খুলনা | সোমবার | ১৯ নভেম্বর ২০১৮ | ৫ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

সাতক্ষীরায় মুক্তিপণের দাবিতে অপহৃত  যুবক উদ্ধার : ৫ অপহরণকারী গ্রেফতার 

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি | প্রকাশিত ১৯ অক্টোবর, ২০১৮ ০১:০০:০০

সাতক্ষীরায় মুক্তিপণের দাবিতে অপহৃত  যুবক উদ্ধার : ৫ অপহরণকারী গ্রেফতার 

সাতক্ষীরায় ৩০ হাজার টাকা মুক্তিপণের দাবিতে মাহবুবুর রহমান নামে এক যুবককে অপহরণের ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল বৃহস্পতিবার ভোর রাতে নিজ নজি বাড়ি থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এর আগে গত বুধবার দুপুরে সাতক্ষীরা জেলা কারাগারের প্রধান ফটকের সামনে থেকে ওই যুবককে অপহরণের পর মুক্তিপণের ৬ হাজার টাকা দিয়ে দেবহাটার পারুলিয়া এলাকা থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। 
অপহরণের শিকার মোঃ মাহবুবুর রহমান (২৮) জেলার শ্যামনগর উপজেলার সৈয়দ আলীপুর গ্রামের মোঃ সামছুর গাজীর ছেলে। আটককৃতরা হলো শহরের কামালনগর এলাকার আবু সাইদ (৩০), রাজু (২৭) ও আল আমিন হোসেন ওরফে জুয়েল (২৮), সদর উপজেলার দৌলতপুর গ্রামের আজিজুর রহমান বাবু (৩২) এবং শ্যামনগর উপজেলার রামজীবনপুর গ্রামের শেখ ওসমান (২৯)। 
অপহরণের শিকার মাহবুবুর রহমান জানান, সাতক্ষীরা কারাগারে আটক এক নিকট আত্মীয়কে দেখতে গত বুধবার দুপুরের দিকে তিনি সেখানে যান। কারাগারের প্রধান ফটকের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থায় শ্যামনগরের রামজীবনপুর গ্রামের শেখ ওসমানের সাথে তার দেখা হয়। এ সময় ওসমান তাকে চা খাওয়ার কথা বলে পাশের একটি দোকানে নিয়ে যায়। চায়ের দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থায় দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তিনটি মোটরসাইকেলে ৮/৯ জন লোক এসে তাকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে যায়। পরে সাতক্ষীরা বাইপাস সড়কের পশ্চিম পাশের একটি মাছের ঘেরের বাসায় নিয়ে তাকে মারপিট শুরু করে এবং বাড়িতে স্ত্রীর কাছে ফোন করে ৩০ হাজার টাকা আনতে বলে। পরে সন্ধ্যায় তাকে সংগ্রাম টাওয়ারে এনে রাখা হয়। সেখানে মুক্তিপণের টাকার দাবিতে তাকে বেদম মারপিট করে তারা। এ সময় তাদের ব্যবহৃত দু’টি মোবাইল থেকে আমার স্ত্রীর রহিমা খাতুনের কাছে ফোন করে দ্রুত টাকা বিকাশ করে দিতে বলে। না হলে অমাকে হত্যার হুমকি দেয়। এ সময় আমার বড় ভাই রশিদ গাজী বিকাশ করে তিন হাজার টাকা তাদেরকে দেয়।
মাহবুবের স্ত্রী রহিমা খাতুন বলেন, অপহরণকারিদের কথামত স্বামীকে ফিরে পাওয়ার জন্য সংগ্রাম টাওয়ার, খুলনা রোডের মোড় ও বাইপাস সড়কের কাছে গিয়ে না পেয়ে সন্ধ্যায় সাতক্ষীরা সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেই। এই অভিযোগের ভিত্তিতে থানার সহকারী পুলিশ পরিদর্শক নজরুল ইসলাম নিজের পরিচয় গোপন রেখে আমার স্বামীকে উদ্ধারের জন্য অপহরণকারিদের সাথে যোগাযোগ করতে শুরু করেন। এক পর্যায় তিনি নিজের মোবাইল থেকে ৩ হাজার টাকা বিকাশ করে অপহরণকারিদের দিয়ে বাকি টাকা পরে দেয়ার প্রতিশ্র“তি দিলে তারা আমার স্বামীকে ছেড়ে দেয়ার আশ্বাস দেয়। সেই অনুযায়ী রাত প্রায় ৯টার দিকে তারা আমার স্বামীকে একটি মহেন্দ্র থেকে পারুলিয়া বাসস্ট্যান্ডে নামিয়ে দিয়ে গেলে ভাসুর রশিদ গাজী তাকে উদ্ধার করে সদর থানায় নিয়ে আসেন।
সাতক্ষীরা সদর থানার সহকারী পুলিশ পরিদর্শক নজরুল ইসলাম বলেন, অভিযোগ পেয়ে ভিকটিমকে উদ্ধারের জন্য দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করি। মোবাইল ট্রাকিংয়ের মাধ্যমে তাদের অবস্থান নিশ্চিত হয়ে অপহরণকারিদের গ্রেফতারে সাঁড়াশি অভিযান চালাই। ইতিমধ্যে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আসামিদের কাছ থেকে ৩০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়েছে। তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। 
সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় রহিমা খাতুন বাদী হয়ে থানায় একটি অপহরণের মামলা দায়ের করেছেন। মাহবুবকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। ঘটনার সাথে আর কেউ জড়িত থাকলে তাদেরকেও দ্রুত গ্রেফতার করা হবে বলে ওসি জানান। 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ

খুলনায় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ৩ জনের

খুলনায় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ৩ জনের

১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ০১:০০













ব্রেকিং নিউজ

খুলনায় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ৩ জনের

খুলনায় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ৩ জনের

১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ০১:০০








খালেদা জিয়াকে  নিয়ে বই প্রকাশ

খালেদা জিয়াকে  নিয়ে বই প্রকাশ

১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:৫০



এইডস ঝুঁকিতে খুলনাসহ ২৩ জেলা

এইডস ঝুঁকিতে খুলনাসহ ২৩ জেলা

১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:৪৮