খুলনা | সোমবার | ১৯ অগাস্ট ২০১৯ | ৩ ভাদ্র ১৪২৬ |

শিরোনাম :
মোংলায় সাংগঠনিক তদন্তে এসে অভিযুক্তের সাথে ভ্রমণ ও ভুরিভোজ কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতারডেঙ্গু আক্রান্ত ৫৩ হাজার, চিকিৎসা শেষে ফিরেছে ৪৫ হাজারবেসরকারি বিশ্ববিদ্যায়ের শিক্ষার্থী শিঞ্জন একদিনের রিমান্ডে অবরুদ্ধ কাশ্মীরে বাড়ছে নিরাপত্তা বাহিনীর নির্যাতন, চলছে বাছবিচারহীন গ্রেফতারখুলনায় প্রাধিকারপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে গাড়ি ও ড্রাইভারের সুবিধা গ্রহণে অনিয়মের অভিযোগ!ফের নগরীর বেসরকারি বিশ্বদ্যিালয়ের বিবিএ’র ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের অভিযোগঈদযাত্রায় সড়কে গেছে ২২৪ প্রাণস্ত্রী পরিচয়ে কুয়াকাটাসহ নগরীর বিভিন্ন আবাসিক হোটেলে ওই ছাত্রীকে রেখেছিলো ‘শিঞ্জন রায়’

Shomoyer Khobor

পাইকগাছা অপহৃত স্কুলছাত্রীর ডাক্তারী পরীক্ষা সম্পন্ন : আটক ১

পাইকগাছা প্রতিনিধি | প্রকাশিত ১২ জুন, ২০১৯ ০০:০০:০০

পাইকগাছা অপহৃত স্কুলছাত্রীর ডাক্তারী পরীক্ষা সম্পন্ন : আটক ১


পাইকগাছায় আইনজীবী সমিতির এক সদস্যের পুত্র অপর আইনজীবীর কন্যাকে অপহরণ করার ঘটনায় কন্যার মা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। তবে বিষয়টি নিয়ে তারা একে অপরকে দোষারোপ করেছেন। ছেলে পক্ষ বলছে তাদের মধ্যে সম্পর্ক ছিল। অপর দিকে মেয়ে পক্ষ বলছে তাদের নাবালিকা কন্যাকে অপহরন করা হয়েছে। এদিকে থানা পুলিশ অপহৃত স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে গতকাল মঙ্গলবার তার ডাক্তারী পরীক্ষা সম্পন্ন করেছে। ঘটনায় জড়িত একজনকে পুলিশ আটক করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে। 
মামলা সূত্রে জানা গেছে, পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের বাতিখালী গ্রামের বাসিন্দা পাইকগাছা আইনজীবী সমিতির সদস্য আব্দুল মালেক গাজীর নবম শ্রেণী পড়–য়া কন্যা গত শুক্রবার তালার হরিহরনগর নানাবাড়ী বেড়াতে যায়। সেখান থেকে গত শনিবার বিকেলে বাড়ি ফেরার পথে উপজেলার গদাইপুর ইউনিয়নের বোয়ালিয়া ব্রীজ সংলগ্ন এলাকায় পৌঁছালে লক্ষ্মীখোলা গ্রামের বাসিন্দা পাইকগাছা আইনজীবী সমিতির সদস্য মুজিবর রহমানের ছেলে সাবিদুর রহমান বাবু ও তার লোকজন কিশোরীকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় অপহৃত স্কুলছাত্রীর মা রোজিনা খাতুন বাদী হয়ে সাবিদুর রহমানসহ ৪ জনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন।  এদিকে, থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে গত সোমবার ভোরে খুলনা থেকে ভিকটিম স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার ও আসামি সাবিদুরকে আটক করে। এ ব্যাপারে ওসি মোঃ এমদাদুল হক শেখ জানিয়েছেন, গত সোমবার তাদেরকে খুলনা থেকে উদ্ধার করা হয়। গতকাল মঙ্গলবার ভিকটিমের ডাক্তারী পরীক্ষা শেষে আদালতে জবানবন্দী সম্পন্ন হয়েছে। এদিকে এড. মুজিবর রহমান জানিয়েছেন, তার ছেলের সাথে মেয়েটির সর্ম্পকের জেরে তারা দু’জনে চলে যায়। এটাকে পুঁজি করে অপহরনের মামলা করা হয়েছে । 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ