নগরীতে ই-ট্রাফিক প্রসিকিউশন ও জরিমানা পরিশোধ পদ্ধতির যাত্রা শুরু



খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগে ই-ট্রাফিক প্রসিকিউশন ও জরিমানা পরিশোধ পদ্ধতির যাত্রা শুরু হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে নগরীর শিববাড়ী মোড়ে ই-ট্রাফিক প্রসিকিউশন ও জরিমানা পরিশোধ পদ্ধতির উদ্বোধন করেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক। নগরীর বিভিন্ন ট্রাফিক পয়েন্টে এখন থেকে মেশিনের সাহায্যে মামলা হবে এবং নিকটবর্তী UCash চিহ্নিত দোকান থেকে কেস স্লিপটি দেখিয়ে ফিস সহজেই পরিশোধ করা যাবে।
কেএমপি’র ট্রাকিক বিভাগ জানায়, আগে মামলার কাগজপত্র সংরক্ষণ করতে হতো, কর্মঘন্টা নষ্ট করে ট্রাফিক অফিসে যেতে হতো, অফিসে লম্বা লাইনে দাঁড়ায়ে থাকতে হতো, জব্দকৃত কাগজপত্র ট্রাফিক অফিসে রাখা হতো, দেশের যে ইউনিটে মামলা হয় সেখানে যেতে  হতো। কিন্তু এখন মামলার কাগজপত্র সংরক্ষণ করা কর্মঘন্টা নষ্ট করে ট্রাফিক অফিসে যাওয়া, অফিসে লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা লাগবে না। এছাড়া জব্দকৃত কাগজপত্র পেমেন্টের সাথে সাথে ফেরতসহ দেশের যে কোন স্থানেই টাকা জমা দেয়া যাবে। 
কেস ফি প্রদান করার পর চালকের মোবাইলে একটি এসএমএস আসবে। UCash চিহ্নিত দোকান থেকে কেস স্লিপ দেখিয়ে ফিস সহজেই পরিশোধ করা যাবে। এসএমএসটি সংশ্লিষ্ট সার্জেন্টকে দেখানোর পর তিনি মেশিনে চেক করে সাথে সাথেই চালকের জব্দকৃত কাগজপত্র ফেরত দিবেন। ট্রাফিক অফিস থেকে জরিমানা পরিশোধ করার তথ্য দেখিয়ে অথবা কুরিয়ার সার্ভিস এর মাধ্যমে জব্দকৃত কাগজপত্র পাওয়া যাবে, তবে এ ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কুরিয়ার সার্ভিস ফি গ্রাহককে প্রদান করতে হবে। UCash পয়েন্ট থেকে কেস ফি ১৫ টাকা অথবা নিজের মোবাইলে UCash থাকলে কেস ফি  ১০ টাকা ব্যাংক ট্রান্সাকশন ফি ৯৭%।  


footer logo

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত।

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।