খুলনা | সোমবার | ২৫ মার্চ ২০১৯ | ১০ চৈত্র ১৪২৫ |

নকলমুক্ত সুষ্ঠু পরীক্ষাই সবার কাম্য

১৮ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:১০:০০

নকলমুক্ত সুষ্ঠু পরীক্ষাই সবার কাম্য

আজ থেকে সারাদেশে একযোগে শুরু হচ্ছে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা। কোমলমতি শিশু শিক্ষার্থীদের উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের যা প্রথম ধাপ। পাঁচটি বছর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়া শেষ করে শিশু শিক্ষার্থীরা এ পাবলিক পরীক্ষায় বসছে। এ বছর আয়োজিত পরীক্ষায় এমসিকিউ (বহুনির্বাচনী প্রশ্ন) থাকছে না। শিশুদের এ পাবলিক পরীক্ষায় এমসিকিউ বদলে ছোট-বড় প্রশ্ন করা হবে। ফলে শতভাগ লিখিত প্রশ্নের আলোকে এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। প্রশ্নপত্র ফাস ঠেকাতে সংশ্লিষ্ঠ মন্ত্রনালয় এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এছাড়া শিক্ষানীতি অনুযায়ী শতভাগ সৃজনশীল প্রশ্নে পরীক্ষা আয়োজন ও প্রশ্ন বিতরণে সফটওয়্যারের মাধ্যমে ছয় সেট প্রশ্নের বদলে আট সেট তৈরি করা হয়েছে। 
সারা দেশের ন্যায় খুলনায়ও এবার ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম দিন ইংরেজি পরীক্ষা। খুলনায় এ বছর প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনীতে ১২০টি কেন্দ্রে অংশ নিচ্ছে ৩৭ হাজার ২শ’ ৫৮ জন পরিক্ষার্থী। এর মধ্যে প্রাথমিকে ৩৩ হাজার ৬শ’ ৩৪ জন এবং ইবতেদায়ীতে ৩ হাজার ৬শ’ ২৪ জন। প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনীতে ছাত্র ১৫ হাজার ৮শ’ ১৬ জন ও ছাত্রী ১৭ হাজার ৮শ’ ১৮ জন এবং ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনীতে ছাত্র ১ হাজার ৮শ’ ৭৪ জন ও ছাত্রী ১ হাজার ৭শ’ ৫০ জন। 
প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা উচ্চ শিক্ষা গ্রহণের প্রাথমিক ধাপ। এ ধাপ পেরোতে শিশু শিক্ষার্থীরা বিগত ৫ বছর ধরে কঠোর অধ্যাবসায় করেছে। আর সরকার তথা সংশ্লিষ্ট প্রশাসন নকলমুক্ত শুষ্ঠু পরিবেশে পরীক্ষা গ্রহণে আন্তরিক। কিন্তু বিগত কয়েক বছর বিভিন্ন পাবলিক পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসের যে প্রবণতা লক্ষ করা গেছে তা থেকে বাদ যায়নি শিশু শিক্ষার্থীদের এ পরীক্ষাও। তবে প্রশ্ন ফাঁস রোধে সরকার এবার যে নতুন পদ্ধতি গ্রহণ করেছে তাতে ইতিবাচক ফলাফল মিলবে বলে আমরা আশা রাখি। শুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর পরিবেশে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের প্রথম পাবলিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হোক এমনটিই আমাদের প্রত্যাশা।
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ