এবারে ‘বঙ্গবন্ধু বিপিএল’


বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) ক্রিকেটের ২০১৯ সালের আসরটি কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি ছাড়াই অনুষ্ঠিত হবে। এমনটিই জানিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রেসিডেন্ট নামজুল হাসান পাপন। যেখানে বিসিবির নিজস্ব আয়োজনে আসরটির নাম দেওয়া হবে বঙ্গবন্ধু বিপিএল ২০১৯। আগামী বছর পালন করা হবে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী। এজন্য বিবিবি বিভিন্ন পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় প্রথম পদক্ষেপ হলো বিপিএল। গতকাল বুধবার মিরপুরে বিসিবি কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই কথা জানান পাপন।
আসছে ডিসেম্বরে বিপিএল মাঠে গড়ানোর কথা রয়েছে। তবে একই বছর দু’টি আসর করা হলে তা ফ্র্যাঞ্চাইজিদের জন্য কষ্টসাধ্য হবে বলে জানান মালিকরা, এছাড়া আরও বেশ কয়েকটি ব্যাপারে ফ্র্যাঞ্চাইজি দাবি জানিয়েছে যাতে বিসিবি’র আপত্তি রয়েছে। ফলে বিসিবি এবারের আসরটি সম্পূর্ণ নিজস্ব অর্থায়নে আয়োজন করবে বলে জানায়। তবে স্পন্সররা কোনো দলের প্রতি আগ্রহ দেখালে সেটিতে বাধা দেবে না বাংলাদেশ ক্রিকেটের সর্বোচ্চ এই সংস্থা।
টুর্নামেন্টে এবারো আগের মতো সাতটি দল খেলবে। তবে এই সাতটি দলের প্রত্যেকের পুরো মালিকানা থাকবে বিসিবির হাতে। বিসিবির আয়োজনেই ড্রাফটের মাধ্যমে ঠিক হবে কোন ক্রিকেটার কোন দলে খেলবে। প্রতিটি দলের খরচাদি বিসিবি মেটাবে। তবে কোন কোন প্রতিষ্ঠান যদি কোন দলকে স্পন্সর করতে চায় সেই সুযোগটা থাকছে। তবে দলগুলোর মালিকানা এবার আগের মতো বিসিবি কারো কাছে হস্তান্তর করছে না।
এ প্রসঙ্গে পাপন বলেন, ‘বিপিএলের প্রথম পর্ব শেষ হয়ে গেছে, এখন ফ্র্যাঞ্চাইজিদের সাথে নতুন চুক্তি করার কথা। সেজন্য তাদের সাথে আলোচনায় বসেছিলাম। কিছু কিছু ফ্র্যাঞ্চাইজি বেশ কিছু দাবি জানিয়েছে, যেটা বিপিএলে নিয়মের সাথে সাংঘর্ষিক। আবার কিছু কিছু ফ্র্যাঞ্চাইজি চায়না যে এক বছরে দু’টা বিপিএল হোক, এটা তাদের জন্য চাপ হয়ে যায়।সব কিছু চিন্তা করে আমরা ঠিক করেছে এবারের বিপিএল আমরা বিসিবি নিজেরাই চালাবো। আমরা কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজিতে যাচ্ছি না। বিপিএলের সকল খরচ বহন করবো এবারের আসরে। বিপিএলের সবকিছুই ঠিক থাকবে শুধু সকল ব্যবস্থাপনা করবে বিবিসি।’
আগামী ৩ ডিসেম্বর বিপিএলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। আর ৬ ডিসেম্বর প্রথম ম্যাচ মাঠে গড়ানোর কথা রয়েছে। 
 


footer logo

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।