খুলনা | বুধবার | ২১ অগাস্ট ২০১৯ | ৫ ভাদ্র ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

মস্কোর প্লেন দুর্ঘটনা বজ্রপাতের  আঘাতে : নিহত বেড়ে ৪১

খবর প্রতিবেদন | প্রকাশিত ০৮ মে, ২০১৯ ০০:২৬:০০

মস্কোতে সুখোই সুপারজেট-১০০ প্লেন বিধ্বস্ত হয়ে ৪১ জন নিহত হওয়ার যে ঘটনা ঘটেছে, সেটি বজ্রপাতের কারণে হয়েছে বলে জানা গেছে। মাঝ আকাশে উড়ন্ত প্লেনটির পেছন দিকে বজ্রপাতের আঘাতে আগুন লেগে যায় এবং যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। এরপরই জরুরি অবতরণের সিদ্ধান্ত নেন পাইলট। যদিও শেরিমেতভো বিমানবন্দরে নামা মাত্রই প্লেনটি বিধ্বস্ত হয়।
মঙ্গলবার রুশ সংবাদ মাধ্যম ডেইলি কোমারসান্ট রিপোর্ট করেছে, সুখোই সুপারজেট-১০০ মডেলের প্লেনটি মস্কো টাইম সন্ধ্যা ৬টা ৩ মিনিটে শেরিমেতভো বিমানবন্দর থেকে উড্ডয়নের পরপরই এর পাইলট আবার ফিরে আসার জন্য অনুরোধ করেন।
কেননা, বজ্রপাতের আঘাতে না-কি প্লেনটির রেডিও কমিউনিকেশন চ্যানেল এবং অটোমেটিক কন্ট্রোল ডিভাইস কাজ করছিল না। এ সময় পাইলট বিকল্প কমিউনিকেশন চ্যানেলের মাধ্যমে কন্ট্রোল টাওয়ারের সঙ্গে যোগাযোগ করছিলেন। একই সঙ্গে মাঝ আকাশে প্লেনের পেছনে আগুনও ধরে যায়। যদিও বলা হচ্ছে-বিমানবন্দরে অবতরণের পর প্লেনে ভয়াবহ রকমের আগুন ছড়িয়ে পড়ে।
প্লেনটির পাইলট দেনিশ ইভদোকিমোভ জানিয়েছেন, বজ্রপাতের কারণে ‘এসইউ১৪৯২’ ফ্লাইটের কমিউনিকেশন এবং প্রয়োজনীয় অন্যান্য কন্ট্রোল মুড হারিয়ে যায়। বজ্রপাতের কারণেই মারাত্মক ধরনের এ ঘটনা ঘটেছে।
ফ্লাইট্র্যাডার-২৪ ট্র্যাকিং সার্ভিস দেখাচ্ছে, উড্ডয়নের ৩০ মিনিটের মধ্যেই বিধ্বস্ত হওয়ার আগে প্লেনটি মস্কোতে দুইবার চলাচল করেছে। তখন কোনো সমস্যা হয়নি বা কোনো কিছু ধরাও পড়েনি।
সংবাদ মাধ্যমের ভিডিওতে দেখা গেছে, প্লেনটির পেছনে ভয়াবহ আগুন। বিমানবন্দরে যখন প্লেন অবতরণ করা হলো, তখন আরোহীরা দ্রুত নামছেন। যদিও প্লেনটিতে থাকা ৭৩ যাত্রী এবং পাঁচ ক্রু’র মধ্যে ৪১ জন মারা গেছেন।
এদিকে, রুশ সংবাদ মাধ্যম দ্য মস্কো টাইমস বলছে, এ ঘটনায় গঠিত রাশিয়ার তদন্ত কমিটি জানিয়েছে, তারা একটি ক্রিমিনাল কেস পর্যালোচনা করছে। একইসঙ্গে প্লেন দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে পাইলটরা এয়ার নিরাপত্তা আইন লঙ্ঘন করেছিলেন কি-না, সে বিষয়ে অনুসন্ধান করেছে দলটি। এছাড়া ডাটা রেকর্ডের মাধ্যমে এ ঘটনার তদন্ত চলছে।
রাশিয়ায় মস্কো বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণের পর রানওয়েতে যাত্রীবাহী প্লেনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় অন্তত ৪১ জনের প্রাণহানি হয়েছে। গত রবিবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় বিমানটি ৭৮ জন যাত্রী ও ৫ জন ক্রু নিয়ে রাশিয়ার মস্কোর শেরিমেতভো বিমানবন্দর থেকে মুরমানস্কা অভিমুখে উড্ডয়নের কিছুক্ষণ পরই জরুরি অবতরণ করে। এরপরই ‘এসইউ১৪৯২’ ফ্লাইটে আগুন ধরে যায়। প্লেন থেকে কালো ধোঁয়া বের হতে দেখা যায়। তবে এর মধ্যে বিমান থেকে বের হওয়ার জরুরি নির্গমন পথ দিয়ে যাত্রীদের অনেককে বেরিয়ে আসতে দেখা গেছে। আহতদের হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। যার মধ্যে তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ