খুলনা | রবিবার | ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২ পৌষ ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

অস্ত্র-গুলি ও প্রাইভেটকার জব্দ

ডিবি পরিচয়ে মহাসড়কে ডাকাতি প্রস্তুতিকালে রূপসায় গ্রেফতার ১০ 

নিজস্ব প্রতিবেদক | প্রকাশিত ১৭ নভেম্বর, ২০১৮ ০১:২০:০০

খুলনার রূপসা উপজেলার কুদির বটতলা মোড় এলাকায় ভূয়া ডিবি পুলিশ পরিচয়ে মহাসড়কে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এরা সকলে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সদস্য। এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি ৭.৬৫ পিস্তল, ৩ রাউন্ড পিস্তলের গুলি, ৩টি পি-শাটারগান, ৭টি ডিবিরি কোটি, ৪টি পুলিশের ভুয়া আইডি, ৩টি পিস্তলের কভার, ৪টি টর্চ লাইট, ৪টি বাঁশি, ১ জোড়া হ্যান্ড ক্যাপ, ২টি ডিবি পুলিশ লেখা লেমোনেটিং কার্ড ও একটি প্রাইভেটকার উদ্ধার করা হয়। গতকাল শুক্রবার এ ঘটনায় পৃথকভাবে দু’টি মামলা দায়ের করা হয়েছে (নং-১৫ ও ১৬)। এর আগে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত পৌনে ১১টার দিকে খুলনা জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)’র অভিযানে তাদের গ্রেফতার করা হয়। অভিযানকালে একটি কাল রংয়ের মাইক্রোসহ ডাকাত দলের ৪/৫ জন পালিয়ে গেছে বলে ডিবি পুলিশের সূত্র জানায়। 
গ্রেফতারকৃত ডাকাত সদস্যরা হলেন খুলনার ডুমুরিয়ার রাজাপুর এলাকার আমজাদ গাজীর ছেলে মোঃ রিপন গাজী (৩০) ও দাকোপের গুনারী মধ্যপাড়ার মোক্তার আলীর ছেলে (জিরো পয়েন্ট আফজালের বাড়ির ভাড়াটিয়া) মোঃ আলমগীর হোসেন (৩২), মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার মৃত আঃ আজিজ চৌধুরীর ছেলে মোঃ রাজ্জাক চৌধুরী (৩৩) ও মাসুম ওরফে ফারুক চৌধুরী (৩৮), রাজেক মিয়ার ছেলে মোঃ সোহেল ওরফে রাহেজ ওরফে হারেজ (৩৪), কিশোরগঞ্জের তারাইল উপজেলার মৃত আফতাব উদ্দিনের ছেলে আরিফুজ্জামান ওরফে শরীফ (৩৮), রাজবাড়ী আলাদীপুরের মৃত হযরত মিয়ার ছেলে সাগর মিয়া (৪০), জামালপুর শরিষাবাড়ীর আঃ মান্নান মন্ডলের ছেলে মোঃ হিরা মিয়া (৩৫), টাঙ্গাইলের নাগরপুরের মৃত মোশারফ হোসেনের ছেলে মোঃ আনিসুর রহমান (২৫), ও গাজীপুর জাজর এলাকার মৃত জবেদ আলীর ছেলে গফুর আলী (৩৮)।  
জেলার পুলিশ সুপার এসএম শফিউল্লাহ শুক্রবার প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত পৌনে ১১টার দিকে খানজাহান আলী সেতু বাইপাস সড়কের কুদির বটতলা মোড় এলাকায় একটি আন্তুঃজেলা ডাকাত দলের সংঘবদ্ধ দল ডাকাতির প্রস্তুতি করছিল। এ সময় ওসি ডিবি তোফায়েল আহমেদের নেতৃত্বে জেলা ডিবি খুলনার পুলিশ পরিদর্শক সেখ কনি মিয়া, পুলিশ পরিদর্শক মোঃ কামরুজ্জামান, এসআই মুক্ত রায় চৌধুরী অভিযান পরিচালনা করে তাদেরকে গ্রেফতার করেন। 
গ্রেফতারকৃত আসামিদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানায়, দেশের বিভিন্ন জেলায় তারা ডাকাতি করে থাকে। আন্তঃজেলা ডাকাত দলের এ সদস্যদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের বিভিন্ন থানায় হত্যা, ডাকাতির প্রস্তুতি, পুলিশ/র‌্যাব পরিচয়ে ছিনতাই, চাঁদাবাজি, চুরিসহ বিভিন্ন মামলা রয়েছে। অভিযানের সময় পালিয়ে যাওয়া মাইক্রোর সন্ধানসহ অন্যান্যদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও জানা তিনি। 
 

বার পঠিত

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ