খুলনা | বৃহস্পতিবার | ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

মানব সত্তার জাগরণ ঘটুক ঈদ হোক উপভোগী সর্বস্তরের জন্য

নাসির আহমেদ | প্রকাশিত ০৪ জুন, ২০১৯ ০০:১০:০০

মানব সত্তার জাগরণ ঘটুক ঈদ হোক উপভোগী সর্বস্তরের জন্য

মানুষের মধ্যে দু’টি সত্তা। জীবসত্তা আর মানবসত্তা। জীবসত্তার কাজ প্রাণধারণ আত্মরক্ষা ও বংশরক্ষা। এখানে মানুষ বৈশিষ্ঠ্যহীন। প্রাণি জগতেরই একজন অপরাপর প্রাণিদের মতো ক্ষুৎপিপাসায় কাতর হয়ে ছুটাছুটি করা তার কাজ। কি করে বাঁচা যায় এবং সন্তান সন্ততিদের বাঁচিয়ে রাখা যায়, সেই চিন্তায় সে অস্থির। এরপরেও মানুষ অপরাপর প্রাণি থেকে আলাদা, আত্মরক্ষা কি বংশরক্ষা নয়। মুক্তির আনন্দ উপভোগই এখানে বড় হয়ে উঠে উপরোক্ত কথাগুলো এই জন্য বলা; সমস্ত রমজানের তিনটি দশক। রহমত ও মাগফিরাতের দশকের পর শুরু নাজাতের দশক। রমজানের এই শেষ দশক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই দশকে অসংখ্য পাপী-তাপীকে জাহান্নাম হতে আল্লাহ তায়ালা মুক্তি দেন। রাসূলে করীম (সাঃ) ইতেকাফ করেছেন এই দশকে। শেষের এই দশ কি নয় (চাঁদ দেখার ওপর নির্ভর করে) দিনের ভিতরে হাজার মাসের চেয়ে শ্রেষ্ঠ ও সহস্র সৌভাগ্যের কদরের রাত্রি হওয়ার অধিক সম্ভাবনা। এতো গেল পরকালের বিষয় আসল গুরুত্ব হলো সিয়াম বা রোজা আমাদের প্রতি বছর কি শিক্ষা দিয়ে যায়। এই সংযম শুধু দেহের নয় আত্মাশুদ্ধির জাগরণ ঘটায়। এই মাসের মূল ট্রেনিং ভোগের মত্ততায় স্থল অন্যদিকে, দেবার তৃপ্তিতে পবিত্র হতে হবে। আর সে পবিত্র হবার প্রথম এবং শেষ একটিই উপায়, হালাল রুজি। অথচ প্রিয় পাঠক লক্ষ করুন-খাবার নিয়ে ইদানিং এক শুঙ্কার মধ্যে দিনপাত চলছে আমাদের। আমরা প্রতিনিয়ত যা খাচ্ছি তার যথার্থ খাদ্যগুণ আছে কিনা সেই ভাবনায় আমাদের এই শঙ্কা। অন্ধ বিশ্বাসে বাজারের নিত্য খাদ্য পণ্য আমরা সংগ্রহ ও আহার করছি নিয়মিত। সম্প্রতি সময়ের ভেজাল বিরোধী অভিযান, হাইকোর্টের নির্দেশনা প্রভৃতি আমাদের শুঙ্কিত জীবনের বিশেষ করে নিরাপদ খাদ্য পণ্যের বিষয়ে নানা কৌতূহল ও জিজ্ঞাসা কে আরো বেশি গভীর করে তুলেছে।
যে কাউকেই যদি জিজ্ঞেস করা হয় বাংলাদেশে চলমান সময়ের প্রধানতম তথা জলন্ত সমস্যা কী? তবে ৭০ থেকে ৮০ শতাংশের জবাব হলে ভেজাল খাদ্যপণ্য। বর্তমানে যে কোন গণমাধ্যমেও অন্যতম ইস্যু হিসেবে এই সমস্যা চিহ্নিত স্থান করে নিয়েছে। ভেবে দেখুন, খাবার-দাবারের সঙ্গে চিরকাল আমরা বিষ মিশিয়ে যাচ্ছি। আমাদের চারিদিকে শুধু বিষ আর বিষ। পানিতে আর্সেনিক বিষ। বাতাসে কার্বন মনো অক্সাইড, লেড সালফার-বিষ। মাছে মাকারি (পারদ) ভয়াবহ বিষ। মুড়িতে ইউরিয়া-বিষ। শাক-সবজিতে কীটনাশক-বিষ। ফল-ফলাদীতে ফরমালিন-বিষ। সর্বপরি ডাক্তারের শরনাপন্ন হয়ে যে ওষুধ সেবন করছি ওখানে নকল মেয়াদ উত্তীর্ণের কারনে বিষ। কাজেই, ভেজাল খাদ্য অভিযান চলছে-কথা আর কাজের নির্দেশনা চলবে, জানিনা। এবার একটু ভিন্নদিক, বহু চ্যানেলের যে-যার যার চ্যানেলের আত্মপ্রচার ঈদুল ফিতরের দশ দিনব্যাপী বিশেষ অনুষ্ঠানমালা, ততসঙ্গে বিজ্ঞাপন বিরতি, বিরক্তিকর পরিস্থিতি। অনুষ্ঠানের মান নিয়ে বলতে গেলে অসুন্তুষ্ঠির রেষানলে পরতে চাইনা। বরং দশর্কের মনের অবস্থা বলছি এভাবে আয়নার সামনে নিজের মুখ দেখেন। তারপর থুতু ছিটান। আয়নার কাছে একদলা থুতু জমে থাকে কিন্তু মনের মধ্যে বিঁধে থাকা কাঁটা অপসারিত হয় না। প্রতি বছর আসন্ন ঈদকে ঘিরে এবং ঈদকে সামনে রেখে মহাসড়কে চাঁদাবাজি রোধে কঠোর নির্দেশনা দেওয়া হয় হেডকোয়ার্টার থেকে। সড়ক ও মহাসড়কে চাঁদাবাজি বন্ধে ‘জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরনের জন্য কঠোর ভাবে বলা হয়। বাস ভাড়ার পূর্বে চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্স অন্যান্য কাগজপত্র ও ফিটনেস পরীক্ষা করার কথা এবারেও বলা হয়েছে। চালকেরা যাতে বাসের ছাদে যাত্রী পরিবহন করতে না পারে সেদিকে খেয়াল রাখতে বলা হয়েছে। রেলপথে নাশকতা রোধে নিরাপত্তা নিশ্চিত করারও দেওয়া আছে। মার্কেট ও শপিংমলে ভোররাত পর্যন্ত পোশাকে ও সাদা পোশাকে বিশেষ নিরাপত্তার নির্দেশ দিয়েছেন, পুলিশ প্রধান। মাদক, জাল টাকা অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার। মানবপাচার রোধে অভিযান পরিচালনা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান। অন্যদিকে, ঈদের পূর্বে পাঠকল শ্রমিকদের আন্দোলন অনেকটা প্রশমিত। কিন্তু কৃষকের অবস্থা বড্ড নাজেহাল। ঈদ তাদের কাছে নিত্যদিন বরং ভাবতেই কষ্টের অশ্র“জল।
এবার নাকি ঈদের ছুটিতে বিদেশ যাচ্ছেন ৬ লাখ বাংলাদেশি (ট্রাভেল এজেন্সি সূত্রে জানা গেছে) সূত্র আরো জানায়। প্রতি বছর ২৫ লাখ লোক দেশের বাহিরে গেলেও বিদেশ থেকে আসে ১ লাখ। দেশের এই সকল খাত অর্থনৈতিক সমৃদ্ধ হোক, সকলে চাই। পাশাপাশি সমম্বয়টাই যথাযথ হওয়া উচিত। কৃষক শ্রমিক সর্বস্তরের জনতা ঈদের খুশি উপভোগ করতে পারে তার নিশ্চিত করতে সরকারকে। কিছু কল্যাণমুখী পদক্ষেপ নিতে হবে। এই সময় কত স্বেচ্ছাসেবক সংগঠন এগিয়ে আসে সাধারণ মানুষের মুখে এতটুকু হাসি ফুটিয়ে তুলতে। এই সকল সংগঠনকে সহায়তা ও উপযুক্ত প্রশিক্ষনের আওতায় এনে নিরিবিচ্ছিন্ন ভাবে মানব কল্যাণের কাজে লাগাতে হবে।
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ


কুরবানীর ইতিহাস ও বিধান

কুরবানীর ইতিহাস ও বিধান

১১ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:৩৯

ঈদুল আযহা : তাৎপর্য

ঈদুল আযহা : তাৎপর্য

১১ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:১৯







জবাইয়ে যে ভুল করলে কুরবানী হয় না

জবাইয়ে যে ভুল করলে কুরবানী হয় না

১১ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:১৬

গরুর মাংসের সাদা ভুনা

গরুর মাংসের সাদা ভুনা

১১ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:১৪

পোলাওয়ের সাথে মাটন কোফতা কারি

পোলাওয়ের সাথে মাটন কোফতা কারি

১১ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:০৯


ব্রেকিং নিউজ







উৎসব মুখর পরিবেশে আ’লীগের সম্মেলন

উৎসব মুখর পরিবেশে আ’লীগের সম্মেলন

১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:২৮




কুষ্টিয়া মুক্ত দিবস আজ

কুষ্টিয়া মুক্ত দিবস আজ

১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:২২