খুলনা | বৃহস্পতিবার | ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

ঈদুল ফিতর সামাজিক সখ্যতার ভিত্তি দৃঢ় করে

মাওলা বকস | প্রকাশিত ০৪ জুন, ২০১৯ ০০:১০:০০

ঈদুল ফিতর সামাজিক সখ্যতার ভিত্তি দৃঢ় করে

ঈদুল ফিতর ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের দু’টো সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসবের একটি। হিজরি বর্ষপঞ্জি অনুসারে রমজানেরস শেষে শাওয়ালের ১ তারিখে ঈদুল ফিতর উৎসব পালন করা হয়। এক মাস কঠোর সাধনের পর আসে ঈদ, যা রোজাদারদের জন্য আল্লাহর পক্ষ থেকে অনন্য উপহার। অন্য দিকে, ঈদ-এর আভিধানিক অর্থ ফিরে আসা, অর্থাৎ রমজান মাসের বিশেষ নিয়ম-কানুন পালন থেকে ‘স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় ফিরে আসা’। মূলত এ উৎসবের তাৎপর্য হলো আত্মশুদ্ধি ও আত্মোৎর্সগে কঠোর ত্যাগ ও সাধনার প্রেক্ষাপটে আনন্দঘন সম্মিলন। ঈদুল ফিতর উৎসব পালন করা শুরু হয় ১৩৮০ সৌর বছর আগে, প্রিয় নবী হজরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর মদিনাতে হিজরতের অব্যবহিত পরেই। তখন থেকেই মুসলমানরা এ ঈদ উদ্যাপন করে আসছে। 
ঈদুল ফিতর ইসলামের ধর্মীয় উৎসব বলে প্রধানত মুসলমানদের মধ্যেই এটা সীমিত থাকে। তবে ইসলাম শান্তি ও সম্প্রীতির ধর্ম এবং ঈদের অর্থ আনন্দ বিধায় ঈদ সব মানবের জন্যই কল্যাণ বয়ে আনে। আমেজের দিক থেকে পবিত্র ও স্নিগ্ধ, আচরণের দিক থেকে প্রীতি ও মিলনের উৎসব ঈদুল ফিতর। জাতীয় জীবনে এর রূপময়তা সর্বত্র চোখে পড়ে। ভিন্ন ধর্মের মানুষ ও ঈদের প্রত্যক্ষ-পরোক্ষ সুফল ভোগ করে। ঈদ উৎসবে গতানুগতিক জীবন ধারার সাথে যোগ হয় প্রাণ-প্রাচুর্যে ভরপুর ভিন্নমাত্রিক জীবনধারা।
ঈদের অন্যতম সামাজিক গুরুত্ব হলো, উন্মুক্ত ময়দানে ধনী-দরিদ্র, উঁচু-নিচু এবং সাদা-কালোর সব ভেদাভেদ ভুলে জামাতে শামিল হওয়া। এতে পাড়া-পড়শি থেকে শুরু করে সব পরিচিত-অপরিচিতের সাথে একত্র হওয়ার সুযোগ ঘটে। নামাজ শেষে কোলাকুলির মাধ্যমে সবাই সব ভেদাভেদ ও মনোমালিন্য ভুলতে চেষ্টা করে। ঈদের দিনে সবাই সাধ্যমতো নতুন পোশাক পরিধান করে থাকে। পুরনো বিবাদ-বিসংবাদ, দুঃখ-কষ্ট থেকে নতুন জীবনবোধ ও সম্পর্ক স্থাপনের প্রতীকি প্রকাশ ঘটে এর মধ্যে। একে অন্যের বাড়িতে দাওয়াত গ্রহণ ও যাতায়াতের মাধ্যমে সামাজিক সখ্যের ভিত্তি দৃঢ় হয়।
পৃথিবীর সব ধর্ম ও সমাজে নিজ নিজ সংস্কৃতি ও অবকাঠামোর অবয়বে উদ্যাপিত উৎসবাদিতে মানবিক মূল্যবোধের সৃজনশীল প্রেরণা, সখ্য-সৌহার্দ্য প্রকাশের অভিষেক ঘটে থাকে। নানা উপায় এবং উপলক্ষে সম্প্রীতি বোধের বিকাশ লাভ ঘটে, মনোমালিন্যের পরিবর্তে বন্ধন, মত পার্থক্যের অবসানে সমঝোতার পরিবেশ সৃজিত হয়। সব আয়োজন আপ্যায়নের মর্মবাণীই হলো সৃষ্টিকর্তার ইবাদত তার সৃষ্টির সেবা ও সন্তুষ্টি বিধান। সংহার নয়, সেবাই পরম ধর্ম। সব অশান্তি কলহ-বিবাদে। শান্তির সম্ভাবনা শুধু সহযোগিতা-সমঝোতাতেই।
পবিত্র রমজান মাসে রোজা পালনের পুরস্কার হিসেবে আল্লাহ মহান ঈদের আনন্দ প্রদান করেছেন। ধনী শ্রেণীর মানুষের সাথে সাথে গরিবরাও যাতে ঈদের আনন্দ উপভোগ করতে পারে, এ জন্য সাদকাতুল ফিতর দেয়া ওয়াজিব করা হয়েছে। ফিতরার মাধ্যমে মুসলিম সমাজে বসবাসকারী ধনীদের অর্থ গরিবদের মধ্যে বণ্টিত হয় এবং এ দ্বারা গরিবদের জীবন যাপনে কিছুটা হলেও গতি ফিরে আসে। এর মাধ্যমে জনসাধারণের মধ্যে বৈষম্য কিছুটা হলেও হ্রাস পায় এবং সহযোগিতার মানসিকতার বিস্তার ঘটে। একে অন্যের সাথে সামাজিক সম্পর্কের উন্নয়ন হয়।
ঐতিহ্যগতভাবে ঈদের ছুটিতে মানুষ শহর থেকে গ্রামে এবং গ্রাম থেকে শহরে ছুটে যায়। তারা পরিবার-পরিজন, বন্ধু-বান্ধবের সাথে মিলে উৎসবের আনন্দ উপভোগ করে।
ঈদের প্রকৃত তাৎপর্য থেকে মানুষ সরে যাচ্ছে। কলহ-বিবাদ, হিংসা-বিদ্বেষের ফলে সমাজ যাচ্ছে তলিয়ে। মহান আল্লাহ ঘোষণা করেছেন, ‘অপব্যয়কারীরা শয়তানের ভাই’। ঈদের বাজারের দিকে তাকিয়ে দেখলে বোঝা যায়, সবাই কেমন মরিয়া হয়ে প্রতিযোগিতায় লিপ্ত। অধিক মূল্যবান পোশাক-আশাকে সুসজ্জিত হয়ে সবার দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করা হয়। বাড়তি চাহিদা থাকায় অধিক মুনাফার আশায় ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন রকম প্রতারণার আশ্রয় নেন। আল্লাহ রাব্বুল আলামিন উম্মতে মোহাম্মদিকে সম্মানিত করে তাদের যে ঈদ দান করেছেন, তা বিশ্বে যত উৎসবের দিন ও শ্রেষ্ঠ দিন রয়েছে তার সব চেয়ে শ্রেষ্ঠ দিন ও সেরা ঈদ। এ দিন দু’টোকে আনন্দ-উৎসবের সাথে সাথে জগতের প্রতিপালকের ইবাদত-বন্দেগি দ্বারা সুসজ্জিত করতে পারলে ঈদের তাৎপর্য আরো বেশি উদ্ভাসিত হবে ইনশা আল্লাহ্।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ


কুরবানীর ইতিহাস ও বিধান

কুরবানীর ইতিহাস ও বিধান

১১ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:৩৯

ঈদুল আযহা : তাৎপর্য

ঈদুল আযহা : তাৎপর্য

১১ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:১৯







জবাইয়ে যে ভুল করলে কুরবানী হয় না

জবাইয়ে যে ভুল করলে কুরবানী হয় না

১১ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:১৬

গরুর মাংসের সাদা ভুনা

গরুর মাংসের সাদা ভুনা

১১ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:১৪

পোলাওয়ের সাথে মাটন কোফতা কারি

পোলাওয়ের সাথে মাটন কোফতা কারি

১১ অগাস্ট, ২০১৯ ০০:০৯


ব্রেকিং নিউজ







উৎসব মুখর পরিবেশে আ’লীগের সম্মেলন

উৎসব মুখর পরিবেশে আ’লীগের সম্মেলন

১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:২৮




কুষ্টিয়া মুক্ত দিবস আজ

কুষ্টিয়া মুক্ত দিবস আজ

১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:২২