খুলনা | বৃহস্পতিবার | ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

পাকিস্তানের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আহ্বান ভারতের : জাতিসংঘের উদ্বেগ

খবর প্রতিবেদন | প্রকাশিত ০৯ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:৫৫:০০


জম্মু-কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে ভারতের সঙ্গে বাণিজ্য স্থগিত, নিজেদের রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার ও ভারতের রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কার করা নিয়ে পাকিস্তানের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানিয়েছে ভারত। পাকিস্তানের এমন সিদ্ধান্তেদুঃখ প্রকাশ করছে দেশটি। বৃহস্পতিবার ভারত সরকারের এক বিবৃতির বরাত দিয়ে এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে এতথ্য জানানো হয়।
ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরকে সংবিধানের মাধ্যমে দেওয়া বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারের পর বুধবারই ভারতের সঙ্গে সব ধরনের বাণিজ্য স্থগিত, নিজেদের রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার এবং ভারতের রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কার করে পাকিস্তান।
বৃহস্পতিবার ভারত সরকারের বিবৃতিতে বলা হয়, স্বাভাবিক কূটনৈতিক সম্পর্ক বজায় রাখার স্বার্থে এই সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার জন্য পাকিস্তানের প্রতি আহ্বান জানানো হচ্ছে। দুই দেশের সম্পর্ককে একটা ভীতিকর অবস্থায় বিশ্বের কাছে উপস্থাপনের জন্য পাকিস্তান এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে বলে ভারতীয় কর্তৃপক্ষের বিবৃতিতে মন্তব্য করা হয়।
জাতিসংঘের উদ্বেগ : ভারত অধিকৃত কাশ্মিরে নয়াদিল্লীর কর্মকাণ্ড ও আরোপিত বিধিনিষেধ নিয়ে গভীর উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘ। পাশাপাশি কাশ্মিরে ভারতের বিতর্কিত পদক্ষেপ সেখানকার মানবাধিকার পরিস্থিতিকে আরো খারাপের দিকে নিয়ে যাবে বলেও মন্তব্য করেছে সংস্থাটি। জাতিসংঘের পক্ষ থেকে এক টুইটার পোস্টে এ কথা বলা হয়। এতে আরো বলা হয়, কাশ্মিরে আইনি কড়াকড়ি চলছে। মানবাধিকার পরিস্থিতি আরও খারাপ হচ্ছে, কোনও তথ্য পাওয়া যাচ্ছে না। পরিস্থিতি উদ্বেগজনক হয়ে উঠছে। বার্তায় কাশ্মিরের টেলিযোগাযোগ বন্ধ, নেতাদের নির্বিচারে আটক ও সমাবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞায় আপত্তির বিষয়টি জোরালো ভাবে উপস্থাপন করে জাতিসঙ্ঘ।
চলতি সপ্তাহে কাশ্মিরে নতুন যে বিধিনিষেধ দেয়া হয়েছে তা পরিস্থিতিকে নতুন এক মাত্রায় নিয়ে গেছে বলেও মন্তব্য করে জাতিসঙ্ঘ। সংস্থাটি আরো বলে,‘ভিন্নমত দমনে কাশ্মিরে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন করে দেয়া, রাজনৈতিকভাবে ভিন্নমত পোষণকারীদের শাস্তি দিতে নির্বিচারে আটক এবং বিক্ষোভ মোকাবেলায় মাত্রাতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করে যা বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড ও গুরুতর জখম ঘটায় আগের প্রতিবেদনে তার বিবরণ আছে।’ ‘জাতিসংঘ এখন ওই অঞ্চলে ফের টেলিযোগাযোগে বিধিনিষেধ আরোপের বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করছে। এবারের বিধিনিষেধ আগেরবার আমরা যা দেখেছি তার চেয়েও তীব্র। এ ধরনের নিষেধাজ্ঞা জম্মু ও কাশ্মীরের জনগণকে তাদের অঞ্চলের ভবিষ্যৎ নিয়ে গণতান্ত্রিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করা থেকে বঞ্চিত করবে।’


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ







উৎসব মুখর পরিবেশে আ’লীগের সম্মেলন

উৎসব মুখর পরিবেশে আ’লীগের সম্মেলন

১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:২৮




কুষ্টিয়া মুক্ত দিবস আজ

কুষ্টিয়া মুক্ত দিবস আজ

১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:২২