খুলনা | মঙ্গলবার | ১৮ জুন ২০১৯ | ৪ আষাঢ় ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

চাল আমদানি নিরুৎসাহিত  করতে বাড়ানো হলো শুল্ক  

খবর প্রতিবেদন | প্রকাশিত ২৩ মে, ২০১৯ ০০:৪৯:০০

চাল আমদানি নিরুৎসাহিত করতে শুল্ক-কর বৃদ্ধি করা হয়েছে। নিয়ন্ত্রণমূলক শুল্ক ৩ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ২৫ শতাংশ করা হয়েছে। আর চাল আমদানি পর্যায়ে ৫ শতাংশ অগ্রিম করও আরোপ করা হয়েছে। তবে আমদানি শুল্ক ২৫ শতাংশ বহাল রাখা হয়েছে।
বুধবার জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) এই সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। চাল আমদানির ক্ষেত্রে পাঁচ শতাংশ অগ্রিম করও (এ্যাডভান্স ইনকাম ট্যাক্স) আরোপ করা হয়েছে। আমদানি শুল্ক ২৫ শতাংশ বহাল রাখা হয়েছে। নতুন শুল্ক-কর আরোপের ফলে চাল আমদানির ক্ষেত্রে মোট কর ৫৫ শতাংশে উন্নীত হলো।
দেশে বোরো আবাদে বাম্পার ফলন হয়েছে বলে বিদেশ থেকে চাল আমদানির ক্ষেত্রে আমদানিকারকদের নিরুৎসাহিত করতে এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে এনবিআর থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।
এ দিকে এনবিআরের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সংস্থাটির চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বলেছেন, চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরের দশ মাসে প্রায় ৩ লাখ ৩ হাজার টন চাল আমদানি করা হয়েছে। এতে দেশীয় কৃষকেরা উৎপাদন খরচের কম মূল্যে চাল বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন। ফলে প্রান্তিক কৃষকেরা আর্থিকভাবে বিপুল ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন। কৃষকদের এই ক্ষতি থেকে রক্ষা করতে প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন অনুযায়ী চাল আমদানি পর্যায়ে শুল্ক-কর বৃদ্ধি করা হয়েছে।
সম্প্রতি কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, ‘এবার ধান উৎপাদনে রেকর্ড সৃষ্টি হয়েছে। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১৩ লাখ টন ধান বেশি উৎপাদন হয়েছে।’ সরকার কৃষকদের ধানের ন্যায্য দাম নিশ্চিত করতে সীমিত আকারে বিদেশে চাল রপ্তানির চিন্তা করছে বলে জানান কৃষিমন্ত্রী।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ