খুলনা | রবিবার | ১৮ নভেম্বর ২০১৮ | ৪ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

তালিকাভুক্ত অপরাধীদের গ্রেফতার অভিযান শুরু 

নগরীসহ জেলার সম্ভাব্য প্রার্থীদের প্যানা ফেস্টুন তোরণ অপসারণের নির্দেশ

সোহাগ দেওয়ান | প্রকাশিত ১০ নভেম্বর, ২০১৮ ০১:২০:০০

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে খুলনার ৬টি আসনে অংশগ্রহণকারী সম্ভাব্য প্রার্থীদের প্রচারণায় ব্যবহৃত সকল প্রকার পোস্টার, ব্যানার, ফেস্টুন, প্যানা, তোরণসহ আলোকসজ্জা অপসারণের নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন। খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন গতকাল শুক্রবার এ আদেশ দিয়েছেন। আগামী ১৫ নভেম্বর রাত ১২টার মধ্যে এ আদেশ কার্যকর করতে খুলনা সিটি কর্পোরেশন, সকল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও মহানগর-জেলার সকল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি)-দের নির্দেশ দিয়েছেন। এদিকে নগরী ও জেলায় তালিকাভূক্ত অপরাধীদের ওপরে গোয়েন্দা নজরদারী আরও বেশি জোরদার করা হয়েছে। এ এলাকার অবৈধ অস্ত্রধারী, চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী, জঙ্গিদের গ্রেফতারে ইতোমধ্যে অভিযান শুরু হয়েছে বলে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়।
গত ৮ নভেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকে খুলনা নগরীসহ জেলায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যাপক মহড়া দেখা যাচ্ছে। র‌্যাপিড এ্যাকশান বাটালিয়ান (র‌্যাব)-৬, খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ (কেএমপি) ও জেলা পুলিশসহ আনসার ব্যাটালিয়ানের সদস্যরা বিভিন্ন মোড়সহ গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় মহড়া দিচ্ছেন। নির্বাচনকে ঘিরে কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা প্রতিহত করতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর এ তৎপরতা অব্যাহত থাকবে বলে জানা গেছে। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত নগরীতে র‌্যাব, পুলিশের টহল গাড়ি বিভিন্ন রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছে। এছাড়া নগরীর গুরুত্বপূর্ণস্থান ও বিভিন্ন মোড়ে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত উল্লেখ্যযোগ্য পরিমানে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা অবস্থান নিচ্ছেন।
খুলনার জেলা প্রশাসক ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার মোহাম্মদ হেলাল হোসেন জানান, গতকাল খুলনার ৬টি আসনে অংশগ্রহণকারী সম্ভাব্য প্রার্থীদের প্রচারণায় ব্যবহৃত সকল প্রকার পোস্টার, ব্যানার, ফেস্টুন, প্যানা, তোরণসহ আলোকসজ্জা অপসারণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। কেসিসি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, খুলনার সকল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও কেএমপি এবং জেলা পুলিশের সকল থানার ওসিদের চিঠির মাধ্যমে আদেশ কার্যকরের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। নির্বাচন কমিশন সচিবের মুঠোফোন বার্তা পেয়ে গতকাল দ্রুত সময়ের মধ্যে এ আদেশ দেয়া হয় বলেও জানান তিনি। 
এ বিষয়ে র‌্যাব-৬’র উপ-অধিনায়ক মেজর শামীম সরকার জানান, খুলনাসহ র‌্যাব-৬’র আওতাধীন ৯ জেলায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। নির্বাচনকে সামনে রেখে অবৈধ অস্ত্রধারী, সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে বিশেষ অভিযান ও টহল শুরু হয়েছে। র‌্যাব-৬ খুলনা ক্যাম্প থেকে প্রতিদিন ১২টি টিম নগরীতে টহল দিচ্ছে। তালিকাভূক্ত অপরাধীদের অবস্থান সনাক্তকরণের জন্য গোয়েন্দা টিম মাঠে কাজ করছে। তাছাড়া আইন-শৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে র‌্যাব প্রস্তুত রয়েছে বলেও জানান তিনি। 
জেলার পুলিশ সুপার এস এম শফিউল্লাহ জানান, খুলনা জেলার সকল থানায় নিয়োজিত পুলিশ সদস্যরা কঠোরভাবে দ্বায়িত্ব পালন করছেন। জেলার তালিকাভূক্ত অপরাধীদের গ্রেফতার অভিযান অব্যহত রয়েছে। এছাড়া যে কোন প্রকার সহিংসতা রোধে জেলা পুলিশ সতর্ক অবস্থানে রয়েছে বলে তিনি জানান।  
খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার মোঃ হুমায়ুন কবির পিপিএম বলেন, কেএমপি এলাকায় অনেক আগে থেকেই অবৈধ অস্ত্রধারী ও তালিকাভূক্ত অপরাধীদের গ্রেফতার অভিযান চলছে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় কেএমপি’র সকল প্রকার কার্যক্রম বৃদ্ধি করা হয়েছে।  
 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ