খুলনা | বুধবার | ১৭ জুলাই ২০১৯ | ২ শ্রাবণ ১৪২৬ |

কৃষক বাঁচাতে বোরো ধানের  ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করুন

১৬ মে, ২০১৯ ০০:১০:০০

কৃষক বাঁচাতে বোরো ধানের  ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করুন

বোরো ধান নিয়ে এবার বিপাকে পড়েছেন কৃষক। বরাবরের মতো এবারও ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। অথচ বাজারে বোরো ধান ৫০০, বড় জোর ৬০০ টাকা মণ দরে বিক্রি হচ্ছে। যা একজন ধানকাটা শ্রমিকের দৈনিক মজুরিরও কম। আবার ধান কেনার বিষয়ে সরকারি উদ্যোগেরও গতি নেই। কৃষকদের উৎপাদিত ধানের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে গত বছরের চেয়ে এবার এক মাস আগে (২৫ এপ্রিল) বোরো সংগ্রহ শুরু হবে বলে জানিয়েছিলেন খাদ্যমন্ত্রী। অথচ গত সোমবার পর্যন্ত ১ কেজি ধানও ওঠেনি খাদ্য বিভাগের গুদামে। এতে মনে হচ্ছে, কৃষক বাঁচানোর কথা বলে খাদ্য বিভাগ এপ্রিলে দেশের সবচেয়ে বড় খাদ্য সংগ্রহ অভিযান শুরু করলেও এর সুফল থেকে দূরেই থেকে গেল কৃষককূল। 
চালকল মালিকদের সিন্ডিকেট এ বছরও যথারীতি আঘাত হেনেছে কৃষকের ভাগ্যে। অভিযোগ আছে, তাদের সঙ্গে যোগসাজশ রয়েছে খাদ্য বিভাগের মাঠ পর্যায়ের কতিপয় কর্মকর্তা-কর্মচারীর। যেহেতু এখনো গ্রামাঞ্চলের ৭০ শতাংশ মানুষ প্রত্যক্ষ-পরোক্ষভাবে কৃষির ওপর নির্ভরশীল, সেহেতু সরকারকে কৃষি ও কৃষক নিয়ে সুন্দর সুন্দর কথা বলতেই হচ্ছে। কিন্তু ওইসব কথা কার্যকর করার জন্য যে প্রচেষ্টা ও বিনিয়োগ দরকার, তা কার্যত হচ্ছে না। বলার অপেক্ষা রাখে না, নানা প্রতিকূলতার মধ্যেও দেশের কৃষক উৎপাদন অব্যাহত রেখেছেন। এক সময়ের আমদানি নির্ভর বাংলাদেশ বর্তমানে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। এ কৃতিত্ব বেশিরভাগ অবশ্যই কৃষকের। অথচ তারাই ন্যায্যমূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। বিভিন্ন পত্রিকা ও গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে দেখা যাচ্ছে, চাল বা আলু অথবা অন্য কোনো ফসল নিয়ে কৃষকেরা রাগ, দুঃখ ও ক্ষোভে রাস্তায় ফেলে যাচ্ছেন কিংবা ধানের প্রকৃত মূল্য না পেয়ে ভরা ক্ষেতে আগুন দিচ্ছেন। বিষয়টি আমাদের ভাবিয়ে তুলেছে। এর থেকে পরিত্রাণ এখন সময়ের দাবি।
অনেক চাষিই ঋণ নিয়ে জমি চাষ করে থাকেন। তিনি যদি ন্যায্য দাম না পান, তাহলে তার তো আর খেয়ে-পরে বাঁচার উপায় থাকে না। প্রান্তিক কৃষক মৌসুমের শুরুতেই সরকারি গুদামে ধান-চাল বিক্রি করতে না পারলে এর শতভাগ সুবিধা নিয়ে যাবেন মধ্যস্বত্বভোগী ফড়িয়ারা। এভাবে কৃষি খাতের অগ্রগতি টেকসই হবে না। আমরা মনে করি, কৃষকের পিঠ দেয়ালে ঠেকে যাওয়ার আগেই বড় ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন। আমরা আশা করব, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে ভেবে দেখবেন। 
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ