খুলনা | সোমবার | ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৮ আশ্বিন ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

৫২টি পণ্য ধ্বংসে উচ্চ আদালতের আদেশ 

নির্ধারিত সময়ের পরও কিছু পণ্য বাজারে অভিযানে দু’টি প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

বশির হোসেন | প্রকাশিত ২০ মে, ২০১৯ ০১:১০:০০

নির্ধারিত সময়ের পরও কিছু পণ্য বাজারে অভিযানে দু’টি প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

৫২টি খাদ্য পণ্য বাজার থেকে প্রত্যাহারে হাইকোর্টের বেধে দেয়া সময়সীমা শেষ হলেও নিউমার্কেট ও বড় বাজারের কিছু দোকানে এখনও কিছু পণ্য পাওয়া যাচ্ছে। বিশেষ করে এসিআই লবন, মধুমতি লবণ, সান চিপসসহ যে সকল পণ্য বাজারে চাহিদা ছিল এখনও তা বিক্রির চেষ্টা করছেন কিছু অসাধু ব্যবসায়ী। তবে এসব নিয়ে কঠোর অবস্থানে থাকা জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর গতকালও অভিযান চালিয়ে কয়েকটি প্রতিষ্ঠানকে আর্থিক জরিমানা করেছে। ধ্বংস করেছে বাতিল হওয়া এসব পণ্য।
নগরীর নিউমার্কেট ও বড় বাজার ঘুরে দেখা যায়। অত্যন্ত নিম্নমানের হওয়ায় যে ৫২টি খাদ্য পণ্য বাজার থেকে সরিয়ে ফেলতে এবং উৎপাদন বন্ধ করতে হাইকোর্ট নির্দেশ দিয়েছিল, তার কয়েকটি পণ্য গতকালও বাজারে দেখা গেছে। বিশেষ করে চাহিদা রয়েছে এমন পণ্য বিক্রি হচ্ছে দেদারছে। নিউমার্কেট এলাকায় কয়েকটি দোকানে দেখা গেছে এসিআই লবণ, গ্রীনল্যান্ড মধু, মধুমতি লবণ, সান চিপস। বড়বাজারের একাধিক দোকানে সান ব্র্যান্ডের চিপস, তীর ব্র্যান্ডের সরিষার তেল, রূপচান্দার সরিষার তেল, গ্রীনল্যান্ড মধু দেখতে পাওয়া যায়। তবে বেশির ভাগ দোকানেই এসব পণ্য দৃশ্যমান নেই। 
বাজারের ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে জানা যায় যে সকল পণ্য সরকার ও আদালত নিষিদ্ধ করেছে তা সরিয়ে রাখা হয়েছে। কোম্পানির লোক এসে কয়েকটি পণ্য নিয়েও গেছে। এ নিয়ে আর্থিক ক্ষতির সম্ভাবনা দেখছেন তারা। তবে চাহিদা সম্পন্ন পণ্যগুলো অধিক পরিমানে মজুদ ছিল, যা নিয়ে তাদের চিন্তা রয়েছে। 
এদিকে হাইকোর্টের নির্দেশনা মেনে বাজার থেকে এসব পণ্য সরাতে ও নতুন উৎপাদন বন্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। গতকাল নগরীর নিউমার্কেটে এলাকার অভিজাত বিপণী বিতান সেফএনসেভ, এ্যারোমাসহ মুদিপট্টি, ছোট ছোট দোকানগুলোতে অভিযান পরিচালনা করে সংস্থাটি। ক্যাব ও এপিবিএন পুলিশের সহযোগিতায় এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।
গতকাল রবিবার নিউমার্কেট-এর সামনে বাংলাদেশ বেকারীতে সান গ্র“পের চিপস থাকায় প্রতিষ্ঠানটিকে ২ হাজার টাকা জরিমানা, মুদিপট্টির কয়েকটি দোকানে এসিআই লবণ, গ্রীনল্যান্ড মধু পাওয়ায় ২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয় এবং এ সকল পণ্য ধ্বংস করা হয়।
জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর খুলনা জেলা শাখার সহকারী পরিচালক শিকদার শাহীনুর আলম বলেন, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী নিম্ন মানের ৫২ পণ্য বাজার থেকে প্রত্যাহার এবং নতুন উৎপাদন বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। মধুমতি সল্টসহ কয়েকটি কারখানায় গিয়ে তাদের উৎপাদন বন্ধে নিশ্চিত করা হয়েছে। বড় বড় শপিংমলগুলোতে অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে, তারা ইতোমধ্যে নিজেরাই পণ্য সরিয়ে নিয়েছে। এখন ছোট ছোট দোকানগুলোতেও অভিযান পরিচালনা করা হবে।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ











কয়রায় সাবেক ইউপি মেম্বরকে কুপিয়ে জখম

কয়রায় সাবেক ইউপি মেম্বরকে কুপিয়ে জখম

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:৪৬



ব্রেকিং নিউজ











কয়রায় সাবেক ইউপি মেম্বরকে কুপিয়ে জখম

কয়রায় সাবেক ইউপি মেম্বরকে কুপিয়ে জখম

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:৪৬