খুলনা | বুধবার | ১৩ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

খুলনা বিভাগে ভর্তি ১২৬ বরিশালে শিশুর মৃত্যু

চলতি মাসের ১০ দিনেই ডেঙ্গু রোগী ২০ হাজার ছাড়ালো

খবর ডেস্ক | প্রকাশিত ১১ অগাস্ট, ২০১৯ ০১:১০:০০

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে চলতি মাসের ১০ দিনেই ২০ হাজার ৩৮৩ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। জুলাই মাসে আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হন ১৬ হাজার ২৫৩ জন। এদিকে রাজধানীসহ সারাদেশে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ২ হাজার ১৭৬ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তার আগের এই সংখ্যা ছিল দিন ২ হাজার ২ জন। রাজধানী ঢাকাতেই এক হাজার ৬৫ জন রোগী এবং ঢাকার বাইরে এক হাজার ১১১ জন ভর্তি হয়েছেন বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে। গত ২৪ ঘণ্টার হিসাবে ঘণ্টায় ভর্তি হচ্ছেন ৯০ জনের উপরে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশনস সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে এ তথ্য জানা গেছে। সরকারি হিসাবে এ পর্যন্ত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৩৮ হাজার ৮৪৪ জন।
বেসরকারি হিসাবে এ সংখ্যা আরও কয়েকগুণ বেশি বলে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন। মৃতের সংখ্যা এ পর্যন্ত স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ২৯ জন বললেও বেসরকারি হিসাবে শতাধিক। প্রতিদিনই আক্রান্তের সঙ্গে মৃতের সংখ্যা বাড়ছে। জুন মাসে আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছিলেন এক  হাজার ৮৮৪ জন। মে মাসে ১৯৩ জন।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য মতে, এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২৯ হাজার ৩৯৫ জন। বর্তমানে ভর্তি আছেন ৯ হাজার ৪২০ জন। 
এছাড়া, গত ২৪ ঘণ্টায় খুলনা বিভাগে ভর্তি হয়েছেন ১২৬ জন, আগে থেকে ভর্তি আছেন ৬৬৫ জন; ঢাকা শহর ছাড়া বিভাগের জেলাগুলোতে ভর্তি হয়েছেন ২৭৭ জন, আগে থেকে ভর্তি আছেন ৯১২ জন; চট্টগ্রাম বিভগে ভর্তি হয়েছেন ২২৬ জন, আগে থেকে ভর্তি আছেন ৭৬৭ জন; রংপুর বিভাগে ভর্তি হয়েছেন ৭১ জন, আগে থেকে ভর্তি আছেন ৩০৩ জন; রাজশাহী বিভাগে ভর্তি হয়েছেন ১১৪ জন, আগে থেকে ভর্তি আছেন ৫০৬ জন; বরিশাল বিভাগে ভর্তি হয়েছেন ১৭৮ জন, আগে থেকে ভর্তি আছেন ৬০০ জন; সিলেট বিভাগে ভর্তি হয়েছন ৩২ জন, আগে থেকে ভর্তি আছেন ১০৭ জন এবং ময়মনসিংহ বিভাগে ভর্তি হয়েছেন ৮৭ জন, আগে থেকে ভর্তি আছেন ৩০২ জন।
বরিশাল : শেরে-ই বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতালে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ১০ বছর বয়সী এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মারা যাওয়া শিশুটির নাম রুশা। সে ঝালকাঠী উপজেলার গালুয়া ইউনিয়নের জীবনদাসকাঠী গ্রামের রূহুল আমিনের মেয়ে। বাবা-মায়ের সঙ্গে ঢাকায় থাকতো রুশা। ঈদ উদ্যাপনের জন্য জীবনদাসকাঠী গ্রামের বাড়িতে বেড়াতে এসেছিল সে।
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ



ভয়াবহ যত  ট্রেন দুর্ঘটনা

ভয়াবহ যত  ট্রেন দুর্ঘটনা

১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:৫৮



রাঙ্গাঁকে বহিষ্কার দাবি সংসদে

রাঙ্গাঁকে বহিষ্কার দাবি সংসদে

১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:৫৬








ব্রেকিং নিউজ