খুলনা | বুধবার | ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮ | ৫ পৌষ ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

নওয়াপাড়ায় নৌযান শ্রমিকদের কর্মবিরতির দ্বিতীয়  দিনে প্রতিবাদ সভা : ব্যবসা-বাণিজ্যে স্থবির

অভয়নগর প্রতিনিধি  | প্রকাশিত ০৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:১০:০০

নওয়াপাড়ায় নৌযান শ্রমিকদের কর্মবিরতির দ্বিতীয়  দিনে প্রতিবাদ সভা : ব্যবসা-বাণিজ্যে স্থবির

নওয়াপাড়ায় নৌযান শ্রমিকদের কর্মবিরতির দ্বিতীয় দিনে শিল্প-বাণিজ্য নগরী নওয়াপাড়ায় ব্যাংক লেনদেন অর্ধেকে নেমে এসেছে। চার শতাধিক ঘাটে লোড আন লোডের কাজ বন্ধ রয়েছে।  বন্দরে অবস্থানকৃত ৩শ’৩৬টি নৌযানের তিন হাজার শ্রমিক-কর্মচারী বেকার বসে আছে। অপর দিকে ঘাটে লোড আনলোডের কাজে কর্মরত প্রায় ১৫ হাজার হ্যান্ডলিং শ্রমিকের কাজে ভাটা পড়েছে। বিষয়টি দ্রুত নিস্পত্তির জন্য প্রশাসন ব্যাপক তৎপরতা চালাচ্ছে। বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের নের্তৃবৃন্দরা জানান, কর্মবিরতি পালনের দ্বিতীয় দিন বুধবার সকাল ১১টায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিনুরজ্জামান তাদের সাথে বৈঠক করেছেন। বৈঠকে তাদের দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাস দেন। আজ বৃহস্পতিবার খুলনায় অভ্যান্তরিন নৌ পরিবহন মালিক সমিতির দপ্তরে এ বিষয়ে বৈঠকে হবে। বৈঠক ফলপ্রসু হলে কর্মবিরতি স্থগিত হবে বলে নের্তৃবৃন্দ আশাবাদ ব্যক্ত করেন। কর্মবিরতির দ্বিতীয় দিনেও শ্রমিকেরা তাদের নওয়াপাড়া অফিস মিলনায়তনে প্রতিবাদ সভা করেছেন। বাংলাদেশ লঞ্চ লেবার এসোসিয়েশনের খুলনা শাখার যুগ্ম সম্পাদক মাস্টার ফারুক হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তৃতা করেন কেন্দ্রীয় নেতা বাহারুল ইসলাম বাহার, নওয়াপাড়া শাখার সদস্য সচিব নিয়ামুল ইসলাম রিকো, মাস্টার হাসান আলী, জামাল হোসেন , ইলিয়াজ হোসেন, মোস্তফা মাষ্টার, হানিফ ড্রইভার প্রমুখ। 
অভয়নগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: শাহিনুজ্জামান জানান, নৌযান শ্রমিক নের্তৃবৃন্দের সাথে বুধবার সকালে বৈঠক হয়েছে। বৈঠকে তাদের দাবি মেনে নেয়া হয়েছে। এ জন্য নওয়াপাড়া নৌ বন্দর কর্মকতাকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার খুলনায় নৌ পরিবহন মালিক সমিতির দপ্তরে বৈঠকের পর আন্দোলন স্থগিত হবে বলে তিনি সংবাদিকদের জানান। 
অভয়নগর থানার অফিসার ইনচার্য আলমঙ্গীর হোসেন জানান, আমরা এক জন ছিনতাইকারীকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছি। এধরনের ঘটনা যাতে আর না ঘটে সে জন্য পুৃলিশ প্রশাসন ব্যপক তৎপর রয়েছে। এদিকে দুই দিনের কর্মবিরতি পালনে শিল্প বাণিজ্য নগর নওয়াপাড়া মোকামে সরা, খাদ্য শষ্য ও কয়লার বেচা কেনায় ভাটা পড়েছে। ব্যবসায়িরা জানিয়েছেন, বেচা কেনা অর্ধেকে নেমে এসেছে। 
বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি বাহারুল ইসলাম বাহার জানান, আগামী তিনদিনের মধ্যে এসব দাবি মানা না হলে খুলনা নৌবন্দর ও মোংলা সমুদ্র বন্দরসহ দেশের সকল বন্দরে একযোগে কর্মবিরতি পালন করা হবে। 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ