খুলনা | সোমবার | ১৯ নভেম্বর ২০১৮ | ৫ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

রূপসা নদীর দু’পাড়ে এক কিলোমিটার জুড়ে চর

খানজাহান আলী ব্রীজের নীচে দিয়ে সতর্কভাবে নৌযান চলাচলে পরামর্শ বিআইডব্লিউটিএ’র

নিজস্ব প্রতিবেদক | প্রকাশিত ২৩ অক্টোবর, ২০১৮ ০১:৩০:০০

খানজাহান আলী ব্রীজের নীচে দিয়ে সতর্কভাবে নৌযান চলাচলে পরামর্শ বিআইডব্লিউটিএ’র


রূপসা নদীর ওপর খানজাহান আলী ব্রীজের দু’পাড়ে এক কিলোমিটার এলাকা জুড়ে রূপসা নদীতে চর পড়েছে। এ ব্রীজের নীচ দিয়ে চলাচলের সময় নৌ-যানগুলোকে সতর্কতার অবলম্বন করতে পরামর্শ দিয়েছে বিআইডব্লিউটিএ। ব্রীজের চার ও পাঁচ নম্বর পিলারের মধ্যদিয়ে নদীর স্রোতের গতিবিধি দেখে ওয়ানওয়ে পদ্ধতিতে নৌযানগুলোকে চলাচল করতে হবে। স্থানীয় বিআইডব্লিউটিএ গত মাসে নৌ-মন্ত্রণালয়ে পাঠানো এ অঞ্চলের নদ-নদীর সম্পর্কিত প্রতিবেদনে এ তথ্য তুলে ধরেন। প্রসঙ্গত, জাপান সরকারের ঋণ মওকুফ অনুদানের সহায়তায় নির্মিত এ ব্রীজ ২০০৫ সালের ২১ মে উদ্বোধন হয়েছিল।
প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, যদি নদীর প্রবল স্রোতের চেয়ে নৌযানের ইঞ্জিনের ক্ষমতা কম হয় তাহলে নদীর স্রোত না হওয়া পর্যন্ত ব্রীজ অতিক্রম করতে পারবে না। 
বিআইডব্লিউটিএ’র পরিদর্শক মোঃ আব্দুর জলিল জানান, ব্রীজ সংলগ্ন রূপসা নদীর পূর্বপাড়ের লকপুর ফিস থেকে জাবুসা পর্যন্ত এবং পশ্চিম পাড়ে খান এ সবুরের বাগানবাড়ি থেকে পুঁটিমারি পর্যন্ত চর জেগেছে।
বিআইডব্লিউটিএ পশ্চিম ব-দ্বীপ শাখার যুগ্ম-পরিচালক এসএম ছানোয়ার হোসেন জানান,  খর স্রোত এ নদীতে জোয়ার ও ভাটা উভয় সময়ই ব্রীজের ভায়াডাক্টের স্প্যানে পলি জমা হচ্ছে। প্রতিনিয়ত নাব্যতা হ্রাস পাচ্ছে। প্রয়োজনের তাগিদে খননের উদ্যোগ নিতে হবে।
খুলনা চেম্বাস অব কমার্স এ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ সভাপতি কাজি আমিনুল হক অর্থ মন্ত্রণালয়ের সচিবের কাছে লেখা একপত্রে মোংলা বন্দর থেকে পণ্য আনা নেয়ার সুবিধার্থে নওয়াপাড়া থেকে যশোর নদী পর্যন্ত ড্রেজিং, বটিয়াঘাটা, শিরোমনি, ফুলতলা, নওয়াপাড়া নদীতে ড্রেজিং এবং  মোংলা বন্দরের ফেয়ারবয়া, পশুর নদী ও মোংলা ক্রিক নিয়মিত ড্রেজিং করার জন্য স্থায়ী ড্রেজিং বহর ক্রয়ের লক্ষে অর্থ বরাদ্দ দাবি করেন কাজী আমিন।
নৌ পরিবহন মালিক গ্র“পের মহাসচিব ওয়াহিদুজ্জামান খান পল্টু বার্ষিক সাধারণ সভার প্রতিবেদনে উল্লেখ করেন, নওয়াপাড়া, ফুলতলা, শিরোমণি ও খুলনায় ড্রেজিং করা হলে নৌযান চলাচল ও খালাসে অসুবিধা দূর হবে। ফেয়ারওয়েতে আউটার বার ড্রেজিং-এর জন্য ৯৩০ কোটি টাকার প্রকল্পের কাজ শেষ হলে ৪০ হাজার মেট্রিকটন পণ্যবাহী জাহাজ সরাসরি মোংলা বন্দরে আসতে পারবে। ফলে, একদিকে যেমন মোংলা বন্দর গতিশীল হবে অপর দিকে দক্ষিণাঞ্চলে কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি ও অর্থনীতি অবস্থার উন্নতি হবে। 
নদী গবেষক ফারুক আহমেদ বলেন, ব্রীজ নির্মাণের সময় আধুনিক টেকনোলজি প্রয়োগ না করায় ব্রীজের নীচে বালুর স্তুুপ হচ্ছে। প্রতিনিয়ত নাব্য হ্রাস পাচ্ছে। ভবিষ্যৎ নদী মারা যেতে পারে। তখন দক্ষিণাঞ্চলের অর্থনীতি বাণিজ্যে ক্ষতিগ্রস্ত হবে।
লঞ্চ লেবার এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোঃ আকবর আলী জানান, মোংলা থেকে সতর্কতার সাথে মালবাহী নৌ-যানগুলোকে নওয়াপাড়া আসতে হয়। নিউজপ্রিন্ট মিলস্ সংলগ্ন চরের হাট এলাকায় ও চর জেগেছে। ভাটার সময় ফুলতলা থেকে চেংগুটিয়া পর্যন্ত নৌযান প্রবেশ করতে পারে না। তেলের ট্রাংকারগুলো খালিশপুরে অবস্থান করতে পারে না।
কার্গো এমভি রাসেল-৫ এর চালক জহুরুল ইসলাম বাবু জানান, মোংলা থেকে নওয়াপাড়া পর্যন্ত দীর্ঘ নৌপথে দিগরাজ, চালনা, বৈটাখালী, পুঁটিমারী, খানজাহান আলী ব্রীজের নীচে, ফুলতলা, নাপিতখালী ও শিরোমনি এলাকায় চর জেগেছে। মাল বোঝাই কার্গো নিয়ে ইঞ্জিনের গতি কমিয়ে খানজাহান আলী সেতু অতিক্রম করতে হয়। চরের কারণে ভাটার সময় মোংলা থেকে খুলনা পর্যন্ত আসতে নৌযানের ১২ ঘন্টা সময় লাগে আর জোয়ারের সময় সাড়ে ৩ ঘন্টায় পৌঁছায়।
সূত্রমতে, এক হাজার ৩০০ মিটার দৈর্ঘ্য এবং ১৬ দশমিক ৪৮ মিটার প্রস্থ খানজাহান আলী (রহঃ) ব্রীজটি উদ্বোধন হয় ২০০৫ সালের ২১ মে। মূল সেতুতে সাতটি এবং ভায়াডাকটে ২৪টি স্প্যান রয়েছে। সেতুর পাঁচটি স্প্যানে প্রতিটি ১০০ মিটার এবং দুই প্রান্তের স্প্যান দু’টি প্রতিটির দৈর্ঘ্য ৭০ মিটার। জাপান সরকারের ঋণ মওকুফ অনুদান সহায়তায় ৭২৪ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হয়। তার মধ্যে সেতু অংশের জন্য ৬০৬ কোটি টাকা এবং ৮ দশমিক ৬৮ কিলোমিটার  জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম সড়কের জন্য ১১৭ কোটি টাকা ব্যয় হয়। জামান ব্যাংক ফর ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন সেতুটি নির্মাণে আর্থিক সহায়তা করেন। মোট টাকার মধ্যে যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের বিনিয়োগ ছিল ২৬৫ কোটি টাকা।

বার পঠিত

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ

খুলনায় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ৩ জনের

খুলনায় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ৩ জনের

১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ০১:০০













ব্রেকিং নিউজ

খুলনায় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ৩ জনের

খুলনায় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ৩ জনের

১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ০১:০০








খালেদা জিয়াকে  নিয়ে বই প্রকাশ

খালেদা জিয়াকে  নিয়ে বই প্রকাশ

১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:৫০



এইডস ঝুঁকিতে খুলনাসহ ২৩ জেলা

এইডস ঝুঁকিতে খুলনাসহ ২৩ জেলা

১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:৪৮