খুলনা | সোমবার | ১৯ অগাস্ট ২০১৯ | ৪ ভাদ্র ১৪২৬ |

শিরোনাম :
মোংলায় সাংগঠনিক তদন্তে এসে অভিযুক্তের সাথে ভ্রমণ ও ভুরিভোজ কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতারডেঙ্গু আক্রান্ত ৫৩ হাজার, চিকিৎসা শেষে ফিরেছে ৪৫ হাজারবেসরকারি বিশ্ববিদ্যায়ের শিক্ষার্থী শিঞ্জন একদিনের রিমান্ডে অবরুদ্ধ কাশ্মীরে বাড়ছে নিরাপত্তা বাহিনীর নির্যাতন, চলছে বাছবিচারহীন গ্রেফতারখুলনায় প্রাধিকারপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে গাড়ি ও ড্রাইভারের সুবিধা গ্রহণে অনিয়মের অভিযোগ!ফের নগরীর বেসরকারি বিশ্বদ্যিালয়ের বিবিএ’র ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের অভিযোগঈদযাত্রায় সড়কে গেছে ২২৪ প্রাণস্ত্রী পরিচয়ে কুয়াকাটাসহ নগরীর বিভিন্ন আবাসিক হোটেলে ওই ছাত্রীকে রেখেছিলো ‘শিঞ্জন রায়’

ঈদের আগেই ক্ষতিগ্রস্ত  সড়ক মেরামত জরুরী

২৮ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০:০০

ঈদের আগেই ক্ষতিগ্রস্ত  সড়ক মেরামত জরুরী

চলতি বন্যায় দেশের ৩৫ জেলার ৯৮ উপজেলা আক্রান্ত। এতে ঘরবাড়ি, খাদ্যশস্য, ক্ষেতের ফসল ইত্যাদির পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে প্রায় ৪৫০ কিলোমিটার সড়ক-মহাসড়ক। এগুলোর মধ্যে সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের আওতাধীন ১৩১ সড়কের ক্ষতি হয়েছে সবচেয়ে বেশি। স্রোতের তোড়ে অনেক সড়ক ভেঙে গেছে। কোথাওবা খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। এ ছাড়া ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সেতু ও কালভার্ট। পবিত্র ঈদুল আজহা আসন্ন। এ পরিস্থিতিতে ঈদযাত্রা নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে। কারণ, বিপুল সংখ্যক মানুষ আত্মীয়-পরিজনদের সঙ্গে ঈদ উদ্যাপনের জন্য ঘরমুখো হবে। 
সাম্প্রতিক সময়ে দেশের সড়ক-মহাসড়কগুলোর সার্বিক অবস্থার উন্নত হওয়ায় গত ঈদুল ফিতরের সময় মানুষের ঘরমুখো যাত্রা অনেকটাই নির্বিঘœ হয়েছে। কয়েকটি মহাসড়ক চার লেনে উন্নীতকরণ এবং কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সেতু সংস্কারের কাজ সম্পন্ন হওয়ায় তুলনামূলক স্বল্প সময়ে এবং কম ভোগান্তিতে মানুষ তাদের গন্তব্যে যেতে পেরেছে। আসন্ন ঈদুল আজহার সময় মানুষের যাত্রা কতটা নির্বিঘœ হয় সেটাই এখন দেখার বিষয়। সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, চলতি বন্যায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে  সড়ক-মহাসড়কগুলো। অন্তত ৫০টি সড়ক ভেঙে গেছে। উত্তর বঙ্গের জেলার ১৮৬ কিলোমিটার সড়ক ভেঙে গেছে। এ সব জেলার ওপর দিয়েই বেশির ভাগ যানবাহন উত্তরাঞ্চলে যাতায়াত করে। কাজেই ক্ষতিগ্রস্ত জেলার সড়ক-মহাসড়ক মেরামতে বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে। বন্যা, অতিবৃষ্টি, জলাবদ্ধতার মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ আমাদের নিত্যসঙ্গী। প্রতি বছরই এসব দুর্যোগের মুখোমুখি হতে হয় আমাদের। এর ফলে সড়ক-মহাসড়ক গুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয় ঘন ঘন। এসব সড়ক বছর বছর মেরামত করা সময়সাপেক্ষ ও ব্যয়বহুল। তাই সড়ক-মহাসড়কগুলো এমনভাবে নির্মাণ ও মেরামত করা উচিত যাতে সেগুলো বন্যা-জলাবদ্ধতায় সহজে ভেঙে না যায়।
বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক-মহাসড়কগুলোর জরুরি মেরামত কাজ ঈদের এক সপ্তাহ আগেই সম্পন্ন করার নির্দেশ দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়। আমরা আশা করব, আসন্ন ঈদুল আজহার এক সপ্তাহ আগেই ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক-মহাসড়কের মেরামত কাজের যে নির্দেশনা দিয়েছে, তা দ্রুত বাস্তবায়িত হবে। বিগত বছরগুলোতে ঈদের সময় রাস্তাঘাটের দুরবস্থার কারণে যানচলাচল বিঘিœত হওয়া, যানবাহন গন্তব্যে পৌঁছতে কয়েকগুণ সময় বেশি লাগা, যানবাহন দুর্ঘটনায় পতিত হওয়াসহ নানা রকম বিপদ-ভোগান্তির অভিজ্ঞতা আমাদের হয়েছে। আমরা নিশ্চয়ই এমন অবস্থার পুনরাবৃত্তি চাই না। ঈদযাত্রা নির্বিঘœ করতে সব পক্ষকে সমন্বিতভাবে এ দায়িত্ব পালন করতে হবে। জরুরি ভিত্তিতে ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক-মহাসড়কগুলো মেরামত কাজ সম্পন্ন হবে এটাই আমাদের প্রত্যাশা।
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ





রক্তে ভেজা ‘পনেরই আগস্ট’ আজ

রক্তে ভেজা ‘পনেরই আগস্ট’ আজ

১৫ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:০০


মহামিলনের পবিত্র হজ্জ শুরু

মহামিলনের পবিত্র হজ্জ শুরু

১০ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:০০







ব্রেকিং নিউজ