খুলনা | বুধবার | ২৭ মার্চ ২০১৯ | ১৩ চৈত্র ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

হজ্ব যাত্রীরা সার্টিফিকেটের আওতামুক্ত 

কেএমপিতে অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পেতে কমেছে ভোগান্তি : মাসে আবেদন শতাধিক

এন আই রকি | প্রকাশিত ১১ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯ ০১:৩০:০০

খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ (কেএমপি) এলাকার বাসিন্দাদের অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পেতে ভোগান্তি কমেছে। মাত্র তিন থেকে সাতদিনের মধ্যেই আবেদনকারীরা পাচ্ছেন পুলিশ ক্লিয়ারেন্স। তবে ভুল তথ্য ও মামলা জনিত কারণে অনেকেই আবেদন করেও সার্টিফিকেট পাচ্ছেন না। একাধিক আবেদনকারী জানিয়েছেন, অনেক সহজে এবং খুব অল্প সময়ের মধ্যেই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পাওয়া যাচ্ছে। কোন রকম কোন হয়রানি বা ভোগান্তি হচ্ছে না। কেউ অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্সের আবেদন করতে না পারলে কেএমপি’র সদর দপ্তর থেকে বিনা খরচে সহযোগিতা করা হচ্ছে। প্রতি মাসে গড়ে শতাধিকের বেশি আবেদনকারী এখন অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করে এ সার্টিফিকেট পাচ্ছেন। 
জানা যায়, পবিত্র হজ্বে গমণকারীসহ এশিয়া ও ইউরোপ মহাদেশের বিভিন্ন দেশে যাওয়ার জন্য পুলিশ ক্লিয়ারেন্স প্রয়োজন হয়। ২০১৭ সালের আগে আবেদনকারীরা ম্যানুয়ালে পুলিশ ক্লিয়ারেন্সের জন্য আবেদন করতেন। এরপর থেকে প্রত্যেকটি ঘাটে ঘাটে হয়রানীসহ অর্থ বাণিজ্যের মত ভোগান্তিতে পড়তেন আবেদনকারীরা। কিন্তু গত দুই বছরে এই ভোগান্তি অনেকাংশ কমেছে।
কেএমপি’র সূত্র জানায়, ২০১৭ সালের ১৫ জানুয়ারি থেকে কেএমপিতে অনলাইনের মাধ্যমে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সেবা চালু হয়। তৎকালীন পুলিশ কমিশনার শফিকুর রহমান এই সেবা চালু করেন। চলতি বছরের জানুয়ারি মাস পর্যন্ত অনলাইনের মাধ্যমে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স চেয়ে আবেদন করেছেন ২ হাজার ৬২৭ জন। এর মধ্যে ১৩১ জন আবেদনকারীকে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স দেওয়া হয়নি। পাশাপাশি ৫৫ জন আবেদনকারী বিষয়ে তদন্ত চলছে। 
সূত্রটি আরও জানায়, অনেক আবেদনকারী অনলাইনে ভুল তথ্য দিয়ে থাকেন। বিশেষ করে পাসপোর্টের বর্তমান ঠিকানা কেএমপি’র বাইরে থাকলে আবেদনকারীকে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স জেলা পুলিশ থেকে নেওয়ার নিয়ম। তবে একাধিক আবেদনকারীর এ তথ্যটি না জানার কারণে আবেদন করেও ক্লিয়ারেন্স পায় না। এছাড়া অনেক আবেদনকারীর বিরুদ্ধে মামলা থাকায় তারাও পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পাচ্ছে না। এছাড়া গত বছর থেকে পবিত্র হজ্বে গমণকারীদের জন্য পুলিশ ক্লিয়ারেন্স লাগছে না। এই বিষয়গুলো অনেক আবেদনকারীই জানেন না। তাই পুলিশ ক্লিয়ারেন্সের আবেদন করেও অনেকে সার্টিফিকেট পায় না। বর্তমানে এশিয়া ও ইউরোপ মহাদেশে যেতে ইচ্ছুক এই ধরনের আবেদন বেশি পড়ছে। ঘরে বসেই অনলাইনে আবেদনের মাধ্যমে পুলিশ ক্লিয়ারেন্সের জন্য আবেদন করা যায়। এছাড়া কেউ যদি আবেদন করতে না পারে সেক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কাগজপত্র আনলে কেএমপি’র পক্ষ থেকে আবেদনকারীকে বিনা খরচেই সহযোগিতা করা হচ্ছে। 
এ বিষয়ে কেএমপির নগর বিশেষ শাখার বিশেষ পুলিশ সুপার রাশিদা বেগম সময়ের খবরকে গতকাল রবিবার বলেন, নগরবাসীকে সেবা দেওয়ার জন্য অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স দেওয়া শুরু হয়েছে। এতে ভাল সাড়া পাওয়া গেছে। প্রতি মাসে গড়ে শতাধিক আবেদন পড়ছে। আবেদনকারীদের মাত্র তিন থেকে সাত দিনের মধ্যেই পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট দেওয়ার চেষ্টা করছি। অনলাইনে কোন ধরনের কোন ভোগান্তির বিষয় নেই। আবেদনকারীরা ঘরে বসেই পুলিশ ক্লিয়ারেন্সের জন্য আবেদন করতে পারছেন। কেএমপি থেকেও এই ব্যাপারে সহযোগিতা করা হয়।
যা লাগবে অনলাইনে আবেদনে : সংশ্লিষ্ট থানা বা কেএমপি থেকে অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্সের আবেদন করার ঠিকানায় খুব সহজেই আবেদন করা যায়। এর সাথে আবেদনকারীর পাসপোর্টের কপি, জাতীয় পরিচয়পত্র বা জন্মনিবন্ধন, ৫ টাকা ব্যাংক ড্রাফট, নাগরিক সনদপত্র ও পাসপোর্ট সাইজের ১ কপি ছবি সত্যায়িত করে অনলাইনের ঠিকানা আবেদন করার সময় সংযুক্ত করতে হবে।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ







একাত্তরের স্মৃতির রোডম্যাপ

একাত্তরের স্মৃতির রোডম্যাপ

২৬ মার্চ, ২০১৯ ০১:৪৩


স্বাধীনতা ও আমাদের প্রত্যাশা

স্বাধীনতা ও আমাদের প্রত্যাশা

২৬ মার্চ, ২০১৯ ০১:৪২