খুলনা | বুধবার | ১১ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৭ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

পশু জবাই করা ছোরা চাপাতি তৈরিতে কর্মকাররা ব্যস্ত থাকলেও ক্রেতা নেই

শেখ সৈয়দ আলী,ফকিরহাট | প্রকাশিত ১১ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:১৬:০০

পশু জবাই করা ছোরা চাপাতি তৈরিতে কর্মকাররা ব্যস্ত থাকলেও ক্রেতা নেই

পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে ফকিরহাটে ছুরি-চাপাতি তৈরি, মেরামতে ব্যস্ত থাকলেও কামার পট্টি ক্রেতা শূন্য হয়ে থাকছে প্রায়। পবিত্র কুরবানীর সময় পশু জবাই করা থেকে শুর করে আনুষঙ্গিক সব কাজ করার জন্য মসুলমানরা দা-ছুরি-চাপাতি সংগ্রহের প্রয়োজন। ফকিরহাটে টিনপট্টি চাল বাজারস্থ কামার পাড়ায় গিয়ে দেখা যায়, ছুরি, চাপাতি, বটি, বড় ছুরি তৈরির কাজ নিয়ে কামারদের সাজিয়ে বসে থাকতে দেখা যায়। তবে যে দিন-রাত তাদের বিরামহীনভাবে বসে থাকছেন কখন কেউ এসে দাম জিজ্ঞাসা করবে। ফকিরহাটের সব থেকে পুরাতন কামার অনন্ত কর্মকার সাথে কথা বলে জানা গেছে, তিনি বলেন ৪৬ বছর এ কামার পট্টিতে নিজে সব কিছু তৈরী করে নিজেই বিক্রয় করে আসছি কিন্তু এ বছর ক্রেতা এতটাই কম যে সামনে কি হবে বলে যাচ্ছে না। কামার পট্টি ঘুরে দেখা গেছে  ছুরি-দা-চাপাতি বিভিন্ন সাইজের বিভিন্ন দামে বিক্রি করার জন্য প্রস্তুত করে বসে আছে। দা-কেজিতে নরম লোহার দাম ৬শ’ টাকা, কাচাঁ লোহার দাম ৩শ’ টাকা। ছুরি আকার ভেদে ৫০ থেকে ১শ’ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে। বড় ছুরি আকারভেদে ১শ’ থেকে ১৫০ টাকা, চাপাতি কেজিতে ৪শ’ থেকে ৫শ’ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। কামাররা এসব দা, ছুরিসহ ৩০ টাকা থেকে ৮০ টাকা পর্যন্ত আকারভেদে মেরামত করছে। মেরামতের জন্য এখনো গ্রাহকদের তেমন সাড়া দেখা না গেলেও আর কিছু দিন পর ব্যাপক সাড়া পাবেন বলে জানিয়েছেন কামাররা। পবিত্র কুরবানীর ঈদকে সামনে রেখে দা, ছুরি পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে। তার মধ্যে পশু জবাই করা ছোরা ১শ’, ছোট ছুরি আকারভেদে ৬শ’ পিস, বড়-ছোট বটি আকারভেদে ৩শ’ পিস, চাপাতি ছোট বড় আকারভেদে ৩শ’ পিস মজুদ রয়েছে বলে জানান। অন্য  কামাররা  বলেন, কুরবানীর ঈদকে সামনে রেখে আমাদের প্রচুর পরিমাণ দা, ছুরিসহ অন্যান্য জিনিসপত্র মজুদ রয়েছে। এখনো মেরামতের জন্য ক্রেতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। আর কিছুদিন পর ক্রেতাদের ঢল নামবে বলে আশা করেন তবে বিগত বছরের তুলনায় বিক্রি নাই বললে চলে। একই অবস্থা তবে কুরবানীর ঈদে মেরামতের জন্য বেশী ভিড় দেখা যেতে পারে। আমাদের কাঁঠ কয়লার মজুদ না থাকায় দা, ছুরি মেরামতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। যদি ক্রেতা আরো বেড়ে যায় মেরামতের কাজ না করে বসে থাকতে হবে। কাঁঠ কয়লার বিকল্প কিছু আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, কাঁঠ কয়লা ছাড়া বিভিন্ন জায়গা থেকে পাথর কয়লা আনা যায়, কিন্তু পাথর কয়লার দাম, পরিবহন খরচ ইত্যাদি মিলিয়ে আমাদের লোকসান হওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়। তাই আমাদের কাঁঠ কয়লার উপর বেশী নির্ভরশীল হতে হয়।
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ


কুরবানীর ইতিহাস ও বিধান

কুরবানীর ইতিহাস ও বিধান

১১ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:৩৯

ঈদুল আযহা : তাৎপর্য

ঈদুল আযহা : তাৎপর্য

১১ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:১৯






জবাইয়ে যে ভুল করলে কুরবানী হয় না

জবাইয়ে যে ভুল করলে কুরবানী হয় না

১১ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:১৬

গরুর মাংসের সাদা ভুনা

গরুর মাংসের সাদা ভুনা

১১ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:১৪

পোলাওয়ের সাথে মাটন কোফতা কারি

পোলাওয়ের সাথে মাটন কোফতা কারি

১১ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:০৯

ঐতিহ্যবাহী রান্না কড়াই গোস্ত

ঐতিহ্যবাহী রান্না কড়াই গোস্ত

১১ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:০৯


ব্রেকিং নিউজ







উৎসব মুখর পরিবেশে আ’লীগের সম্মেলন

উৎসব মুখর পরিবেশে আ’লীগের সম্মেলন

১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:২৮




কুষ্টিয়া মুক্ত দিবস আজ

কুষ্টিয়া মুক্ত দিবস আজ

১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:২২