শার্শায় ছাত্র হত্যাকারী মাদ্রাসা  শিক্ষক হাফিজুর আটক



যশোরের শার্শা উপজেলার কাগজপুকুর-খেদাপাড়া হিফজুল কোরআন এতিমখানা ও মাদ্রাসারছাত্র শাহ পরাণ (১২) হত্যা মামলার প্রধান আসামি মাদ্রাসা শিক্ষক ও মাদ্রাসা সংলগ্ন মসজিদের ইমাম হাফেজ হাফিজুর রহমানকে পুলিশ আটক করেছে। ১০ দিন পর পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে। নাভারণ সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার জুয়েল ইমরান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
গত বুধবার দুপুর ১২টায় শার্শা থানায় এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, রমজান শুরু হওয়ার ৩-৪ দিন পূর্বে রাতে আসামি হাফেজ হাফিজুর রহমান কিশোর শাহ পরাণের সাথে সমকামিতার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। এ আক্রোশের জের ধরে ৩১ মে আসামি শাহ পরাণকে কৌশলে নিজ বাড়ি শার্শা থানার গোগা গ্রামের বাড়িতে নিয়ে যায়। এরপর রাতে শাহ পরাণকে নির্মমভাবে হত্যা করে এবং লাশ আসামির ঘরের খাটের নিচে রেখে পালিয়ে যায়। এ ঘটনার ৩ দিন পর গত ২ জুন সন্ধ্যায় শাহ পরাণের গলিত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এরপর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টায় খুলনা জেলার দিঘলিয়া উপজেলার আরাবিয়া কওমি মাদ্রাসা থেকে হাফেজ হাফিজুর রহমানকে আটক করে পুলিশ।
 


footer logo

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।