খুলনা | মঙ্গলবার | ১০ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৫ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক কূটনীতি একসঙ্গে অনুসরণ করুন : রাষ্ট্রদূতদের প্রধানমন্ত্রী

খবর প্রতিবেদন | প্রকাশিত ২২ জুলাই, ২০১৯ ০০:৩৬:০০

দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের স্বার্থে রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক কূটনীতি একসঙ্গে অনুসরণ করতে ইউরোপে অবস্থানরত বাংলাদেশের দূতদের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। স্থানীয় সময় গত শনিবার লন্ডনের তাজ হোটেলে বাংলাদেশের দূতদের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন যুক্তরাজ্যে সফররত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সম্মেলনে রোহিঙ্গা, অভিবাসন এবং জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উদ্যাপন নিয়েও কথা হয়। কথা হয় স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালনেরও।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘রাজনৈতিক কূটনীতির পাশাপাশি অর্থনৈতিক বিষয়সমূহের ওপর আমাদের আরো বেশি গুরুত্ব দিতে হবে, যাতে বাংলাদেশের চলমান উন্নয়ন অব্যাহত থাকে।’
পররাষ্ট্রনীতি নিয়ে কথা বলতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলে গিয়েছেন সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারও সঙ্গে বৈরিতা নয়। এই দর্শন অনুসরণ করেই বাংলাদেশে বিশ্বের কাছে সম্মানের আসন অর্জন করেছে। এই পররাষ্ট্রনীতিতে বেশ কিছু সমস্যার সমাধান হয়েছে। কূটনৈতিক আলোচনায় সমাধান হয়েছে ভারতের সঙ্গে ছিটমহল চুক্তির। একইভাবে রোহিঙ্গা সংকটও সমাধান হয়ে যাবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, কিভাবে আমাদের বিনিয়োগ ও বাণিজ্য বাড়ানো যায় এবং বিদেশি বিশেষ করে ইউরোপীয় রাষ্ট্রগুলোতে দক্ষ জনশক্তি রপ্তানি করা যায় সেই বিষয়ে আমাদের সুযোগ খুঁজে দেখতে হবে। বাংলাদেশে এখন দক্ষ তরুণ প্রজন্ম আছে যারা বিশ্ব বাজারে কাজ করার জন্য যোগ্য।
তিনি আরও বলেন, তার সরকার ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করার উদ্দেশ্যে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। ইতোমধ্যে আমরা ৮ শতাংশের ওপর জিডিপি নির্ধারণ করেছি। আগামী অর্থবছরে এর হার ৮.১২ শতাংশ করার লক্ষ্য আমাদের। একইসঙ্গে ২০২০ সালের মধ্যে মাথাপিছু আয় হবে ২ হাজার মার্কিন ডলার। দূতদেরও তিনি এই লক্ষ্যকে সামনে রেখে কাজ করার তাগিদ দেন।
সম্মেলন শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম জানান, ইউরোপের বিভিন্ন দেশে দায়িত্ব পালনকারী বাংলাদেশের ১৫ জন রাষ্ট্রদূত, হাইকমিশনার এবং স্থায়ী প্রতিনিধিরা এতে যোগ দেন। প্রত্যেক রাষ্ট্রদূত নিজ নিজ মিশনের কর্মকাণ্ড, বাংলাদেশের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট দেশের কূটনৈতিক বাণিজ্যিক সম্পর্কের বিষয়ে আলোকপাত করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বাংলাদেশি দূতদের সঙ্গে আলোচনা করেন এবং প্রয়োজনীয় নির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন।
সম্মেলনে আরো বক্তৃতা করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব নজিবুর রহমান ও পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
সম্মেলনে অংশ নেওয়া বাংলাদেশের দূতরা হলেন আবু জাফর (অস্ট্রিয়া), মোহাম্মদ শাহাদত হোসেন (বেলজিয়াম), মুহম্মদ আবদুল মুহিত (ডেনমার্ক), কাজী ইমতিয়াজ হোসেন (ফ্রান্স), ইমতিয়াজ আহমেদ (জার্মানি), জসিম উদ্দিন (গ্রিস), আবদুস সোবহান সিকদার (ইতালি), শেখ মোহাম্মদ বেলাল (নেদারল্যান্ডস), মুহাম্মদ মাহফুজুর রহমান (পোল্যান্ড), রুহুল আলম সিদ্দিক (পর্তুগাল), ড. এস এম সাইফুল হক (রাশিয়া), হাসান মাহমুদ খন্দকার (স্পেন), নাজমুল ইসলাম (সুইডেন), শামীম আহসান (সুইজারল্যান্ড) ও সাইদা মুনা তাসনীম (যুক্তরাজ্য)। আগামী ৫ আগস্ট দেশে ফেরার কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রীর।
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ


টানা দ্বিতীয় জয়ে শীর্ষে খুলনা

টানা দ্বিতীয় জয়ে শীর্ষে খুলনা

১০ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০