খুলনা | সোমবার | ২২ এপ্রিল ২০১৯ | ৯ বৈশাখ ১৪২৬ |

Shomoyer Khobor

২২ এপ্রিল অনুষ্ঠিতব্য প্রাথমিকে পরীক্ষা নিয়ে ধোঁয়াশা 

৩য় শ্রেণী পর্যন্ত পরীক্ষা থাকা না থাকার বিষয়ে নীতিমালা পায়নি কেউ : শঙ্কিত সংশ্লিষ্টরা

বশির হোসেন | প্রকাশিত ০৭ এপ্রিল, ২০১৯ ০১:৩০:০০

মাত্র ১৫ দিন পড়েই প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নির্ধারিত পরীক্ষা। প্রাক প্রাথমিক থেকে ৩য় শ্রেণী পর্যন্ত পরীক্ষা নিয়ে এখনও অন্ধকারে রয়েছে অভিভাবক ও শিক্ষকসহ প্রশাসন। ৩য় শ্রেণী পর্যন্ত পরীক্ষা না থাকার সরকারি ঘোষণা থাকলেও এখন পর্যন্ত নির্দেশনা আসেনি মন্ত্রণালয় অথবা অধিদপ্তর থেকে। ফলে আগামী ২২ এপ্রিল অনুষ্ঠিতব্য এ পরীক্ষা হবে কি না। না হলে কিভাবে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন করা হবে তা নিয়ে নানা প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে অভিভাবকদের মধ্যে।
গত ১৩ মার্চ প্রধানমন্ত্রীর এক অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের অতিরিক্ত পড়ার চাপ কমাতে ৩য় শ্রেণী পর্যন্ত পরীক্ষা না নেয়ার বিষয়টি বিবেচনায় আনতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি অনুরোধ জানান। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার একদিনের মাথায় গণশিক্ষা সচিব মোঃ আকরাম-আল- হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম থেকে তৃতীয় শ্রেণী পর্যন্ত কোনো পরীক্ষা না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এই তিন শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের কীভাবে মূল্যায়ন করা হবে শিগগিরই একটি কর্মশালার মাধ্যমে তা চূড়ান্ত করা হবে বলেও জানান তিনি। তবে এ ঘোষণার প্রায় এক মাস অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত কোন ধরনের নীতিমালা বা নির্দেশনা পায়নি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও অভিভাবক ও শিক্ষকসহ সংশ্লিষ্ট কেউ। 
এদিকে প্রাথমিক শিক্ষার সিলেবাস অনুযায়ী চলতি মাসে প্রাক প্রাথমিক থেকে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত প্রথম পর্ব পরীক্ষা হওয়ার কথা। আগামী ২২ তারিখে অনুষ্ঠিতব্য এ পরীক্ষার জন্য ইতোমধ্যে প্রস্তুতি নিবে কি না তা নিয়ে সিদ্ধান্তহীনতায় পড়েছে অভিভাবকরা। গতকাল শনিবার এ বিষয়ে অন্তত ১৫ জন অভিভাবকের সাথে কথা হয়েছে এ প্রতিবেদকের, যাদের সন্তানেরা ১ম থেকে ৩য় শ্রেণীতে অধ্যয়নরত। মোঃ মনির হোসেন নামে ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুলের এক অভিভাবক বলেন, পরীক্ষা হবে কি না স্যাররা এখন পর্যন্ত কিছু বলতে পারছেন না। আমরা কি করব বুঝতে পারছি না। একই ধরনের বক্তব্য দিয়েছে রাহিমা বেগম নামে অন্য একজন অভিভাবক। 
সেনাডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক অভিভাবক মোঃ মিজবাহউল ইসলাম বলেন, ২য় শ্রেণীতে পড়ে আমার সন্তান। শুনেছি পরীক্ষা হবে না। তবে কিভাবে কি হবে তা এখনও জানিনা জানতে পারলে প্রস্তুতি নিতে আমাদের জন্য ভালো হতো। অভিভাবকদের পাশাপাশি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানরাও এখনও এ ব্যাপারে কিছুই জানেন না।
খুলনা সরকারি উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা ফারহানা নাজ ও জিলা স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ আরিফুল ইসলাম, চিলড্রেন ভয়েস স্কুলের অধ্যক্ষ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম সময়ের খবরকে জানিয়েছে, এখনও পর্যন্ত কোন ধরনের নির্দেশনা পাননি তারা। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম পর্ব পরীক্ষা আগামী ২২ এপ্রিল থেকে শুরু হওয়ার কথা। তবে পরীক্ষা শুরু হবে কি-না না হলে পরবর্তী ব্যবস্থা কি হবে, তা নিয়ে এখনও অন্ধকারে রয়েছে এসব প্রতিষ্ঠান প্রধানরা।
প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদপ্তর খুলনা বিভাগীয় উপ-পরিচালক মেহেরুন্নেছা সময়ের খবরকে বলেন, আগামী ২২ এপ্রিল থেকে পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। তবে পরীক্ষা নেবো কিনা এখনও নিশ্চিত হতে পারিনি। মন্ত্রণালয় এবং অধিদপ্তরের সাথে কথা বলেছি। শিগগিরই একটি সুনির্দিষ্ট নীতিমালা পেয়ে যাবো। তখন সে আলোকেই চলবে সবকিছু। আপাতত নীতিমালার অপেক্ষায় রয়েছি। 
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ








পবিত্র শবেবরাত আজ রাতে

পবিত্র শবেবরাত আজ রাতে

২১ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:৫৭