খুলনা | সোমবার | ২১ অক্টোবর ২০১৯ | ৬ কার্তিক ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

দাবির প্রতি খুলনার নাগরিক সংগঠনগুলোর একাত্মতা প্রকাশ : রাজপথ-রেলপথ অবরোধ ইফতার ও নামাজ আদায়

২০ মে থেকে কঠোর কর্মসূচির হুঁশিয়ারি পাটকল শ্রমিকদের

নিজস্ব প্রতিবেদক | প্রকাশিত ১৬ মে, ২০১৯ ০০:৩১:০০

খুলনা-যশোর অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ত নয়টি পাটকলে চলছে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট। ধর্মঘট চলাকালে গতকাল বুধবার বিকেলে নবম দিনের মতো নগরীর নতুন রাস্তা মোড়ে রাজপথ ও রেলপথ অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছেন শ্রমিকরা। ওই জায়গায় তারা আসরের নামাজ ও ইফতারসহ মাগরিবের নামাজ আদায় করেন। কর্মসূচি অনুযায়ী টানা দশম দিনের মতো খুলনার পাটকলগুলোর উৎপাদন বন্ধ ছিলো।
এদিকে পাটকল শ্রমিকদের আন্দোলনের প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করে তাদের সমর্থনে কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে খুলনার কয়েকটি নাগরিক সংগঠন। পাটকল শ্রমিকদের সকল বকেয়া পাওনা পরিশোধের দাবিতে আগামী ১৮ মে (শনিবার) সকাল সাড়ে ১০টায় নগরীতে মানববন্ধন ও অবস্থান ধর্মঘট পালন করবে তারা। আগামী সপ্তাহে শ্রমিকদের আন্দোলনের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করে নতুন রাস্তা মোড়ে সড়ক অবরোধ ও ইফতারে অংশ নেবেন সংগঠনগুলোর নেতা-কর্মীরা।
গতকাল বুধবার সকালে প্লাটিনাম জুট মিলের সামনে নাগরিক সংগঠনগুলোর এক যৌথ সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জন উদ্যোগ খুলনার আহ্বায়ক এড. কুদরত ই খুদা। সভায় পাটকল শ্রমিকদের সন্তানদের লেখাপড়ার খরচ এবং অসহায় পরিবার বাছাই করে আর্থিকভাবে সহযোগিতারও সিদ্ধান্ত হয়।
জনউদ্যোগ খুলনার আহ্বায়ক এড. কুদরত ই খুদা বলেন, শ্রমিকদের সঙ্গে যে কাজটি করা হচ্ছে তা অমানবিক। মাসের পর মাস তারা মজুরি ও বেতন বঞ্চিত। দিনের পর দিন না খেয়ে একটি পরিবার কিভাবে চলা সম্ভব? তাই সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে আমরা এগিয়ে এসেছি। আমরা রাজপথে সরব কর্মসূচির পাশাপাশি তাদের সব ধরনের সহযোগিতা করবো।
তিনি বলেন, দু’টি ভাগে সহযোগিতার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। প্রথমত, পাটকল শ্রমিকের ছেলে-মেয়ে যারা এবার এসএসসি উত্তীর্ণ হয়েছে, তারা নির্ধারিত সময়ে যাতে একাদশে ভর্তি হতে পারে-তার সব ধরনের ব্যবস্থা নিশ্চিত করা। পাশাপাশি তাদের খাবার সরবরাহ করা। এই কাজে বিত্তবানসহ সবাইকে অংশ নেওয়ার অনুরোধ জানান তিনি।
ওই সভায় উপস্থিত ছিলেন সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজনের নগর সভাপতি লোকমান হাকিম, হাঙ্গার প্রজেক্টের মাসুদুর রহমান রঞ্জু, সামাজিক ও পরিবেশ সুরক্ষা গণকমিশনের খালিদ হোসেন জয়, শ্রমিক নেতা খলিলুর রহমান, সাংবাদিক খলিলুর রহমান সুমন, নূর হাসান জনি ও মোহাম্মদ মিলন, এড. জাহাঙ্গীর হোসেন, ছায়া বৃক্ষের মাহবুবুল আলম বাদশা, মাহবুবুল হক, আব্দুল কুদ্দুসসহ বেশ কয়েকজন শ্রমিক নেতা। 
অপরদিকে গতকাল দুপুরে খুলনার রাষ্ট্রায়ত্ত ৯টি পাটকলের সিবিএ নেতাদের আরেকটি জরুরি সভা ক্রিসেন্ট জুট মিলে অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে আন্দোলন ও বিজেএমসি’র অবস্থা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। 
সভা শেষে ক্রিসেন্ট জুট মিলের সিবিএ সভাপতি ও পাটকল শ্রমিক লীগের খুলনা-যশোর আঞ্চলিক কমিটির আহ্বায়ক মোঃ মুরাদ হোসেন জানান, পূর্বের প্রতিশ্র“তি অনুযায়ী ১৮ মে থেকে মজুরি কমিশন বাস্তবায়ন এবং ১৯ মে থেকে অর্থ পরিশোধের কথা রয়েছে। ১৯ মের মধ্যে যদি প্রতিশ্র“তি পালন করা না হয়, তাহলে ২০ মে ঢাকায় জরুরি সভা ডেকে আরও কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে। আর ২০ মে পর্যন্ত বর্তমান কর্মসূচি চলবে। 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ