খুলনা | বৃহস্পতিবার | ২২ অগাস্ট ২০১৯ | ৭ ভাদ্র ১৪২৬ |

ভুল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যু স্বচ্ছতা নিশ্চিত করুন

৩০ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০:০০

ভুল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যু স্বচ্ছতা নিশ্চিত করুন


স্বাস্থ্যসেবা পাওয়া প্রতিটি নাগরিকের মৌলিক অধিকার। এজন্য রাষ্ট্রকেই অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হলেও সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা সেবার অপ্রতুলতার জন্য রোগাক্রান্ত মানুষকে বেসরকারি হাসপাতালের দারস্থ হতে হয়। অবশ্য মুক্তবাজারের এ সময়ে রাষ্ট্র একাই চিকিৎসাসেবা সামলাবে, এটি পুঁজিবাদী অর্থ ব্যবস্থার সঙ্গে বেমানান। তাই তৃতীয় বিশ্বের উন্নয়নশীল একটি দেশে সরকারি চিকিৎসা সেবার পাশাপাশি বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবাও মানুষ গ্রহণ করবে, আধুনিক সময়ে এটিই স্বাভাবিকভাবে সবার কাছে গ্রহণযোগ্য হয়েছে। কিন্তু দুর্নীতিগ্রস্ত রাষ্ট্র ব্যবস্থায় জবাবদিহিতার সংকটটি রয়ে গেছে।
সরকার সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অসচেতনতা ও গা-ছাড়া ভাবের কারণে বেসরকারি হাসপাতালগুলো চিকিৎসা দেওয়ার ক্ষেত্রে অনেক সময় আইনের তোয়াক্কা তো করছেই না, বরং নার্স ও ওয়ার্ডবয়দের দিয়ে চিকিৎসা করিয়ে মৃত্যু ঘটানোর মতো দুঃসাহসও দেখাচ্ছে। আর ভুয়া চিকিৎসকের বিষয়টি তো রয়েছে। পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, নোয়াখালীতে ওয়ার্ডবয় ও নার্সের ভুল চিকিৎসায় প্রসূতি মা ও নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে। একই ভাবে দিনাজপুরে চিকিৎসক সেজে অপারেশন করতে গিয়ে নার্সের ভুল চিকিৎসায় এক রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া রাজধানীতে অপারেশন থিয়েটার থেকে এমবিবিএস পরিচয়ধারী দুই ভুয়া চিকিৎসককে আটক করা হয়েছে। এসব ঘটনায় মামলা দায়ের, হাসপাতাল সিলগালা ও অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হয়েছে। এভাবে মানুষের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলার অধিকার কোনো বেসরকারি হাসপাতালের নেই। আমরা অতীতেও চিকিৎসা সেবার নামে যা খুশি তাই করার এমন চিত্র দেখতে পেয়েছি। ড্রিল মেশিন দিয়ে হাত-পা ছিদ্র করা, নার্সকে দিয়ে প্রসূতির অপ্রয়োজনীয় সিজার করাতে গিয়ে নবজাতকের মৃত্যু, মানহীন ও মেয়াদোত্তীর্ণ সরঞ্জাম দিয়ে ডায়াগনস্টিক সেন্টার পরিচালনা, ভুয়া সার্টিফিকেট জোগাড় করে নিজেকে ডাক্তার পরিচয় দিয়ে প্রতারণাসহ বিভিন্ন অপকর্মের নজির আমাদের সামনে রয়েছে। এখন প্রশ্ন হচ্ছে সরকার তো অতীতেও এসবের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে, তাহলে কেন এসব অপকর্ম থামছে না।
আসলে মানুষ অপরাধ প্রবণ হওয়ায় মানুষের অপরাধকে নিয়ন্ত্রণ ও দমন করার জন্য আইনের বাস্তবায়ন নিয়মিত অব্যাহত রাখতে হয়। তাই জনগণের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার জন্য আইন প্রয়োগের ক্ষেত্রে গাফিলতি প্রদর্শনের কোনো সুযোগ নেই। তাই আমরা প্রত্যাশা করব স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় নিয়মিতভাবে দেশের সরকারি হাসপাতালসহ দেশের বেসরকারি হাসপাতালগুলোর চিকিৎসা কার্যক্রম মনিটরিং করে নাগরিকদের সুচিকিৎসার বিষয়টি নিশ্চিত করবে।
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ








রক্তে ভেজা ‘পনেরই আগস্ট’ আজ

রক্তে ভেজা ‘পনেরই আগস্ট’ আজ

১৫ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:০০


মহামিলনের পবিত্র হজ্জ শুরু

মহামিলনের পবিত্র হজ্জ শুরু

১০ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:০০




ব্রেকিং নিউজ










সংসদ বসছে  ৮ সেপ্টেম্বর

সংসদ বসছে  ৮ সেপ্টেম্বর

২২ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:৫৮