খুলনা | মঙ্গলবার | ১৮ জুন ২০১৯ | ৪ আষাঢ় ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

নতুন সংযোগ চালু হলে এ সমস্যা আর থাকবে না : কর্তৃপক্ষ 

নগরীর বাসা-বাড়িতে ওয়াসার সরবরাহকৃত সংযোগে দুর্গন্ধযুক্ত ময়লা পানি!

নিজস্ব প্রতিবেদক   | প্রকাশিত ২৩ মে, ২০১৯ ০০:৫৭:০০

মাঝে মাঝে নগরীর বিভিন্ন এলাকার বাসা-বাড়িতে খুলনা ওয়াসার সংযোগ লাইনে দুর্গন্ধযুক্ত ময়লা পানি আসছে এমন অভিযোগ গ্রাহকের। অপর দিকে, গ্রীষ্ম মৌসুমে পানির স্তর নিচে নেমে যাওয়ায় অনেক সেন্টিফিউগালে পানি উঠানো সম্ভব হচ্ছে না। ফলে নগরবাসীর ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।
জানা গেছে, মহানগরীতে বসবাস করে প্রায় ১৬ লাখ মানুষ। এ বিপুল জনগোষ্ঠীর পানির জন্য একমাত্র ভূ-গর্ভস্থ গভীর নলকূপ ও ওয়াসার সাপ্লাই পানির ওপর নির্ভর করতে হয়। কিন্তু গরম মৌসুমের শুরুতেই গোয়ালখালি বিজিবি এলাকা, খালিশপুর, নুর নগর, শেখপাড়া বাজার এলাকা, সদর হাসপাতাল, খুলনা জিলা স্কুল, পিটিআই মোড় উৎপাদক নলকূপ চালুর পর পানির স্তর অনেক নিচেই নেমে যাচ্ছে। ফলে নগরীতে হাতচাপ টিউবওয়েল ও বাসা-বাড়িতে স্থাপিত সেন্টিফিউগাল পাম্পে চাহিদামতো পানি পাওয়া যাচ্ছে না। অন্যদিকে, নগরীর বিভিন্ন এলাকায় বাসা-বাড়িতে খুলনা ওয়াসার সরবরাহকৃত পানির সাথে ময়লা আসছে এবং সেই পানি প্রচন্ড দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। বিশেষ করে নগরীর মিয়াপাড়া, মৌলভীপাড়া, টুটপাড়া, বসুপাড়া, বানিয়াখামার ও শেখপাড়া এলাকায় সরবরাহকৃত পানিতে এ ধরনের সমস্যা প্রায় দেখা যাচ্ছে। ফলে ওই পানি ব্যবহারে গ্রাহকদের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। 
ভুক্তভোগীরা জানান, এমনিতে গ্রীষ্ম মৌসুমে টিউবওয়েলে পানি পাচ্ছে না নগরীর বাসিন্দারা। তাই পানির চাহিদা মেটাতে অধিকাংশ পরিবারকে হিমশিম খেতে হচ্ছে। এরপর সরবরাহকৃত পানিতে প্রায় পচা গন্ধ ও অবিরাম ময়লা আসছে। ফলে দৈনন্দিন কাজ সারতে ভোগান্তি হচ্ছে।
খুলনা ওয়াসার উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক কামাল উদ্দিন আহমেদ বলেন, নানা কারণে ভূগর্ভস্থ পানির স্তর নিচে নেমে যাচ্ছে। বিশেষ করে শুষ্ক মৌসুমে প্রয়োজনের তুলনায় কম বৃষ্টিপাত, নদীর নাব্যতা হ্রাস ও ভূগর্ভস্থ পানি উত্তোলনের তুলনায় তা’ স্তরে জমা না হওয়া। ফলে ওয়াসার বিভিন্ন উৎপাদক নলকূপ সমূহ চালু সাথে সাথে পানির স্তর নিচে নেমে যাচ্ছে। ফলে এর প্রভাব পড়ছে বাসা-বাড়ির সেন্টিফিউগাল ও হাতচাপ টিউবওয়েলের উপর। যার কারনে মানুষ প্রয়োজনের তুলনায় কম পানি পাচ্ছে।
পানির সাথে আসা ময়লা ও প্রচন্ড দুর্গন্ধের ব্যাপারে তিনি বলেন, খুলনা সিটি কর্পোরেশন প্রতিনিয়ত স্কেভেটর দিয়ে ড্রেন পরিষ্কার করছে। অনেক সময় স্কেভেটরের আঘাতে পাইপ ফেটে যাচ্ছে। কিন্তু কোন এলাকা থেকে এ ধরনের খবর পাওয়া গেলে শ্রমিক দিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত পাইপ মেরামত করা হচ্ছে। তবে এ সমস্যা বেশিদিন থাকবে না। কারণ এখন থেকে নতুন সংযোগ পানি দেয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যে অনেক নতুন সংযোগ চালু করা হয়েছে। নতুন সংযোগের পাইপ ড্রেনে নেই। তাই সব সংযোগ চালু হলে তখন এ ধরনের অভিযোগ আর থাকবে না।
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ