খুলনা | শনিবার | ২৪ অগাস্ট ২০১৯ | ৯ ভাদ্র ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি নিহতের পরিবারের

নগরীতে ব্যাংকার মেয়েকে গণধর্ষণের পর বৃদ্ধ বাবাসহ  লোমহর্ষক জোড়া হত্যা মামলার রায় আজ

সোহাগ দেওয়ান | প্রকাশিত ১৬ জুলাই, ২০১৯ ০০:৫৩:০০

নগরীর এক্সিম ব্যাংকের সাবেক কর্মকর্তা পারভীন সুলতানাকে গণধর্ষণের পর তার বাবা ইলিয়াছ আলীসহ হত্যা এবং লুটপাটের ঘটনায় পৃথক দু’টি মামলার রায় আজ। বহুল আলোচিত এ হত্যাকান্ডের ৩ বছর ৯ মাস ২৭ দিন পর খুলনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ৩নং ট্রাইব্যুনালে রায় ঘোষণা হতে যাচ্ছে। ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোঃ মহিদুজ্জামান এ রায় ঘোষণা করবেন। এদিকে এ মামলার আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ডের দাবি জানিয়েছেন নিহতের পরিবার। রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করছেন স্পেশাল পিপি এড. ফরিদ আহমেদ। এছাড়া রাষ্ট্রপক্ষকে সহায়তায় রয়েছেন বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার পক্ষে এড. কাজী সাবিক্ষর আহমেদ, এড. মোমিনুল ইসলাম, এড. তসলিমা খাতুন ও এড. কুদরত-ই-খুদা।  
মামলার চার্জশীটভুক্ত ৫ আসামিরা হচ্ছে লবণচরা থানাধীন বুড়ো মৌলভীর দরগা রোডের বাসিন্দা শেখ আব্দুল জলিলের ছেলে সাইফুল ইসলাম পিটিল (৩০), তার ভাই মোঃ শরিফুল (২৭), মোঃ আবুল কালামের ছেলে মোঃ লিটন (২৮), অহিদুল ইসলামের ছেলে আবু সাইদ (২৫) ও মৃত সেকেন্দারের ছেলে মোঃ আজিজুর রহমান পলাশ (২৬)। এদের মধ্যে শরিফুল পলাতক বাকী ৪ জন কারাগারে রয়েছেন।
আদালত সূত্রে জানা গেছে, হত্যাকান্ডের এ মামলায় ২২জন ও গণধর্ষনের মামলায় ২৮ জন সাক্ষীর স্বাক্ষ্য গ্রহণ করেছেন আদালত। আসামিদের মধ্যে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় ২ জনের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দীতে লোমহর্ষক এ হত্যাকান্ডের বর্ণনা রয়েছে। চলতি বছরের ২৪ এপ্রিল খুলনার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ৩নং ট্রাইব্যুনালে মামলাটির যুক্তিতর্ক (আর্গুমেন্ট) শুরু হয়।   মামলার তদন্ত চলাকালে হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত ৫ জনের মধ্যে ৪ জন গ্রেফতার হয়। এছাড়াও গ্রেফতার করা হয় পিটিলের স্ত্রী আসমা খাতুন, নোয়াব আলি গাজী ও আসলাম মিস্ত্রি নামের একজন সন্দেহভাজনকে। তাদের মধ্যে লিটন ও সাঈদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দীতে উঠে আসে লোমহর্ষক হত্যাকান্ডের ঘটনা। তারা আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দীতে বলে, ব্যাংক কর্মকর্তা পারভীন অফিসে আসা-যাওয়ার পথে আসামিরা কু-প্রস্তাবসহ নানাভাবে যৌন হয়রানি করতো। এর প্রতিবাদ করায় ঘটনার দিন রাতে বাড়ির দেয়াল টপকে ভিতরে প্রবেশ করে ৫ আসামি। এরপর অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে পারভীনের বাবাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়। পাশের রুমে থাকা পারভীনকে ৫ জন মিলে গণধর্ষণের পর হত্যা করে সেফটি ট্যাংকির মধ্যে বাবা ও মেয়ের মরদেহ ফেলে দেয়। পরে ঘরে লুটতরাজ চালিয়ে পালিয়ে যায় তারা। 
উল্লেখ্য, এক্সিম ব্যাংক কর্মকর্তা পারভীন সুলতানাকে গণধর্ষন ও তার পিতা ইলিয়াস চৌধুরীকে হত্যা করা হয়। নগরীর লবণচরা থানাধীন বুড়ো মৌলভীর দরগা এলাকার ৩নং গলির ঢাকাইয়া হাউজ এপি ভিলা নামের বাড়িতে ২০১৫ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর নৃশংস এ খুনের ঘটনা ঘটে।  
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ











পেঁয়াজের বাজার বেসামাল

পেঁয়াজের বাজার বেসামাল

২৪ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:৫৮



ব্রেকিং নিউজ












পেঁয়াজের বাজার বেসামাল

পেঁয়াজের বাজার বেসামাল

২৪ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:৫৮