খুলনা | মঙ্গলবার | ১১ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২৭ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

খুলনায় একের পর এক ‘গায়েবি মামলা’ তবুও মনোবল দমছে না বিএনপি’র

আশরাফুল ইসলাম নূর | প্রকাশিত ০৯ অক্টোবর, ২০১৮ ০১:৩০:০০

দশ বছরে রাজনৈতিক মামলার জটে সম্প্রতি যোগ হয়েছে ‘গায়েবি মামলা’। কোন ঘটনাই ঘটেনি এমন সব অভিযোগে প্রায় প্রতিদিন কোনো না কোন থানায় মামলা দায়ের হচ্ছে। তাতেও মনোবল হারাচ্ছে না তৃণমূল বিএনপি নেতা-কর্মীরা। একদিকে মামলা, অন্যদিকে উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়ে নেতা-কর্মীদের নির্বাচনমুখী চাঙ্গা রাখার চেষ্টা করছেন খুলনা বিএনপি’র শীর্ষ নেতারা।
দলীয় সূত্র মতে, খুলনা মহানগর ও জেলায় বিএনপি নেতাত্বাধীন বিরোধী দল-মতের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে গত দশ বছরে প্রায় হাজার খানেক মামলা হয়েছে। এর মধ্যে সম্প্রতি যোগ হয়েছে নতুন আঙ্গিকের মামলা। কোন ঘটনাই ঘটেনি এমন সব ঘটনার কাল্পনিক বর্ণনা দিয়ে পুলিশ বাদী হয়ে গায়েবি মামলা করছে বলে অভিযোগ দলটির নেতা-কর্মীদের। প্রায় প্রতিদিন কোন না কোন থানায় দায়ের হচ্ছে এ ধরনের মামলা। সর্বশেষ, গত রবিবার খুলনা সদর থানায় সরকারি কাজে বাধা, স্বেচ্ছাকৃতভাবে আঘাত, ইজিবাইক ভাঙচুরের অভিযোগে এস আই আশরাফুল আলম বাদী হয়ে দায়ের করা মামলায় নগর যুবদল সভাপতি মাহাবুব হাসান পিয়ারু, সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হুদা চৌধুরী সাগর, গাজী সালাউদ্দিন, মহিউদ্দিন নয়ন, নগর ছাত্রদল সভাপতি শরিফুল ইসলাম বাবু, সাধারণ সম্পাদক হেলাল আহমেদ সুমন, সোনাডাঙ্গা থানা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান মুরাদ, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক আজিজা খানম এলিজাসহ ১০ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ১৫০-২০০ জনকে আসামি করা হয়।
নগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হুদা চৌধুরী সাগর বলেন, “এ ধরনের কোন ঘটনাই ঘটেনি। পুলিশের সাথে কোনো মারামারি বা ইজিবাইক ভাঙচুরের ঘটনা তো ঘটেইনি। পুলিশ মিথ্যা মামলা দিয়েছে।”
একই দিন, নগরীর সোনাডাঙ্গা থানায় বিএনপি নেতাদের বিরুদ্ধে আরও একটি মামলা হয়। সোনাডাঙ্গা থানার এস আই আফসার আলী বাদী হয়ে দায়েরকৃত মামলায় মহানগর যুবদল সভাপতি, ছাত্রদল সভাপতি, ২০নং ওয়ার্ড বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন টারজানসহ ১১ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত পরিচয় ১৫০-২০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। খুলনা মহানগরী ও জেলার ১৭ থানায় সম্প্রতি এ ধরনের দু’ডজনের মতো মামলা হয়েছে।
বিএনপি’র কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও নগর শাখার সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু বলেন, “সম্প্রতি পুলিশের দায়ের করা সবক’টি গায়েবি মামলায় নেতা-কর্মীরা উচ্চ আদালত থেকে জামিনে রয়েছে। তারপরও পুলিশ প্রায় প্রতিদিন নিত্য-নতুন কাল্পনিক এজাহার সাজিয়ে গায়েবি মামলা রচনা করছে। বিএনপি নেতা-কর্মীরা এখন আর মামলার ভয়ে ভীত নয়। যেকোন কর্মসূচি শান্তিপূর্ণভাবে সফলের জন্য খুলনা বিএনপি প্রস্তুত।”
তিনি আরও বলেন, “প্রায় এক যুগ বিএনপি নেতা-কর্মীরা হয়রানিমূলক রাজনৈতিক মামলায় জর্জরিত। গায়েবি মামলা দায়ের করে বিরোধী দল-মতের নেতা-কর্মীদের বাড়িতে গ্রেফতার-তল্লাশীর নামে হয়রানি করেছে পুলিশ। স্বৈরাচারের সকল ঘৃণ্য রেকর্ড ভঙ্গ হয়ে গেছে বহু আগে। একদিকে, রাষ্ট্রীয় খরচে ভোট চাইছে ওরা, অন্যদিকে গায়েবি মামলায় আসামি করা হচ্ছে বিএনপি নেতা-কর্মীদের।”
দলটির একাধিক সূত্র জানায়, আগামী নির্বাচনে বিরোধী দলের প্রার্থীর সম্ভাব্য এজেন্ট, মাঠপর্যায়ে নেতা-কর্মীদের সংগঠিত করার সক্ষম ব্যক্তি ও আন্দোলন-সংগ্রামে নেতৃত্ব দেবার মতো বিএনপি নেতা-কর্মীদের শনাক্ত করে এসব মামলার আওতায় আনা হচ্ছে। নির্বাচনের সময় যত এগিয়ে আসবে বিএনপি’র নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে গ্রেফতার অভিযান ততো বাড়বে। নির্বাচনের আগে এসব মামলা ব্যাপকভাবে ব্যবহার করার আশঙ্কা দলটির। অজামিনযোগ্য এসব মামলায় গ্রেফতার হলে জামিনের জন্য নিম্ন আদালত থেকে উচ্চ আদালত পর্যন্ত দৌড়াচ্ছেন নেতা-কর্মীরা। উচ্চ আদালত থেকে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য নেতারা আগাম জামিন পাচ্ছেন বটে, জামিনের মেয়াদ নির্বাচনের আগেই শেষও হতে পারে।
নগর বিএনপি’র সিনিয়র যুগ্ম-সম্পাদক অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম বলেন, “সম্প্রতি সবক’টি মামলায় এজাহারের বর্ণনা অভিন্ন। শুধু ঘটনাস্থল, আসামীর নাম ও বাদীর নাম ভিন্ন। আবার, আমাকেসহ অঙ্গসংগঠনের শীর্ষ নেতাদের বিরুদ্ধে দফায় দফায় মামলা হচ্ছে। বিদেশে রয়েছে, এমন ব্যক্তিকেও আসামি করা হয়েছে। গায়েবি মামলার উদ্দেশ্য নির্বাচনে নেতা-কর্মীরা যাতে মাঠে থাকতে না পারেন, কোনো কোনো ক্ষেত্রে যাতে প্রার্থী হতে না পারেন। মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে বিএনপিকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখা। সরকারের নীলনকশায় দমছে না খুলনা বিএনপি’র নেতা-কর্মীরা।
জেলা বিএনপি’র সভাপতি এড. শফিকুল আলম মনা বলেন, “উপজেলা পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের বাড়ি বাড়ি প্রতিটি পুলিশ তল্লাশীর নামে হয়রানি করছে। গায়েবি মামলায় আসামি করা হয়েছে সকলকেই। তাতেও মনোবল হারায়নি। মনগড়া মামলায় বিএনপি নেতা-কর্মীদের হয়রানি করা যাবে, তবে আন্দোলন থেকে দূরে সরিয়ে রাখা যাবে না।”

বার পঠিত

পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ







নির্বাচনী ট্রেনে আওয়ামী লীগ

নির্বাচনী ট্রেনে আওয়ামী লীগ

০৭ অক্টোবর, ২০১৮ ০১:৩০







ব্রেকিং নিউজ












বিজয়ের মাস ডিসেম্বর

বিজয়ের মাস ডিসেম্বর

১১ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০১:১০