ্যে বিদ্যমান থাকে, তাহলেই সেটা হবে গীবত। আর তুমি যা বল তা যদি তার মধ্যে না থাকে, সেক্ষেত্রে সেটা হবে ‘বুহতান’ বা অপবাদ। অবশ্য শুভাকক্সক্ষীর দৃস্টি নিয়ে কোন মুসলমানকে তার দোষ ত্র“টির কথা বললে স্বভাবত একে সে খারাপ মনে করে না। আর এইরূপে বলার উদ্দেশ্য থাকে সংশোধন। কিন্তু কাউকে অপমান করার উদ্দেশ্যে তার পিছনে দোষত্র“টি বর্ণনা করা সম্পুর্ণ হারাম।’
গীবতের ভয়াবহতা : গীবতকারীর নামাজ, রোজা সব বিফলে যায়। নবী করিম (সাঃ) বলেন, ‘দুই রোজাদার ব্যক্তি রাসূল (সাঃ) এর সাথে জোহর ও আসরের নামাজ আদায় করলেন। রাসূল (সাঃ) তাদের বললেন, তোমরা উভয়ে অজু করে পুনরায় জোহর ও আসরের সালাত আদায় কর এবং রোজা কাযা কর। তারা জিজ্ঞাসা করলেন, ইয়া রাসুলুল্লাহ! আমাদের জন্য এই হুকুম কেন ? রাসুলুল্লাহ্ (সাঃ) বললেন, কারণ তোমরা রোজাদার অবস্থায় গীবত করেছিলে (জামেউস সহিহ)।’ অনেক আমলদারী প্রচুর নেকী নিয়ে হাশরের ময়দানে হাজির হবে, তার গীবত করার কারণে নিজের নেক আমল দিয়ে তার দায় পরিশোধ করতে হবে, এত নেকী আমল থাকার পরেও তার জাহান্নামে প্রবেশ করতে হবে। গীবতের মাধ্যমে মানুষের সম্মান বিনস্ট করা হয়। যার পরিণতি হবে জাহান্নাম।
নবী করিম (সাঃ) বলেছেন, ‘মিরাজের রাতে আমি কতিপয় লোকের কাছ দিয়ে অতিক্রম করছিলাম যারা তাদের নখ দিয়ে নিজেদের মুখমন্ডল আচড়াছিল। আমি জিজ্ঞাসা করলাম হে জিবরাইল (আঃ) এরা কারা?’ জিবরাইল (আঃ) বললেন, ‘এরা পৃথিবীতে থাকা কালীন গীবত করে মানুষের সম্মান বিনস্ট করত (মুসনাদে আহমাদ)।’ 
যে ক্ষেত্রে গীবত করা জায়িয : শরীয়ত কোন কোন ক্ষেত্রে গীবত করার অনুমতি প্রদান করেছেন, যেমন :
(১) মাযলুম কর্তৃক যালিমের বিরুদ্ধে উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের নিকট নাশিল করা।
(২) মুফতীর নিকট ফাতোয়া চাওয়ার সময় ঘটনার বিবরণ দিতে কারো দোষত্র“টি বলার প্রয়োজন হলে, অনুরূপ মাসলার সুষ্ঠ তদন্তের স্বার্থে স্বাক্ষীগণ আদালতে বিচারকের সামনে কোন ব্যক্তির দোষত্র“টি প্রকাশ করা।
(৩) প্রকাশ্যে পাপাচারে লিপ্ত ব্যক্তি যাতে গোটা সমাজকে মন্দ কাজে জড়িত করতে না পারে, সে জন্য তার পাপাচারের কথা প্রকাশ করা।
(৪) সাধারণ মানুষকে কোন অনিষ্টকর লোকের কবল থেকে রক্ষা করার জন্য তার সম্পর্কে সতর্ক করে দেয়া।
এসব ক্ষেত্রে ব্যতীত গীবত বা পরনিন্দা থেকে প্রত্যেক মুসলমানকে বিরত থাকতে হবে। গীবতের কাফফারা হচ্ছে, যার গীবত করা হয়েছে তার কাছে ক্ষমা চাওয়া, মহান আল্লাহ্ তায়ালা এই জঘন্য পাপ গীবত থেকে আমাদের জবানকে হিফাযত করুন। আমিন॥
লেখক: মুফাসিরে কুরআন ও প্রভাষক, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগ, মাতৃভাষা ডিগ্রী কলেজ। শরণখোলা, বাগেরহাট।
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ




পবিত্র আখেরি চাহার শোম্বা ২৩ অক্টোবর

পবিত্র আখেরি চাহার শোম্বা ২৩ অক্টোবর

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০

ব্যভিচার : কারণ ও তার শাস্তির বিধান

ব্যভিচার : কারণ ও তার শাস্তির বিধান

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০


মশা প্রসংগে মহাগ্রন্থ আল কুরআন

মশা প্রসংগে মহাগ্রন্থ আল কুরআন

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০

আশুরার তাৎপর্য ও শিক্ষা

আশুরার তাৎপর্য ও শিক্ষা

০৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০১:০৫

পবিত্র আশুরা ১০ সেপ্টেম্বর

পবিত্র আশুরা ১০ সেপ্টেম্বর

০১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:৩১

আল্ কুরআন ও আধুনিক বিজ্ঞান

আল্ কুরআন ও আধুনিক বিজ্ঞান

৩০ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:০০




ব্রেকিং নিউজ