খুলনা | রবিবার | ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২ পৌষ ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

আমরা ক্ষমতাসীন দল, আমরা যেটা চাইব না ইসি সেটা করবে কী করে, প্রশ্ন কাদেরের

খবর প্রতিবেদন | প্রকাশিত ১৬ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:৪৩:০০

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বিএনপি’র মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের প্রতি প্রশ্ন রেখে বলেছেন, “প্রতিটি নির্বাচনের আগেই প্রতিটি দল ও জোট একজনকে প্রধানমন্ত্রী করার টার্গেট নিয়ে নির্বাচনী যুদ্ধে নেমে পড়ে। আমাদের ‘পিএম ভ্যালু’ আছে। আপনাদের ‘পিএম ভ্যালু’ কে?” বৃহস্পতিবার দুপুরে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমাদের দল ও জোটের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী হবেন শেখ হাসিনা। আপনাদের দল ও জোটের পক্ষ থেকে কে হবেন প্রধানমন্ত্রী? আমাদের পিএম ভ্যালু হচ্ছেন শেখ হাসিনা। আপনাদের কে?’ ওবায়দুল কাদের বলেন, ঐক্যফ্রন্ট ভোটে জয়ী হয়ে সরকার গঠনের সুযোগ পেলে তাদের প্রধানমন্ত্রী কে হবেন, তা তারা এখনো খোলাসা করেনি। তাদের প্রধানমন্ত্রী কি ড. কামাল হোসেন হবেন? নাকি তারেক রহমান হবেন। তা এখনো পরিষ্কার নয়। আমি এ প্রশ্নটি মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের কাছে রাখলাম।’
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমরা বারবার বলছি, এবারের নির্বাচন আমাদের জন্য খুব সহজ নয়। এটি আমাদের দলের নেতা-কর্মীদের কাছে পৌঁছানো হয়েছে। যাঁরাই আমাদের প্রার্থীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহী প্রার্থী হবেন, তাঁরা আজীবনের জন্য আমাদের দল থেকে বহিষ্কার হবেন।’
নির্বাচন পেছানোর বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমরা এক ঘণ্টাও নির্বাচন পেছানোর পক্ষে নই। আমরা ক্ষমতাসীন দল। আমরা যেটা চাইব না, নির্বাচন কমিশন সেটা করবে কী করে? ঐক্যফ্রন্ট চাইলেই নির্বাচন পেছাতে হবে, এমন কোনো কথা নেই। ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচন পেছাতে চাইছে নির্বাচন বানচাল করার জন্য। এটা করতে দেওয়া হবে না।’
রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপি’র কার্যালয়ের সামনে নেতা-কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘাতের ঘটনাকে ‘টেস্ট কেস’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।
সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘নির্বাচন চাইলে অবশ্যই বিএনপিকে সংঘাতের পথ পরিহার করতে হবে। বিএনপি নির্বাচনের জন্য নয়, বরং নির্বাচন বানচালের জন্য ষড়যন্ত্র করছে। দীর্ঘদিন ধরে তারা নির্বাচন বানচালের জন্য ব্লু-প্রিন্ট করে আসছিল।’
বিএনপি’র মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের উদ্দেশ্যে আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘তিনি একজন সজ্জন ব্যক্তি। এখন দেখছি তিনিও মিথ্যা কথা বলেন। নয়াপল্টনে পুলিশের গাড়িতে ছাত্রলীগ আগুন দিয়েছে বলে যে অভিযোগ তিনি করেছেন, সেটা শুধু দেশবাসীই নয়, বিএনপি’র লোকজনও বিশ্বাস করবে না। কোনো অপশক্তিই নির্বাচন বানচাল করতে পারবে না।’ 
‘কারাগারে বন্দী রেখে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড হয় না’, খালেদা জিয়ার এমন বক্তব্যের বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘খালেদা জিয়া বন্দী আছেন আদালতের রায়ের মাধ্যমে, এখানে সরকারের কিছু করার নেই।’
ধানমণ্ডিতে আ’লীগ সভানেত্রীর কার্যালয়কে কেন্দ্র করে ওই এলাকায় রাস্তা বন্ধ করে মনোনয়ন কিনেছেন আ’লীগের নেতারা এবং মোহাম্মদপুরে আ’লীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দলে দু’জন মারা গেছেন, সে ঘটনায় পুলিশ ও নির্বাচন কমিশন কোনো ভূমিকা নেয়নি।
এ ব্যাপারে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘ওই ঘটনা আর নয়াপল্টনের ঘটনা এক করে দেখার কোনো সুযোগ নেই। মোহাম্মদপুরের আদাবর এলাকার ওই ঘটনা আমরা তদন্ত করছি। এ নিয়ে প্রশ্ন করা অবান্তর।’ সূত্র : এনটিভি। 

বার পঠিত

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ

ড. কামাল হোসেনের  দুঃখ প্রকাশ

ড. কামাল হোসেনের  দুঃখ প্রকাশ

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:৪০













ব্রেকিং নিউজ