খুলনা | রবিবার | ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২ পৌষ ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

খালিশপুরে তালাক দেয়া স্ত্রীকে তুলে নিতে  ব্যর্থ হয়ে মা-বাবাকে পিটিয়ে জখম 

নিজস্ব প্রতিবেদক | প্রকাশিত ১৫ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:৫৭:০০

খালিশপুরে তালাক দেয়া স্ত্রীকে তুলে নিতে  ব্যর্থ হয়ে মা-বাবাকে পিটিয়ে জখম 


খালিশপুরে তালাক দেয়া স্ত্রীকে জোরপূর্বক তুলে নিতে ব্যর্থ হয়ে মেয়েটির মা-বাবাকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল মঙ্গলবার কেসিসি’র ১৩নং ওয়ার্ডের ২নং নেভীগেট পোর্ট রোড দত্তপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মেয়েটির পিতা মোঃ এখলাসুর রহমান বাদী হয়ে খালিশপুর থানায় ৫ জনের নামে লিখিত অভিযোগ করেছেন। 
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, এখলাসুর রহমানের কন্যা মুক্তা বেগমের (১৯) সাথে একই এলাকার কবির মোল্লার পুত্র সুজন মোল্লার (২৩) চলতি বছরের ২৪ ফেব্র“য়ারি বিয়ে হয়। বিয়ের পর মুক্তা বেগমকে শারীরিক ও মানষিক নির্যাতন চালায় শ্বশুর বাড়ির লোকজন। এক পর্যায়ে গত ১৪ অক্টোবর মুক্তা বেগম সুজন মোল্লাকে তালাক দেয়। এতে সে ক্ষিপ্ত হয়ে মুক্তা বেগমকে খুঁজতে থাকে। সুজন মোল্লার ভয়ে মুক্তার পরিবার তাকে খুলনা পলিটেকনিক কলেজের সামনে তার ফুফুর বাড়ি রেখে আসে। এ সংবাদ পেয়ে সুজন গত মঙ্গলবার কয়েকজন সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে মুক্তার ফুফুর বাড়ি থেকে মুক্তাকে তুলে আনতে যায়। সেখানে মুক্তাকে না পেয়ে নেভীগেটে মুক্তাদের বাড়িতে খুঁজতে আসে সুজন। সেখানেও না পেয়ে সন্ত্রাসীরা মুক্তার পিতা এখলাসুর রহমান ও মাতা রেবা বেগমকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করে। পার্শ্ববর্তী লোকজন তাদের উদ্ধার করে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে ভর্তি করে। এ ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ করার পর খালিশপুর থানার ওসি সরদার মোশারেফ হোসেন কালিবাড়ি পুলিশ ফাঁড়ির ইনর্চাজ এস আই মোঃ রফিকুল ইসলামকে তদন্তের নির্দেশ দেন। এস আই রফিকুল ইসলাম জানান, বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ