খুলনা | বুধবার | ২৭ মার্চ ২০১৯ | ১৩ চৈত্র ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

উপজেলা নির্বাচনে যাওয়ার ব্যাপারে  ‘নেতিবাচক’ অবস্থানে জামায়াত

বশির হোসেন  | প্রকাশিত ২৬ জানুয়ারী, ২০১৯ ০০:৫৫:০০


সংসদ নির্বাচনের রেশ না কাটতেই দরজায় কড়া নাড়ছে উপজেলা নির্বাচন। সংসদ নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ নিলেও আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে যাওয়ার ব্যাপারে এখনও নেতিবাচক অবস্থানে রয়েছে জামায়াতে ইসলামী। দলের স্থানীয় ও কেন্দ্রীয় নীতি নির্ধারণী পর্যায়ে কয়েকজন নেতার সাথে কথা বলে এমন তথ্য পাওয়া যায়। যদিও খুলনার নয়টি উপজেলার কয়েকটিতে চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ঠিক করা আছে জামায়াতের।
সংশি¬ষ্ট সূত্রে জানা যায়, বর্তমানে খুলনার নয় উপজেলায় জামায়াতে ইসলামের একজন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এবং চার জন ভাইস চেয়ারম্যান আছেন। ফলে আগামী নির্বাচনেও বর্তমান প্রার্থীর বাইরে নতুন করে ফুলতলায় চেয়ারম্যান প্রার্থী, তেরখাদায় ভাইস চেয়ারম্যান , ডুমুরিয়ায় চেয়ারম্যান প্রার্থী, ফুলতলায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ঠিক করে রেখেছে জামায়াতে ইসলামী। তবে সংগঠনটি অংশ নেবে কিনা তা নিয়ে খুব শিগগিরই তাদের অবস্থান পরিষ্কার করবে বলে কেন্দ্রীয় নীতিনির্ধারণী পর্যায় সূত্রে জানা গেছে। 
২০১৪ সালের উপজেলা নির্বাচনে কয়রা উপজেলায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন জেলা জামায়াতের সাবেক আমীর আ খ ম তমিজউদ্দিন।  এছাড়া ফুলতলা, ডুমুরিয়া, পাইকগাছা ও কয়রা উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন জামায়াতে ইসলামীর প্রার্থীরা। 
গত ২১ জানুয়ারি সোমবার ঢাকায় বিএনপি’র মহাসচিব ও ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, “এই সরকার এবং এই নির্বাচনের অধীনে আর কোন নির্বাচনে অংশ নেবে না ঐক্যফ্রন্ট।” তবে আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জামায়াতের প্রার্থী দেওয়া না দেওয়া বিষয়ে জামায়াত এর পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কোন অফিসিয়াল সিদ্ধান্ত জানা না গেলেও একাধিক দায়িত্বশীল নেতাদের কাছ থেকে নেতিবাচক মন্তব্য পাওয়া গেছে।
খুলনা জেলা জামায়াতের এসিস্টেন্ট সেক্রেটারী মুন্সি মঈনুল ইসলাম বলেন, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ব্যাপারে কেন্দ্র থেকে এখন পর্যন্ত কোন নির্দেশনা আসেনি। যেভাবে নির্দেশনা আসবে সেভাবেই সকল শক্তি নিয়ে দায়িত্ব পালন করবে। 
দলের কেন্দ্রীয় নায়েবে আমীর সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার বলেন, জামায়াতে ইসলামী একটি নির্বাচনমুখী দল। যেহেতু গত ৩০ ডিসেম্বর দেশে একটি প্রহসনের নির্বাচন হয়েছে। খুব স্বাভাবিক ভাবেই জামায়াত আশঙ্কা করছে এই নির্বাচন কমিশন এবং এই সরকারের অধীনে আবারও একই ধরনের একই প্রহসনের নির্বাচনের নাটক মঞ্চস্থ হতে যাচ্ছে তাই এই মুহূর্তে জামায়াতে ইসলামী নির্বাচনে যাওয়াকে অপ্রয়োজনীয় মনে করছে। তবে কিছুদিনের মধ্যে আনুষ্ঠানিকভাবে দলের অবস্থান গণমাধ্যমে জানানো হবে।


 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ



পরিত্যক্ত ২০ পিলার ‘গলার কাঁটা’

পরিত্যক্ত ২০ পিলার ‘গলার কাঁটা’

০৬ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯ ০১:২০











ব্রেকিং নিউজ







একাত্তরের স্মৃতির রোডম্যাপ

একাত্তরের স্মৃতির রোডম্যাপ

২৬ মার্চ, ২০১৯ ০১:৪৩


স্বাধীনতা ও আমাদের প্রত্যাশা

স্বাধীনতা ও আমাদের প্রত্যাশা

২৬ মার্চ, ২০১৯ ০১:৪২