খুলনা | সোমবার | ১৭ জুন ২০১৯ | ৩ আষাঢ় ১৪২৬ |

ও মন রমজানের ওই রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ 

০৪ জুন, ২০১৯ ০০:১০:০০

ও মন রমজানের ওই রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ 

বছর ঘুরে আবারও এল খুশির ঈদ। আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশের আকাশে শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেলে বুধবার পবিত্র ঈদ উল ফিতর। সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা। ঈদ মোবারক।
এক মাস সিয়াম সাধনার পর এই খুশির ঈদ-উল-ফিতর উদ্যাপনের জন্য প্রস্তুত বাংলাদেশসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশের মুসলমানরা। বুধবার ঈদ হচ্ছে এমনটি এক প্রকার নিশ্চিত  থাকলেও রোজা ৩০টি হলে এদিন ইফতার করে অগণিত মানুষের দৃষ্টি আকাশে খুঁজবে এক ফালি বাঁকা চাঁদ। এতে এক দিন পিছিয়ে যাবে ঈদ-এর আয়োজন। দেশবাসী মেতে উঠবে ঈদের আনন্দে। এদিকে ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষে সরকারি ঘোষণার পাশাপাশি টিভি-বেতারে বাজতে শুরু করেছে জাতীয় কবি কাজী নজরুলের কালজয়ী সেই গানের সুর ও মন রমজানের ঐ রোজার শেষে এল খুশির ঈদ।’ পাশাপাশি পাড়া-মহল্লার মসজিদ থেকে ভেসে আসবে ‘ঈদ মোবারক’ ধ্বনি।
সাম্য-মৈত্রী-শান্তি আর মুসলিম উম্মাহর ঐক্যের সওগাত নিয়ে প্রতি বছর আমাদের মাঝে উপস্থিত হয় ঈদু-উল-ফিতর। এদিন হিংসা-বিদ্বেষ ভুলে যায় মানুষ। তাদের ভেতর কোনো আমিত্ব থাকে না। ঈদুল ফিতর একই সঙ্গে উৎসব ও ইবাদতের আধ্যাত্মিক স্বাদ দিয়ে যায় প্রতিটি মুমিনের মনে। ধর্মীয় মূল্যবোধে পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থাপনা শৃঙ্খলিত করে। ঈদের আনন্দ-চেতনার ছোঁয়া মানবিকতা জাগ্রত করে। চাঁদ দেখার পর শুরু হয় উৎসব। শিশু-তরুণ-বৃদ্ধ সবাই প্রস্তুতি নেয় ঈদগাহে গিয়ে নামাজ আদায়ে। কিশোরী-তরুণীরা শুরু করে মেহেদীতে হাত রাঙাতে। মুসলিম সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় এই আনন্দ-উৎসব সামাজিক সম্প্রীতি আর সাম্যচেতনায় ভাস্বর। ধনী-গরীব নির্বিশেষে সবাই ঈদের আনন্দে শামিল হবে-এটাই এই উৎসবের মূল মর্মবাণী। মাস জুড়ে রোজা পালনের মাধ্যমে সংযম আর ত্যাগের শিক্ষা অর্জন এই আনন্দের জন্য প্রস্তুত করেছে প্রতিটি মুসলমানকে। ধনী-গরীব সবাই সাধ্যমতো চেষ্টা করছে স্বজন-পরিজন নিয়ে দিনটি উদ্যাপনের। ঈদের কেনাকাটা সেরে তাই সবাই ছুটেছে মাটি ও নাড়ির টানে শহর ছেড়ে গ্রামে। স্বজন-পরিজন, বন্ধু-বান্ধবের সঙ্গে মিলনের বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস দেখা যাচ্ছে পথে পথে। 
ঈদ শুধু নিছক আনন্দ আর ফূর্তির নয় এ থেকে আমাদের জীবনের জন্য শিক্ষণীয় আছে অনেক কিছুই। ঈদু-উল-ফিতর মুসলমানদের ধর্মীয় ও জাতীয় জীবনের শ্রেষ্ঠতম আনন্দ উৎসব হিসেবে প্রতিষ্ঠিত। পবিত্র রমজানের রহমত, মাগফিরাত ও নাজাতের শেষেই আসে খুশির ঈদ। পশ্চিমাকাশে উদিত শাওয়ালের রূপালি চাঁদ আনন্দের বারতায় উদ্বেলিত করে আমাদের মন ও প্রাণ। রোজাদারের মনে এর চেয়ে খুশি ওই মুহূর্তে আর কিছুই থাকে না। শাওয়ালের চাঁদ উদিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই প্রতিটি মুমিন মুসলমানের ঘরে আনন্দের ঢল নামে। নবী করিম (সাঃ) বলেছেন, ‘প্রত্যেক জাতিরই আনন্দ রয়েছে। আমাদের আনন্দ হলো ঈদ।’
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ