খুলনা | বুধবার | ১১ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৭ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬ |

ফিটনেসবিহীন যানবাহন প্রতিরোধে কঠোর হোন

২৬ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০:০০

ফিটনেসবিহীন যানবাহন প্রতিরোধে কঠোর হোন

চলাচলের অযোগ্য ফিটনেসবিহীন যানবাহন সড়কে কতটা বিশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সৃষ্টি করছে তারই চিত্র ফুটে উঠেছে উচ্চ আদালতে দাখিল করা বিআরটিএর প্রতিবেদনের মধ্য দিয়ে।  প্রতিবেদন অনুযায়ী, ফিটনেসবিহীন যানবাহনগুলোর মধ্যে রয়েছে ঢাকা বিভাগে দুই লাখ ৬১ হাজার ১১৩টি, চট্টগ্রাম বিভাগে এক লাখ ১৯ হাজার ৫৮৮টি, রাজশাহী বিভাগে ২৬ হাজার ২৪০টি, রংপুর বিভাগে ছয় হাজার ৫৮৮টি, খুলনা বিভাগে ১৫ হাজার ৬৬৮টি, সিলেট বিভাগে ৪৪ হাজার ৮০৫টি এবং বরিশাল বিভাগে পাঁচ হাজার ৩৩৮টি। আর এ তথ্যে স্বাভাবিকভাবেই মাননীয় আদালত সংশ্লিষ্টদের ওপর ক্ষুব্ধ হয়েছেন। বিআরটিএকে উদ্দেশ্য করে এমন প্রশ্ন করেছেন হাইকোর্ট। ‘আপনাদের নাকের ডগার ওপর দিয়ে কীভাবে লাখ লাখ ফিটনেসবিহীন গাড়ি চলে? আগামী পহেলা আগস্ট থেকে ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে দেশের ফিটনেসহীন সব পরিবহনের লাইসেন্স নবায়নের নির্দেশ দেয়ার পাশাপাশি সময়ের মধ্যে লাইসেন্স নবায়ন করা না হলে আগামী ১৫ অক্টোবর পরিবহনগুলো জব্দের নির্দেশ দেয়া হবে বলেও সতর্ক করেছেন আদালত।
যাত্রাপথে জীবনের বড় অভিশাপ সড়ক দুর্ঘটনা। আর দুর্ঘটনার কারণ হিসেবে ফিটনেসবিহীন গাড়ি, রাস্তাঘাটের দুর্দশা, ত্র“টিপূর্ণ যানবাহন, চালকের খামখেয়ালিপনা, অনভিজ্ঞ চালক দিয়ে গাড়ি পরিচালনাকেই দায়ী করা হয়। যেখানে দেশের প্রতিটি মানুষই চায় তাদের যাত্রা পথ যেন হয় নিরাপদ। কিন্তু বাস্তবতা হলো, বিআরটিএ ফিটনেসবিহীন গাড়ি ও লাইসেন্সবিহীন চালকদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করলেও কোনো সুফল পাওয়া যাচ্ছে না। প্রচলিত আইনে ফিটনেসবিহীন গাড়ির বিরুদ্ধে উচ্চহারে জরিমানার কোনো বিধান নেই। এ কারণে বারবার মামলা ও জরিমানা হলেও ফিটনেসবিহীন গাড়ির চলাচল বন্ধ হচ্ছে না বলেও মনে করেন বিশ্লেষকরা। সাঁড়াশি অভিযান পরিচালনায় প্রায় সময়েই কিছুটা গাড়িশূন্য থাকছে রাস্তাঘাট। তখন ভোগান্তিতে পড়ছেন যাত্রীরা। এ সময় বাস স্টপেজগুলোতে যাত্রীদের উপচেপড়া ভিড় চোখে পড়ে। আর এ সুযোগে অটোরিকশা চালকরা ইচ্ছেমতো ভাড়া আদায় করে নিচ্ছে যাত্রীদের কাছ থেকে। যাত্রীরা এদের কাছে অনেকটা জিম্মি অবস্থায় থাকলেও সংশ্লিষ্টদের পক্ষ থেকে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না।
আমরা মনে করি, যে কোনো মূল্যে নিরসন করতে হবে সড়ক ও পরিবহন খাতের নৈরাজ্য। দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, ফলে এখনো যদি দেশের পরিবহন খাতে এমন নৈরাজ্য থাকে তাহলে এর চেয়ে পরিতাপের আর কি হতে পারে। আমাদের প্রত্যাশা থাকবে ফিটনেসবিহীন যান রোধে আদালত যে নির্দেশনা দিয়েছে তা বাস্তবায়নে বিআরটিএ আরো কঠোর হবে। প্রয়োজন আইন সংস্কার করে হলেও ফিটনেসবিহীন হাজার হাজার গাড়ির ভাগাড়ে পরিণত হওয়া থেকে রাজধানীকে রক্ষা করতে হবে।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ


বিআরটিএ’র জবাবদিহি নিশ্চিত করুন

বিআরটিএ’র জবাবদিহি নিশ্চিত করুন

১০ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০




ফেসবুক ব্যবহারে থাকুক সীমারেখা

ফেসবুক ব্যবহারে থাকুক সীমারেখা

০৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০








ব্রেকিং নিউজ







উৎসব মুখর পরিবেশে আ’লীগের সম্মেলন

উৎসব মুখর পরিবেশে আ’লীগের সম্মেলন

১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:২৮




কুষ্টিয়া মুক্ত দিবস আজ

কুষ্টিয়া মুক্ত দিবস আজ

১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:২২