খুলনা | শুক্রবার | ১৮ জানুয়ারী ২০১৯ | ৪ মাঘ ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

সাতক্ষীরা সদরে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী ৯ জন 

রুহুল কুদ্দুস, সাতক্ষীরা  | প্রকাশিত ১২ জানুয়ারী, ২০১৯ ০০:৫৫:০০

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের রেশ কাটতে না কাটতেই সরব হয়ে উঠেছেন সাতক্ষীরা সদর উপজেলার আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। এখন পর্যন্ত এই উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে মোট ৯ জন মনোনয়ন প্রত্যাশীর নাম শোনা যাচ্ছে। ইতিমধ্যে সম্ভাব্য প্রার্থীরা কেন্দ্রে জোর লোবিং গ্র“পিং শুরু করে দিয়েছেন। একই সাথে শুরু করেছেন দলীয় নেতা-কর্মীদের সাথে মতবিনিময়। নিজেকে সম্ভাব্য প্রার্থী ঘোষণা দিয়ে অনেকে গণসংযোগও শুরু করেছেন। তবে এখনও পর্যন্ত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ গ্রহণের জন্য বিএনপি বা জামায়াত দলীয় কোন প্রার্থীর নাম শোনা যায়নি।
একটি পৌরসভা ও ১৪টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত সাতক্ষীরা সদর উপজেলা পরিষদ। বিগত ২০০৯ সালের ২২ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত নির্বাচনে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ নজরুল ইসলাম তৎকালীন জেলা জামায়াতের সেক্রেটারী নুরুল হুদাকে হারিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ২০১৪ সালের মার্চ মাসে প্রথম বারের মত দেশে দলীয় প্রতীকে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এই নির্বাচনে তৎকালীন জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ আসাদুজ্জামান বাবু প্রায় এক লাখ ভোটের ব্যবধানে জামায়াত দলীয় প্রার্থী হাবিবুর রহমানকে পরাজিত করে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। গত পাঁচ বছর ধরে তিনি দলীয় কর্মকান্ডের সাথে সাথে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করছেন।
আওয়ামী লীগ থেকে সদর উপজলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হলেন, বর্তমান চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আসাদুজ্জামান বাবু, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক, দৈনিক কালের চিত্র সম্পাদক সাবেক অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, সদর উপজেলা আ’লীগের সভাপতি এস এম শওকত হোসেন, বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম মোর্শেদ, জেলা মহিলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক জোৎস্না আরা, জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক আব্দুল মান্নান, জেলা তাঁতী দলের আহ্বায়ক ভোমরা সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান নাসিম, ঘোনা ইউপি চেয়ারম্যান মোশরাফ হোসেন মোশা ও বৈকারি ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান অসলে। 
মনোনয়ন প্রত্যাশী এসব প্রার্থীরা ইতিমধ্যে দলীয় নেতা-কর্মীদের সাথে মতবিনিময়ের  পাশাপাশি গণসংযোগ করছেন। সাধারণ জনগণের কাছে গিয়ে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসাবে দোয়া চাইছেন। অনেকে আবার শহর ও  ইউনিয়নের বিভিন্ন গুরুপূর্ন পয়েন্টে ছবি সম্বলিত প্যানাসাইন ব্যানার টানিয়ে জনগণের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করছেন। তবে দল যাকেই মনোনয়ন দিবে দলীয় স্বার্থে নৌকাকে বিজয়ী করার লক্ষে তার সাথে অন্যরা কাজ করবেন বলে জানিয়েছেন। 
মনোনয়ন প্রত্যাশী বর্তমান চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আসাদুজ্জামান বাবু বলেন, জাতীয় নির্বাচনে আগে নেত্রী বলেছিলেন উপজেলা ও জেলা পরিষদের যে যেখানে আছে সেখানেই থাকবেন। এ কারনে ফের দলীয় মনোনয়নের ব্যাপারে আমি খুবই আশাবাদি। এছাড়া গত পাঁচ বছর ধরে সাধ্যমত এলাকার উন্নয়নে নিজেকে নিয়োজিত রাখার পাশাপাশি সব সময় জনগণের পাশে থেকে তাদের সেবা করার চেষ্টা করেছি। সদর উপজেলার সর্বস্তরের জনগণ আমার সাথেই আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। সুযোগ পেলে উপজেলার অসমাপ্ত কাজ শেষ করবো ইনশাআল্লাহ। 
অধ্যক্ষ অবু আহমেদ বলেন, জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালনের পর দীর্ঘদিন ধরে জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক পদে কাজ করছি। দলের সকল পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের পাশাপাশি সাধারণ জনগণের সাথে আমার রয়েছে একটা নিবিড় সম্পর্ক। উপজেলা প্রায় সব এলাকার মানুষের সুখ দুঃখে সব সময় তাদের পাশে থেকেছি। যতটুকু সম্ভব মানুষের জন্য কাজ করার চেষ্টা করেছি। এবার দলীয় মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচনে জিতে এলাকার উন্নয়নে নিজেকে সম্পৃক্ত করতে চাই। 
জেলা মহিলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক জোৎস্না আরা বলেন, দীর্ঘদিন ধরে সফলতার সাথে মহিলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করে আসছি। বিপুল ভোটের ব্যবধানে পর পর দুইবার পৌর কাউন্সিলর পদে জয়লাভ করে জনগণের সেবা করে চলেছি। তিনি আরো বলেন, উপজেলা আ’লীগের নেতা-কর্মী ও সাধারণ জনগণের আহ্বানে আমি আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ঘোষণা দিয়েছি। আশা করি দলীয় নেতা-কর্মীর ও  জনগণের সমর্থনের কারনে জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দিয়ে নির্বাচনে অংশ গ্রহণের সুযোগ দিবেন। 
জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক আব্দুল মান্নান বলেন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও ১৯৯৪ সাল থেকে অদ্যবধি জেলা যুবলীগের সভাপতি ও আহ্বায়কের দায়িত্ব পালন করে আসছি। ছাত্রলীগ ও যুবলীগের মাধ্যমে গত ৩৪ বছর ধরে আওয়ামী রাজনীতির সাথে যুক্ত আছি। এবার জনগণের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করতে চাই। আগামী নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নিজের প্রার্থীতা ঘোষনা দিয়ে ইতিমধ্যে কাজ শুরু করেছি। তিনি আরো বলেন, বিগত সময়ে জামায়াত-বিএনপি’র সহিংসতামূলক কর্মকান্ডের সময়ে নিজের জীবন বাজি রেখে দলের নেতা-কর্মীদের পাশে থেকে তাদেরকে সহযোগিতা করেছি। আশা করি দল আমার কর্মের মূল্যায়ন করবে এবং এবারও আমাকে দলীয় মনোনয়ন দিয়ে নির্বাচনে অংশ গ্রহণের সুযোগ দিবে।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ




নগরীতে পদ্মা তেল  ডিপোতে আগুন 

নগরীতে পদ্মা তেল  ডিপোতে আগুন 

১৮ জানুয়ারী, ২০১৯ ০০:৫৪










ব্রেকিং নিউজ





নগরীতে পদ্মা তেল  ডিপোতে আগুন 

নগরীতে পদ্মা তেল  ডিপোতে আগুন 

১৮ জানুয়ারী, ২০১৯ ০০:৫৪