খুলনা | সোমবার | ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৮ আশ্বিন ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

খুমেক হাসপাতালের প্রথম পরিচালক  হিসেবে যোগদান করলেন ডাঃ মোর্শেদ

নিজস্ব প্রতিবেদক | প্রকাশিত ২১ মে, ২০১৯ ০০:৫৮:০০

খুমেক হাসপাতালের প্রথম পরিচালক  হিসেবে যোগদান করলেন ডাঃ মোর্শেদ


খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রথম পরিচালক হিসাবে যোগদান করলেন ডাঃ এটিএম মোর্শেদ। এর আগে তিনি একই হাসপাতালে তত্ত্বাবধায়কের দায়িত্ব পালন করেন। এ উপলক্ষে গতকাল হাসপাতালের চিকিৎসক কর্মকর্তা, নার্স, কর্মচারীরা ফুলের শুভেচ্ছা জানান নতুন এই পরিচালককে। সকালেই হাসপাতালের আরএমও ডাঃ অঞ্জন রায়, আবাসিক সার্জন ডাঃ বিপ্লব বিশ্বাস ও ব্ল¬াড ব্যাংক ইনচার্জ ডাঃ এস এম তুষার আলম তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। এরপর মেডিকেল টেকনোলোজিস্ট খুলনা মেডিকেল কলেজ শাখা ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মোঃ আলতাপ হোসেন, প্রদীপ সাহা, শহীদুল ইসলামসহ অন্যান্য মেডিকেল টেকনোলজিস্টরা। এরপরই শুভেচ্ছা জানান সেবা তত্ত্বাবধায়ক আসমাতুন্নেছা, নার্স নেত্রী জেসমিন খানম ও জেবুন্নেছাসহ অন্যান্য নার্সরা। এরপর ডক্টর লাউঞ্জ খুলনা মেডিকেল কলেজ শাখার চিকিৎসকরা একত্রে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ডক্টর লাউঞ্জের সভাপতি ডাঃ সুমন রায়, সধারণ সম্পাদক ডাঃ জিল¬ুর রহমান তরুন, পিজিটিডিএ সভাপতি ডাঃ ইউনুচ উজ জামান খান তারিম, সাধারণ সম্পাদক ডাঃ অনল রায়সহ অন্যান্য চিকিৎসকবৃন্দ।
২০১৭ সালের ২৮ জুন থেকে হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক হিসেবে ডাঃ এটি এম মঞ্জুর মোর্শেদ দায়িত্ব গ্রহণ করেন। এর পর থেকেই হাসপাতালের সার্বিক উন্নয়নে ব্যাপক সংস্কার আনেন তিনি। উল্লে¬খযোগ্যগুলো হচ্ছে হাসপাতালে নিয়মিত অক্সিজেন সরবরাহ নিশ্চিত, রোগীদের খাবারের মান বৃদ্ধি, লাশঘর স্থানান্তর করা, দালাল প্রতারক প্রতিরোধ করা, ১টার পূর্বে ওষুধ প্রতিনিধিদের ভিজিট বন্ধ করা, প্যাথলজি বিভাগে স্যাম্পল কালেকশন সময় বৃদ্ধি করা, ব¬াড ব্যাংকের পাশে নতুন করে কক্ষ নির্মাণ, অনুমোদিত ৫শ’ শয্যার রোগীর পরিবর্তে চলতি বছরের ২৫ জানুয়ারি থেকে ভর্তিকৃত সকল রোগীদের খাবার ব্যবস্থা করা, ওয়ার্ড ইনচার্জদের দায়িত্ব পরিবর্তন করে নতুনদের দায়িত্বে অর্পণ করা, জখমী সনদপত্র প্রদানের জন্য বোর্ড গঠনপূর্বক কেবলমাত্র থানা ও আদালত থেকে চাহিদার প্রেক্ষিতে স্বচ্ছতার সাথে জখমী সনদপত্র প্রদানের ব্যবস্থা করা ইত্যাদি।
এ ব্যাপারে হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ এটি এম মঞ্জুর মোর্শেদ বলেন, সাধারণ রোগীরাই বলবে বর্তমানে হাসপাতালের সেবার মান আগে চেয়ে বেড়েছে কি না। তিনি বলেন, আগে সকল ভর্তি রোগীরা খাবার পেতো না। এখন হাসপাতালে রোগী ভর্তি হলেই তাদের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। হাসপাতালের প্রত্যেকটি সেক্টরে সমস্যা উদ্ঘাটন করে সমাধান করা হয়েছে। সাধারণ মানুষের সেবা নিশ্চিত করা হয়েছে। তিনি বলেন, পরিচালক হিসাবে যোগদানের পর সবার সহযোগিতা চেয়ে তিনি বলেন হাসপাতালটিকে বাংলাদেশের এক নম্বর হাসপাতালে রূপান্তর করা হবে ইনশাল্ল¬াহ।
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ











কয়রায় সাবেক ইউপি মেম্বরকে কুপিয়ে জখম

কয়রায় সাবেক ইউপি মেম্বরকে কুপিয়ে জখম

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:৪৬



ব্রেকিং নিউজ











কয়রায় সাবেক ইউপি মেম্বরকে কুপিয়ে জখম

কয়রায় সাবেক ইউপি মেম্বরকে কুপিয়ে জখম

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:৪৬