খুলনা | সোমবার | ১৭ জুন ২০১৯ | ৩ আষাঢ় ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

৫২ কোটি টাকা পেয়েছে জেলা প্রশাসন

অবশেষে বিভাগীয় শিশু হাসপাতালের জমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া শুরু জুলাইয়ে

বশির হোসেন | প্রকাশিত ১২ জুন, ২০১৯ ০১:০০:০০

অবশেষে বিভাগীয় শিশু হাসপাতালের জমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া শুরু জুলাইয়ে

অবশেষে খুলনা বিভাগীয় সরকারি শিশু হাসপাতাল নির্মাণে জমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে জুলাইতে। গতকাল মঙ্গলবার অধিগ্রহণের জন্য ৫২ কোটি টাকা পেয়েছে জেলা প্রশাসন। ফলে খুলনাবাসীর আকাক্সক্ষা বাস্তবায়নে বিভাগীয় শিশু হাসপাতালটি নির্মাণ প্রক্রিয়া আরও এক ধাপ এগিয়ে গেলো। সেপ্টেম্বর মাসে গণপূর্ত কর্তৃপক্ষ ৪.৮০ একর জমি অধিগ্রহণের জন্য জেলা প্রশাসনের কাছে প্রস্তাব পাঠায়। 
সংশ্নিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২০১১ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খুলনায় একটি বিভাগীয় শিশু হাসপাতাল নির্মাণের প্রতিশ্র“তি দেন। এ প্রতিশ্র“তি অনুযায়ী ২০১২ সালে হাসপাতালটি নির্মাণের জন্য জায়গা খোঁজা শুরু করে গণপূর্ত বিভাগ। তবে জায়গা নির্ধারণ নিয়ে দীর্ঘসূত্রতায় পড়ে গুরুত্বপূর্ণ এ প্রকল্পটি।  প্রথমে খুলনা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় (মন্নুজান স্কুল) ও লোকষ্ট কলোনীর সামনের খালি জায়গায় উদ্যোগ নেয়া হলেও বিভাগীয় সার্কিট নির্মাণে নির্দিষ্ট থাকায় সেটি বাতিল হয়। পরবর্তীতে সোনাডাঙ্গা সিটি বাইপাস সড়ক সংলগ্ন ময়ূরী আবাসিক এলাকা ও খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যবর্তী স্থানের প্রায় পাঁচ একর জমিতে সরকারি শিশু হাসপাতাল নির্মাণের জন্য স্থান নির্ধারণ করে গণপূর্ত বিভাগ। 
সূত্রটি আরও জানায়, খুলনার জেলা প্রশাসনের এল এ শাখা এ জমি অধিগ্রহণের জন্য ইতোমধ্যে প্রস্তাবিত জমির ক্ষতিপূরণ বাবদ সর্বমোট ৫২ কোটি দু’লাখ নির্ধারণ করেছে। যা জেলা প্রশাসকও ইতোমধ্যে অনুমোদন দিয়েছেন। এজন্য উক্ত টাকা নির্ধারিত ১২০ কার্য দিবসের মধ্যে এল এ (সাঃ) ২/২০১৮-১৯ নম্বর কেসের বিপরীতে খুলনা জেলা প্রশাসকের বরাবর ডিডি অথবা চেকের মাধ্যমে পাঠানোর জন্য অনুরোধ জানানো হয়। তবে জমি অধিগ্রহণের নির্ধারিত অর্থ ছাড় দিতে বিলম্ব হওয়ায় শংকা জাগে খুলনার মানুষের বহুল প্রত্যাশিত এই প্রকল্পটি বাস্তবায়নে। এক পর্যায়ে সিভিল সার্জন ডাঃ এস এম আব্দুর রাজ্জাক প্রধানমন্ত্রী প্রতিশ্র“ত এই অতিগুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পটি বাস্তবায়নের জন্য স্বাস্থ্য সচিবের কাছে একাধিক চিঠি দেন। সর্বশেষ জমি অর্থের অভাবে বাতিল হতে পারে এই প্রকল্প বলে তিনি স্বাস্থ্য ও পরিবার মন্ত্রণালয়ে পত্র দেন।
অবশেষে নানান জটিলতার পরে গতকাল মঙ্গলবার জমি অধিগ্রহণের ৫২ কোটি টাকার চেক পেয়েছে জেলা প্রশাসন। আগামী মাসেই টাকা পরিশোধের মাধ্যমে জমি অধিগ্রহণের যাবতীয় কার্যক্রম শুরু করা হবে জানা গেছে।
সিভিল সার্জন ডাঃ এস এম আব্দুর রাজ্জাক সময়ের খবরকে বলেন এ অঞ্চলে একটি বিভাগীয় শিশু হাসপাতালের প্রতিশ্র“তি প্রধানমন্ত্রী নিজে খুলনার মানুষের কাছে দিয়েছেন। জায়গা নির্ধারণ নিয়ে প্রথমে কিছু জটিলতা থাকলে সবার আন্তরিকতায় অবশেষে অর্থছাড় দিয়েছে মন্ত্রণালয়। এজন্য একাধিকবার সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিবের সাথে যোগাযোগ করতে হয়েছে। দ্রুত সার্বিক কাজ শেষ করার মধ্যদিয়ে খুলনায় ২০০ শয্যার এই হাসপাতালটি শিশুদের স্বাস্থ্যসেবায় বিশেষ ভুমিকা রাখবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।।
জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন সময়ের খবরকে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্র“ত প্রকল্প হিসেবে এটিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। আজ (গতকাল) অর্থ পেয়েছি। আগামী মাসেই জমি অধিগ্রহণের সার্বিক কার্যক্রম সম্পন্ন করার মধ্যদিয়ে দ্রুত নির্মাণ কার্যক্রম শুরু করা হবে। ২শ’ শয্যা বিশিষ্ট শিশু হাসপাতালটিতে বিনামূল্যে সাধারণ মানুষ আধুনিক সেবা পাবে বলেও জানান তিনি।
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ