খুলনা | মঙ্গলবার | ১৮ জুন ২০১৯ | ৪ আষাঢ় ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

সংবাদ সম্মেলনের অভিযোগ

মোংলার রাব্বি ক্লিনিকে সিজারে প্রসূতির জীবন বিপন্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক   | প্রকাশিত ২১ মে, ২০১৯ ০০:৫৭:০০

মোংলার রাব্বি ক্লিনিকে সিজারে প্রসূতির জীবন বিপন্ন


বাগেরহাটে মোংলা পৌরসভার রাব্বি ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে সিজারের পর জীবন বিপন্নের মুখে পড়েছেন গৃহবধূ সালমা বেগম। আর এজন্য ভুয়া ডাক্তার এনামুলের ত্র“টিপূর্ণ সিজার দায়ী বলে অভিযোগ করেছেন তার স্বামী মোংলা পৌরসভার মোর্শেদ সড়ক বাসিন্দা মোঃ রাজু। গতকাল সোমবার দুপুরে খুলনা প্রেসক্লাবে লিখিত বক্তব্যে এসব অভিযোগ তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী, স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও সংশ্লিষ্টদের কাছে এই অবিলম্বে মৃত্যুকূপ খ্যাত ক্লিনিকটি বন্ধ ও ভুয়া ডাক্তার এনামুল কবীরের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান তিনি।
তিনি বলেন, গত বছরের ১৩ ফেব্র“য়ারি সকালে বাগেরহাটের মোংলা পৌরসভার মাদ্রাসা রোডের (মুক্ত ভবন) রাব্বি ক্লিনিক এ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়ে তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী সালমা বেগমকে। ওই দিবাগত রাতে সিজার করলে একটি কন্যা সন্তান ভূমিষ্ঠ হয়। মাত্র ক’দিন পর ১৯ ফেব্র“য়ারি থেকে সিজারস্থলের ভিতরে প্রচন্ড ব্যথা শুরু হয়। পুনরায় ওই ক্লিনিকে গিয়ে টাকা দিয়ে ডাক্তার দেখালেও ব্যথা বাড়তে থাকে। ব্যথার সাথে সাথে প্রসাবের সাথে বের হতে থাকে পায়খানার ময়লা। দীর্ঘদিন চিকিৎসা করিয়ে নিঃস্ব হয়েছেন তিনি। আল্ট্রাসনো করালে প্লেটে দিয়েছে ২০১৭ সালের ১১ মে আর রিপোর্টে দিয়েছে ২০১৮ সালের ১১ মে’র তারিখ। একপর্যায়ে খুলনা শহরে এনে ডাক্তার দেখিয়ে তিনি জানতে পারেন-সিজারে ব্যবহৃত যন্ত্রাংশ বিশেষ পেটের মধ্যে থেকে গেছে এবং পায়খানা ও প্রসাবের নালী ছিদ্র করে ফেলছে। বর্তমানে শহরের ডক্টরস্ পয়েন্টের ৪০৬নং কেবিনে চিকিৎসাধীন তার স্ত্রী। হতদরিদ্র মানুষদের জিম্মি করে চিকিৎসার নামে সর্বস্ব লুটে নেয়া ভুয়া ডাক্তার এনামুল কবীরকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবি জানান এ দিনমজুর।
তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন রাব্বি ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক মোঃ এনামুল কবীর। তিনি বলেন, “আমি তো ক্লিনিকের মালিক, অপারেশন তো করে ডাক্তাররা। আর ওই রোগীর অপারেশন করেছিলেন খুলনার আরবান ক্লিনিকে ডাঃ জাহিদ হাসান। তাতে তো সমস্যা হবার কথা নয়।”


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ