খুলনা | রবিবার | ২৬ মে ২০১৯ | ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ |

শিরোনাম :
দলে অনুপ্রবেশকারী কোন জামায়াত-বিএনপিকে আ’লীগের টিকিট দেয়া যাবে না : মিজানজনগণের জীবনমান উন্নয়নে কাজ করছে সরকার : প্রধানমন্ত্রীসাতক্ষীরায় প্রাইমারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসের একাধিক চক্র ধরাছোঁয়ার বাইরে জনতার বিক্ষোভের মুখে দুই কর্মকর্তাসহ ৮ পুলিশ প্রত্যাহার : তদন্ত কমিটিধান কেনায় আরো ১০ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দের দাবি বিএনপি’রখুলনা চেম্বারে ফের বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সভাপতি হতে যাচ্ছেন কাজী আমিনচার মাসে বন্দুকযুদ্ধে ১১৮ নাগরিক নিহত নারী ধর্ষণ ৩৫৪, শিশু ২৩৪ : গুম ৬ নির্বাচন কমিশনই এই নির্বাচনের ‘ম্যান অব দ্য ম্যাচ’ ‘ওপেন গেম’ খেলেছে ওরা : মমতার অভিযোগ 

Shomoyer Khobor

ডুমুরিয়া উপজেলা পরিষদের নির্বাচন ঈদের পর

গুটুদিয়া ও কয়রা সদর ইউপির উপ-নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থীরা ক্ষমতাসীন দলের

আশরাফুল ইসলাম নূর | প্রকাশিত ১৯ এপ্রিল, ২০১৯ ০১:৩০:০০

প্রতীক জটিলতায় স্থগিত হওয়া খুলনার সর্ববৃহৎ উপজেলা ডুমুরিয়ার নির্বাচন ঈদের পর হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে থেমে নেই প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা। এদিকে, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করায় শুণ্য হওয়া কয়রা সদর ও ডুমুরিয়ার গুটুদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা না করলেও আগাম প্রচার-প্রচারণা চলছে। সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকায় রয়েছেন ক্ষমতাসীন দলের একাধিক নেতা।
সূত্রমতে, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করায় গুটুদিয়া ইউপি চেয়ারম্যানের পদ থেকে পদত্যাগ করেন মোস্তফা সারোয়ার। নিয়মানুযায়ী নৌকা প্রতীক পেয়ে প্রচার-প্রচারণা নামেন আ’লীগ মনোনীত প্রার্থী মোস্তফা সারোয়ার। জমে উঠে উপজেলা নির্বাচন। 
এদিকে নির্বাচনের পূর্ব মুহূর্তে নৌকা প্রতীক পাওয়ার দাবিতে গত ২৭ মার্চ উচ্চ আদালতে রীট করেন ডুমুরিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রার্থী শাহনেওয়াজ হোসাইন জোয়ার্দ্দার। ৩১ মার্চ নির্বাচনের ভোট গ্রহণের নির্ধারিত তারিখ থাকলেও ১০ এপ্রিল পর্যন্ত নির্বাচন স্থগিতের আদেশ দেয় আদালত। একই সাথে জেলা প্রশাসককে কারণ দর্শাও নোটিশের জবাব দিয়ে সময়সীমা বেঁধে দেন তিনি। সে নোটিশের জবাবে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন নির্বাচন কমিশনকে জানিয়েছেন- নিয়নানুযায়ী আ’লীগ মনোনীত প্রার্থী মোস্তফা সারোয়ারকে নৌকা প্রতীক দেয়া হয়েছে, অপর দিকে শাহনেওয়াজ হোসাইন জোয়ার্দ্দারকে দোয়াত-কলম প্রতীক দেয়া হয়। উচ্চ আদালতের রীটের পর্যালোচনায় খুলনা জেলা প্রশাসন ইতিবাচক হলেও ডুমুরিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচন প্রসঙ্গটি হারিয়ে যাচ্ছে।
ডুমুরিয়ায় নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মোস্তফা সারোয়ার বলেন, “ডুমুরিয়াতে নৌকা প্রতীকের যারা বিরোধীতা করছে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ও রাজনৈতিক ব্যবস্থা নিলে সব সমস্যার সমাধান হতো। নৌকা প্রতীকের গণজোয়ার ঠেকাতে অপপ্রচার চালাচ্ছে একটি স্বার্থান্বেষী মহল।” 
তিনি আরও বলেন, “আমি তো নৌকা প্রতীক নিয়ে গুটুদিয়ার নির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান ছিলাম, প্রধানমন্ত্রী নৌকা প্রতীক দিয়েছেন বলেই না উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছি। এখানে আমার কি অপরাধ? কে আ’লীগ করে নৌকার বিরোধীতা করছেন?”
অন্যদিকে দলীয় মনোনয়ন পেয়ে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নেয়ায় গত ৪ মার্চ পদত্যাগ করেন মোস্তফা সারোয়ার। ফলে ডুমুরিয়ার গুটুদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদটি শুণ্য হয়। একই ভাবে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে এসএম শফিকুল ইসলাম অংশ নেয়ায় শুণ্য হয় কয়রা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদটিও। গত ৩১ মার্চ অনুষ্ঠিত নির্বাচনে কয়রা উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন তিনি।
অপর দিকে কয়রা সদর ইউনিয়ন পরিষদে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন কয়রা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান দিদার, সাবেক সভাপতি এস এম বাহারুল ইসলাম, আ’লীগ নেতা ইউপি সদস্য রেজাউল ইসলাম ও মোঃ শাহাদাৎ, রবিউল ইসলাম রবিন, আমিরুল ঢালী ও শাহাবুদ্দিন।
কয়রা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান দিদার বলেন, “দলীয় মনোনয়ন চাইবো। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে এলাকার স্বার্থে গণমানুষের জন্য কাজ করতে চাই।”
জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ মাজহারুল ইসলাম বলেন, “ডুমুরিয়া উপজেলা পরিষদ এবং গুটুদিয়া ও কয়রা সদর ইউনিয়ন পরিষদের উপ-নির্বাচন সম্পর্কে এখনো কোন নির্দেশনা আসেনি। তবে জেলা নির্বাচন অফিসের প্রস্তুতি রয়েছে।”
নির্বাচন কমিশনের একাধিক সূত্র জানিয়েছেন, আগামী সপ্তাহে কয়রা সদর ও গুটুদিয়া ইউপি উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার সম্ভাবনা রয়েছে। সে অনুযায়ী ঈদের পর নির্বাচন হতে পারে।
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ









পরিত্যক্ত ২০ পিলার ‘গলার কাঁটা’

পরিত্যক্ত ২০ পিলার ‘গলার কাঁটা’

০৬ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯ ০১:২০





ব্রেকিং নিউজ