খুলনা | বৃহস্পতিবার | ২২ অগাস্ট ২০১৯ | ৭ ভাদ্র ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

৩৭০ অনুচ্ছেদ শুধু সন্ত্রাসবাদ, বিচ্ছিন্নতাবাদ দুর্নীতি দিয়েছে জম্মু কাশ্মীরে : মোদী

খবর প্রতিবেদন | প্রকাশিত ০৯ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:৩৯:০০


নয়া জম্মু-কাশ্মীরের স্বপ্ন ফেরি করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেই স্বপ্নে সন্ত্রাসবাদের অবসান হবে, পরিকাঠামো, পর্যটন, শিক্ষা, স্বাস্থ্যে উন্নয়নের জোয়ার বইবে, যুব সম্প্রদায় কাজ পাবে সর্বোপরি জগৎসভায় উপত্যকা আবার ফিরে পাবে ভূস্বর্গের মুকুট। ৩৭০ অনুচ্ছেদ তথা বিশেষ মর্যাদা থাকায় এত দিন জম্মু-কাশ্মীরের কী ক্ষতি হয়েছে, এবং এখন সেই ধারা বিলুপ্তির পর কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হওয়ায় রাজ্যবাসীর কী লাভ হবে সে সব প্রতিশ্র“তির ডালি তুলে ধরলেন জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখবাসীর সামনে। বোঝানোর চেষ্টা করলেন, অন্ধকার যুগ থেকে আলোর পথে পা বাড়াল উপত্যকা।  
৩৭০ অনুচ্ছেদ তুলে দেওয়ার পর এই প্রথম বক্তব্য নরেন্দ্র মোদীর। জাতির উদ্দেশে ভাষণে তিনি বলেন, ‘‘৩৭০ ধারা কার্যকরী থাকায় জম্মু-কাশ্মীর পেয়েছে শুধু সন্ত্রাসবাদ, বিচ্ছিন্নতাবাদ, পরিবারবাদ এবং দুর্নীতি। জনকল্যাণে সংসদে যে সব আইন তৈরি হত, তা কার্যকরী হত না উপত্যকায়। কেন্দ্রের জনকল্যাণমূলক প্রকল্পগুলির সুবিধা পেতেন না। এমনকি, চাকুরিতে সংরক্ষণ, তথ্য জানার অধিকারের মতো আইনও সেখানে কার্যকরী ছিল না। সেই সব থেকে মুক্ত হয়ে এক নতুন জম্মু-কাশ্মীর আত্মপ্রকাশ করেছে।’’ কেন্দ্রের অধীনে থাকায় এখন জম্মু-কাশ্মীরে পরিকাঠামো, যোগাযোগ, ব্যবসা, পর্যটন, শিক্ষা, স্বাস্থ্য— সব ক্ষেত্রে  উন্নয়ন গতি আসবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তবে বেশি দিন যে জম্মু-কাশ্মীর কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল থাকবে না, তাও এ দিন কাশ্মীরবাসীকে আশ্বস্ত করেছেন মোদী। 
লাদাখের জন্য এই সব কল্যাণমূলক কাজ তো হবেই, তার সঙ্গে আলাদা করে সেখানকার ভেষজ সম্পদের কথা উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী। মোদী বলেন, ‘‘লাদাখ হয়ে উঠতে পারে দেশের সবচেয়ে বড় ও আকর্ষণীয় পর্যটন কেন্দ্র। এখানকার ভেষজ সম্পদ বিশ্বের কাছে তুলে ধরতে হবে। সৌরশক্তি উৎপাদনে নতুন পথ দেখাতে পারে লাদাখ।’’ এখানেও শিক্ষা, স্বাস্থ্য-সহ সব বিষয়ে কেন্দ্রের সর্বোপরি সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।  
কাশ্মীরবাসীকে দেশবাসীর সঙ্গে একাত্ম করতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আপনারা কখনওই মনে করবেন না আলাদা। আপনাদের সুখ-দুঃখ আমাদেরও সুখ-দুঃখ। কাশ্মীরবাসীকে ঈদের আগাম শুভেচ্ছা জানিয়ে ধুমধাম করে ঈদ পালনের কথাও বলেন মোদী। 
আর সব শেষে উপত্যকার বাসিন্দাদের প্রতি মোদীর আহ্বান, আসুন সবাই মিলে সন্ত্রাসমুক্ত, বিচ্ছিন্নতাবাদমুক্ত এমন এক শান্তির উদ্যান গড়ে তুলি কাশ্মীরকে, যাতে সারা বিশ্বে নজির তৈরি হবে।  
প্রধানমন্ত্রীর আংশিক বক্তব্য : জম্মু-কাশ্মীর, লাদাখের ভাই-বোনেদের প্রতি আমার আহ্বান, আসুন, আমরা সবাই মিলে নতুন জম্মু-কাশ্মীর ও নতুন লাদাখ তৈরি করি। আমরা সবাই মিলে সেই স্বপ্ন পূরণ করব।  তাঁদের সবার স্বপ্ন ছিল সমৃদ্ধ ও সুরক্ষিত কাশ্মীর  তৈরির। জম্মু-কাশ্মীরের জন্য অনেকে শহিদ হয়েছেন, অনেকে প্রাণ দিয়েছে। কার্গিলেও অনেকে বলিদান দিয়েছেন, তাঁদেরও সম্মান জানানো হয়েছে। তাঁদের রাষ্ট্রীয় সম্মান দেওয়া হয়েছে। পুঞ্চ জেলার সাধারণ মানুষই ১৯৬৫ সালে অনুপ্রবেশের বিষয়ে খবর দিয়েছিলেন। একে রক্ষা করতে অনেক বীর তাঁদের জীবন দিয়েছে, জীবন বাজি রেখেছে।  জম্মু-কাশ্মীর আমাদের দেশের মুকুট।  যাঁরা ঈদে ঘরে ফিরতে চান, তাঁদের সবরকম সাহায্য করবে সরকার। জম্মু-কাশ্মীরের মানুষের ঈদ পালন করতে যাতে কোনও অসুবিধা না হয়, তার জন্য সব রকম ব্যবস্থা করা হবে। মুষ্টিমেয় কিছু লোক অশান্তি সৃষ্টি করতে চাইছে। ৩৭০ অনুচ্ছেদ তোলার সিদ্ধান্তকে জম্মু-কাশ্মীরের মানুষ স্বাগত জানিয়েছেন। জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখের মানুষকে এটা বোঝাতে চাই যে তাঁদের সুখ-দুঃখ থেকে আমরা আলাদা নই। সংসদেকে ভোট দিয়েছে, কে দেয়নি এই ঊর্ধ্বে উঠে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখের উন্নয়নে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। বিরোধীরা যে বক্তব্য রাখছে, তার জবাব দেওয়ার চেষ্টা করছে সরকার। কিন্তু এর বিরুদ্ধে যাঁরা, তাঁদের ভাবনাকেও আমরা সম্মান করি। গণতন্ত্রে এটাই নিয়ম। লাদাখের মানষের ভালো শিক্ষা ব্যবস্থা, স্বাস্থ্য ব্যবস্থা, যোগাযোগ ব্যবস্থা মিলবে। সৌরশক্তি উৎপাদনের ক্ষেত্রে লাদাখ হতে পারে সারাদেশের দিশা। সরকার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তাতে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখের যুব সম্প্রদায় অনেক এগিয়ে যাবে। 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ










সংসদ বসছে  ৮ সেপ্টেম্বর

সংসদ বসছে  ৮ সেপ্টেম্বর

২২ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:৫৮