খুলনা | সোমবার | ২২ জুলাই ২০১৯ | ৬ শ্রাবণ ১৪২৬ |

শিরোনাম :
খুলনায় ডেঙ্গু ও চিকনগুনিয়া জ্বরে আক্রান্ত ২১ রোগী শনাক্তপ্রিয়ার বিরুদ্ধে খুলনা যশোরসহ ৪ জেলায় রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার ছয়টি আবেদন খারিজযশোরসহ ৪ জেলার মাত্র একজন বিচারকের হাতে ১৭শ’ ৭০ মামলা : স্টাফ মাত্র দু’জনখুলনার বৃক্ষমেলায় দর্শনার্থীদের নজর কেড়েছে এ্যাডেনিয়াম ফুল গাছ‘আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগের আগে আইনানুগ ব্যবস্থা না নেওয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর’প্লাটিনাম জুট মিলের চারটি ভবন পরিত্যক্ত ঘোষণা জীবনের ঝুঁকিতে শ্রমিক পরিবারের সদস্যরারাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক কূটনীতি একসঙ্গে অনুসরণ করুন : রাষ্ট্রদূতদের প্রধানমন্ত্রীপ্রি-একনেকে অনুমোদনের পর কেটেছে ১০ মাস, একনেকে ওঠেনি শের-এ বাংলা রোড চার লেনে উন্নীতকরণ প্রকল্প

তৃণমূলের বিরুদ্ধে জাল ভোট দেওয়ার অভিযোগ

ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশে ভোট গ্রহণের সময় সংঘর্ষ, নিহত ২

খবর প্রতিবেদন | প্রকাশিত ১২ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:৫৪:০০

ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশে লোকসভা নির্বাচনের ভোট গ্রহণের সময় সংঘর্ষে দু’জন নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার থেকে লোকসভা নির্বাচনের ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। প্রথম দফা ভোটগ্রহণের দিনই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটল। অন্ধ্রপ্রদেশের ভিরামপুর এলাকায় তেলুগু দেশম পার্টি (টিডিপি) ও ইউথ লেবার এ্যান্ড ফার্মার কংগ্রেস পার্টির (ওয়াইএসআর কংগ্রেস) সংঘর্ষে ওই ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন টিডিপি পার্টির সমর্থক চিন্তা ভাস্কর ও ওয়াইএসআর কংগ্রেসের সমর্থক পুল¬া রেড্ডি।
ভারতে গতকাল থেকে শুরু হয়েছে সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচন। মোট ১৮টি রাজ্যের ৯১টি কেন্দ্রে হয়েছে ভোটগ্রহণ। ভোট হয় দু’টি কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলেও। একই সঙ্গে চারটি রাজ্যের বিধানসভা ভোট হয়েছে। এবারের লোকসভা নির্বাচনে অংশ নেবেন দেশটির প্রায় ৯০ কোটি ভোটার। গতবারের চেয়ে এবার ভোটারের সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ৯ শতাংশ।
জানা গেছে, ভোট গ্রহণকে কেন্দ্র করে ভিরামপুর গ্রামের ১৯৭ নম্বর বুথের সামনে টিডিপি ও ওয়াইএসআরের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষের এক পর্যায়ে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত হন টিডিপি পার্টির সমর্থক চিন্তা ভাস্কর ও ওয়াইএসআর কংগ্রেসের সমর্থক পুল¬া রেড্ডি।
এদিকে পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ার লোকসভা কেন্দ্রের ভোট ঘিরে বিক্ষিপ্তভাবে সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে। ভোট গ্রহণ শুরুর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই কোচবিহারের দিনহাটা মহকুমার নয়ারহাট গ্রাম পঞ্চায়েতের রসমন্ডা স্কুলে তৃণমূল ও বিজেপির মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় বিজেপির এক কর্মীর মাথা ফেটে গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়।
বুধবার রাতেই ভোটকে ঘিরে কোচবিহারে তৃণমূল কংগ্রেসের পঞ্চায়েত প্রধানের ওপর হামলা হয়। এর জের ধরে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে পুরো এলাকায়। তবে ভারতের অন্যান্য রাজ্যে শান্তিপূর্ণভাবে প্রথম ধাপের ভোট গ্রহণ হয়েছে বলে কমিশন সূত্রে জানা গেছে।
এদিকে তৃণমূলের বিরুদ্ধে আলিপুর দুয়ারের বেশ কয়েকটি বুথে ও কোচবিহারের বক্সিরহাটে জাল ভোট দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এছাড়া কোচবিহারের গীতালদহে বিজেপি এজেন্টকে বুথ থেকে জোর করে বের করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে তৃণমূলের কর্মীদের বিরুদ্ধে। এছাড়া কোচবিহারের বলরামপুরে বিজেপির পাথর হামলায় পুলিশকর্মী আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে। 
সব মিলিয়ে বিক্ষিপ্ত কিছু ঘটনার অভিযোগ উঠলেও পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, ভোট চলছে শান্তিপূর্ণভাবেই। আজ (বৃহস্পতিবার) সকাল থেকেই বিভিন্ন বুথে বুথে ভোটারদের লম্বা লাইন চোখে পড়েছে।
গতকাল সকাল থেকে ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশ রাজ্যের ২৫টি লোকসভা আসনেও শুরু হয় ভোটগ্রহণ। সেখানে লোকসভার পাশাপাশি চলছে বিধানসভা নির্বাচনও। ভারতে প্রথম দফার এই ভোটে ভাগ্য নির্ধারণ হচ্ছে নীতিন গড়করি, কিরেন রিজেজু থেকে শুরু করে ভি কে সিংদের।
২০১৪ সালে অন্ধ্রপ্রদেশ রাজ্য ভাগ হয়ে তেলেঙ্গানা রাজ্য গঠিত হওয়ার পর এটিই সবচেয়ে বড় ভোট। অন্ধ্রপ্রদেশের ১৭৫টি বিধানসভা ও ২৫টি লোকসভার কেন্দ্রে ভোট দেন প্রায় চার কোটি ভোটার। 
অন্যদিকে ভারতের সবচেয়ে বড় রাজ্য উত্তর প্রদেশেও মোট আটটি আসনে ও মহারাষ্ট্রে সাতটি আসনে হয়েছে ভোট গ্রহণ। তাছাড়া বিহারে চারটি আসন, অরুণাচল প্রদেশের দু’টি ও আসামের পাঁচটি আসনে হয়েছে ভোট। ছত্তিশড়ের বস্তার কেন্দ্রেও গতকাল হয়েছে ভোট। মাত্র দুই দিন আগে মাওবাদীদের হানায় বিজেপি বিধায়কসহ কয়েকজনের মৃত্যু হয়েছে এই এলাকায়।
সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা প্রবণ উত্তর প্রদেশের মুজাফ্ফর নগর কেন্দ্রে এবার মূল লড়াই রাষ্ট্রীয় লোকদল ও বিজেপির মধ্যে। এই কেন্দ্রে রয়েছেন ১৬ লাখ ভোটার। যার মধ্যে পাঁচ লাখ ভোটার মুসলমান।
২০১৩ সালে ভয়ঙ্কর সাম্প্রদায়িক সংঘর্ষ শুরু হয় মুজাফ্ফর নগরে। এই সংঘর্ষে ৬০ জনের মৃত্যু হয়। ৫০ হাজার মানুষ বাড়ি ছাড়া হন। ওই ঘটনার ছয় মাস পর লোকসভা নির্বাচনে জয়ী হন সঞ্জীব বালিয়ান। 
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ