খুলনা | রবিবার | ১৭ নভেম্বর ২০১৯ | ২ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

চিরনিদ্রায় সাবেক কৃতি ফুটবলার আফজালুর রহমান

নিজস্ব প্রতিবেদক  | প্রকাশিত ২৮ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:৩৪:০০

খুলনা জেলা ফুটবল দলের এক সময়ের মাঠ কাঁপানো ফুটবলার, ঢাকার প্রথম বিভাগের সত্তরের দশকের নিয়মিত খেলোয়াড়, ক্রীড়া সংগঠক, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শারীরিক শিক্ষা ও চর্চা বিভাগের প্রাক্তন উপ-পরিচালক মোঃ আফজালুর রহমান (৭০) আর নেই (ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন...আমরাতো আল্লাহর এবং আমরা আল্লাহর কাছেই ফিরে যাব)। গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১টা ১০ মিনিটে নগরীর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তিন দফা জানাজা শেষে গতকাল রাতে তাকে নগরীর টুটপাড়া কবরস্থানে দাফন করা হয়। মৃত্যুকালে তিনি ১ ছেলে, ২ মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। মরহুমের শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে বিবৃতি দেয়া হয়েছে। 
মরহুমের প্রথম নামাজে জানাজা তার গ্রামের বাড়ি রূপসা উপজেলাধীন নৈহাটীর এনএনএসকে মহিলা দাখিল মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে বিকেল ৩টায়, দ্বিতীয় জানাজা বাদ আছর খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এবং তৃতীয় জানাজা সোনালী অতীত ক্লাবের উদ্যোগে খুলনা জেলা স্টেডিয়াম চত্বরে অনুষ্ঠিত হয়। 
গতকাল আসর বাদ খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় জামে মসজিদে দ্বিতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর খান গোলাম কুদ্দুস, শারীরিক শিক্ষা চর্চা বিভাগের পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) মোল্লা মোহাম্মদ শফিকুর রহমানসহ শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী, ছাত্র বিপুল সংখ্যক মুসল্লী শরীক হন। 
পরে খুলনা জেলা স্টেডিয়াম প্রাঙ্গনে তৃতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে মরহুমের কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায় বিভিন্ন ক্রীড়া সংগঠন। ফুল দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা নিবেদন করেন খুলনা বিভাগীয় ক্রীড়া সংস্থা, খুলনা জেলা ক্রীড়া সংস্থা, খুলনা জেলা ফুটবল এসোসিয়েশন, সোনালী অতীত ক্লাব, খুলনা আবাহনী ক্রীড়া চক্র, ইয়ং বয়েজ ক্লাবের নেতৃবৃন্দ। জেলা ক্রীড়া সংস্থার পক্ষে ফুলেল শ্রদ্ধা জানানোর সময় উপস্থিত ছিলেন সংস্থার সহ-সভাপতি এড. সাইফুল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান বাবলু, আজমল আহমেদ তপন, মোঃ মোতালেব মিয়া, শেখ হেমায়েত উল্যাহ, সুজন আহম্মেদ, মোমতাজ আহম্মেদ তুহিন, ফয়সাল আহমেদ পাপা, জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইউসুফ আলী প্রমুখ। 
এর আগে প্রথম নামাজে জানাজায় উপস্থিত ছিলেন নৈহাটি ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ কামাল হোসেন বুলবুল, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান খান বজলুর রহমান, মোল্লা সাইফুর রহমান, মাদ্রাসা সুপার মোঃ খবিরুদ্দীন, সাবেক বন কর্মকর্তা মেহেদী হাসান, তারেক আহমেদ টিপু, ইউপি সদস্য আব্দুল গফুর খান, আশাবুর রহমান মোড়ল ও শাহ মোঃ রবিউল ইসলাম, এসএম এমরান আলী, সৈয়দ নাসির হোসেন সজল, এমডি রকিব উদ্দিন, রুহুল আমিন রবি, কামরুজ্জামান সোহেল, শরিফুল ইসলাম বাবু, দিদারুল ইসলাম দিদার, নোমান ওসমানী রিচি, রয়েল আজম প্রমুখ।এর আগে মৃত্যুর খবর পেয়ে মরহুমের গ্রামের বাড়িতে যান রূপসার সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান শেখ আলী আকবর, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা আফরোজ (মনা), রূপসা প্রেস ক্লাবের সভাপতি তরুণ চক্রবর্তী বিষ্ণু, ইউপি সদস্য রেহানা পারভীন, সিএইচসিপি দীপক কুমার দে, সাবেক ফুটবলার প্রশান্ত দে প্রমুখ।
বর্ণাঢ্য জীবন : আফজালুর রহমান রূপসা উপজেলার নৈহাটি গ্রামে ১৯৫৩ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি লেখাপড়ার পাশাপাশি ফুটবল খেলায় ঝুঁকে পড়েন। ১৯৮৬ সাল পর্যন্ত তিনি দাপটের সাথে খুলনা জেলা দলে খেলেন। স্টপার হিসেবে সারাদেশে তিনি সুনাম অর্জন করেন। এরপর খেলাধুলা জীবন শেষ করে তিনি ভারতের পাতিয়ালা ফুটবল একাডেমী থেকে ডিপ্লোমা করেন। পাশাপাশি ক্রীড়া সংগঠক হিসেবে নিজেকে মেলে ধরেন। ১৯৯৫ সালের ২৯ জুন তিনি খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শারীরিক শিক্ষা ও চর্চা বিভাগে ফিজিক্যাল ইনস্ট্রাক্টর পদে যোগদান করেন। পরবর্তীতে তিনি সহকারী পরিচালক ও উপ-পরিচালক হিসেবে পদোন্নতি পান। ২০১৫ সালের ৩০ জুন তিনি চাকুরি জীবন থেকে অবসরে যান। এর আগে তিনি ১৯৯২ সাল থেকে ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত বুয়েটে ক্রীড়া শিক্ষক পদে চাকুর করেন। খুলনা জেলা ফুটবল এসোসিয়েশন ও খুলনা জেলা ক্রীড়া সংস্থার কার্যনির্বাহী সদস্য ছিলেন তিনি। বর্তমানে তিনি খুলনা সোনালী অতীত ক্লাবের সহ-সভাপতি ও ইয়ং বয়েজ ক্লাবের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য।  
সত্তর দশকের সাড়া জাগানো এ ফুটবল তারকা প্রায় চার মাস আগে ফুসফুসে ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হন। প্রথমে তাকে ভারতের টাটা ক্যান্সার হাসপতালে ভর্তি করা হয়। দীর্ঘদিন চিকিৎসা সেবা নেওয়ার পর তাকে নগরীর শহিদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে দীর্ঘদিন চিকিৎসা নেওয়ার পর অন্তিম সময়ে তাকে নগরীর খুলনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই গতকাল তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার মৃত্যুতে শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে বিবৃতি দেয়া হয়েছে। 
আ’লীগ : আফজালুর রহমান-এর মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে নগর ও জেলা নেতৃবৃন্দ। এক শোক বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। বিবৃতিদাতার হলেন নগর আ’লীগের সভাপতি ও সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক, জেলা সভাপতি শেখ হারুনুর রশিদ, নগর সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মিজানুর রহমান মিজান ও জেলা ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এড. সুজিত অধিকারী।
বিএনপি :  অনুরূপ গভীর শোক জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে নগর ও জেলা নেতৃবৃন্দ। বিবৃতিদাতারা বলেন চেয়ারপাসনের উপদেষ্টা এম নুরুল ইসলাম  দাদু ভাই, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও নগর সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি, সাহারুজ্জামান মোর্ত্তজা, কাজী সেকেন্দার আলী ডালিম, সৈয়দা নার্গিস আলী । 
খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় : শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান। শোকবার্তায় তিনি মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করে শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। অনুরূপভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ, রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর খান গোলাম কুদ্দুস, শারীরিক শিক্ষা চর্চা বিভাগের পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) মোল্লা মোহাম্মদ শফিকুর রহমান শোক প্রকাশ করেছেন। এছাড়া অপর এক পৃথক বিবৃতিতে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় অফিসার্স কল্যাণ পরিষদের সভাপতি শেখ মুজিবুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ তারিকুজ্জামান লিপন অনুরূপভাবে বিবৃতি দিয়েছেন। 
অনুরূপ বিবৃতি দিয়েছেন খুলনা জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি এড. সাইফুল সাইফুল ইসলাম, এস এম মোর্ত্তজা রশিদী দারা, মুস্তাাফিজুর রহমান বাবলু, আজমল আহম্মেদ তপন, সাধারণ সম্পাদক কাজী শামীম আহসান, খুলনা জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের  সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইউসুফ আলী, সোনালী অতীত ক্লাবের সভাপতি আজমল আহমেদ তপন, সাধারণ সম্পাদক রেজাউল আহমেদ রাজ, এ মনসুর আজাদ, নুরুল ইসলাম খান কালু, এস এম মনির ও শেখ হোমায়েত উল্লাহ, এস এম সোহরাব হোসেন, শাহ্ আসিফ হোসেন রিংকু, ইয়ং বয়েজ ক্লাবের সভাপতি আলহাজ্ব  মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আজমল আহমেদ তপন, মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মনি, সভাপতি সৈয়দ জাহিদ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক এড. গোলাম রহমান বাবু, ওয়াহিদুজ্জামান খান পল্টু, খালিদ হোসেন পিউ, তরিকুল ইসলাম জহির, টাউন ক্লাবের সভাপতি শেখ সোহেল ও সাধারণ সম্পাদক সুজন আহমেদ, আম্পায়ার্স এ্যান্ড স্কোরার্স এসোসিয়েশন খুলনা জেলা শাখার সভাপতি মোঃ মোরতুজা শেখ, সাধারণ সম্পাদক মোমতাজ আহম্মেদ তুহিন, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় অফিসারদের সংগঠন বন্ধনের সভাপতি আব্দুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক এস এম মোহাম্মদ আলী, শেখ শারাফাত আলী, জি এম আনিসুর রহমান, আবু সালেহ মোঃ পারভেজ, মোঃ আনিছুর রহমান, মোঃ আতিয়ার রহমান, জাবেদ এলাহী, এস এম মনিরুজ্জামান পলাশ, কাজী ফেরদাউস, এস এম আব্দুল্লাহ শাহনুর কবীর অয়ন, লাভলী খাতুন, কাজী আবু খালিদ, সাইফুল আলম বাদশা, মোঃ আব্দুর রহমান (অঃহিঃ), মোঃ শাকিল রহমান, মোঃ রহমত আলী, মোঃ রবিউল ইসলাম, মোঃ সোহাগ মোল্লা, এস এম জাকির হোসেন, মোঃ মিজানুর রহমান খান মুকুল, মোঃ সফিকুর রহমান, মোঃ আব্দুল্লাহ, এস আতিকুর রহমান, মোঃ আকতার হোসেন, আব্দুর রহিম, মোঃ নাসির জাহাঙ্গীর, মোঃ হারুনর রশীদ, সালেহা পারভেজ, মোঃ জসিম উদ্দীন প্রমুখ। অনুরূপ শোক প্রকাশ করেছেন ক্রীড়া ভাষ্যকার ড. সাইদুর রহমান ও রবিউল ইসলাম পলাশ।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ

শিল্পী কালিদাস কর্মকার আর নেই

শিল্পী কালিদাস কর্মকার আর নেই

১৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:৩১


সাংবাদিক সুবীর রায়ের পরলোকগমন

সাংবাদিক সুবীর রায়ের পরলোকগমন

০৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০১:২১











ব্রেকিং নিউজ