খুলনা | শুক্রবার | ১৯ অক্টোবর ২০১৮ | ৪ কার্তিক ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

দফায় দফায় বাড়ছে এলপি গ্যাসের দাম

আন্তর্জাতিক বাজারে মূল্য বৃদ্ধির অজুহাতে খুলনায় বাড়ানো হয়েছে ১০ গুণ!

মোহাম্মদ মিলন  | প্রকাশিত ০৯ অক্টোবর, ২০১৮ ০১:৩০:০০

খুলনার বাজারে দফায় দফায় বাড়ছে লিকুইড পেট্রোলিয়াম গ্যাসের (এলপিজি) দাম। তিন দফায় গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি করা হয়েছে ১০ গুণ। অথচ সরকারি ১২ কেজি ওজনের এলপি গ্যাস পূর্বের মূল্যেই সংগ্রহ করছেন ডিলাররা। কোম্পানি ও পরিবেশকদের দাবি আন্তর্জাতিক বাজারে গ্যাসের কাঁচামালের মূল্য বৃদ্ধির কারনে তারা স্থানীয় বাজারে দাম বাড়িয়েছে। তবে ভোক্তাদের অভিযোগ আন্তর্জাতিক বাজারের দোহাই দিয়ে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে তারা স্থানীয় বাজারে মূল্য বাড়িয়েছে। ফলে দুর্ভোগে পড়েছে গ্রাহকরা। 
স্থানীয় ডিলার ও খুচরা বিক্রেতারা জানান, খুলনায় বিক্রি হয় সাধারণতঃ বসুন্ধরা, যমুনা, ওমেরা, ক্লিনহিট, টোটাল ও সেনা কল্যাণ সংস্থার এলপি গ্যাস। এসব এলপি গ্যাসের দাম ফের বাড়িয়েছে কোম্পানি ও পরিবেশকরা। গত জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দু’দফা এবং সর্বশেষ ১ অক্টোবর আবারও এক দফা গ্যাসের দাম বাড়ানো হয়েছে। কোম্পানিগুলো ৮২০ টাকা থেকে দাম বাড়িয়ে ডিলারদের ৮৬০ টাকা, দ্বিতীয় দফায় ৯২০ টাকা এবং সর্বশেষ তৃতীয় দফায় দাম বাড়িয়ে ১ হাজার ৭০ থেকে ১ হাজার ৮০ টাকায় সরবরাহ করছে। প্রথম দফায় মূল্য বৃদ্ধির পর খুচরা বাজারে বিক্রি হয়েছে ৯০০ টাকা, দ্বিতীয় দফায় ৯৫০ টাকা এবং এখন বিক্রি হচ্ছে ১১শ’ টাকা থেকে ১ হাজার ১৫০ টাকায়। অথচ খুলনার পদ্মা, মেঘনা ও যমুনা কোম্পানির ডিলারদের ৬৭৮ টাকায় গ্যাস প্রদান করা হচ্ছে।
এদিকে ১৫ কেজি ওজনের বিভিন্ন ব্রান্ডের প্রতি সিলিন্ডার গ্যাসের দাম ১৪০ টাকা থেকে ১৫০ টাকা বৃদ্ধি করা হয়েছে। বিভিন্ন হোটেলে ব্যবহৃত ৩৫ কেজি ওজনের প্রতি সিলিন্ডার গ্যাসের সর্বশেষ দাম ছিল ২ হাজার ৫০০ টাকা। যা এখন বেড়ে ৩ হাজার ১০০ টাকায় দাঁড়িয়েছে। অর্থাৎ দাম বেড়েছে সিলিন্ডার প্রতি ৬০০ টাকা। একই ভাবে ৪৫ কেজি ওজনের গ্যাসের দামও বেড়েছে অস্বাভাবিক হারে। ৪৫ কেজি ওজনের প্রতি সিলিন্ডার গ্যাসের দাম গত সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত ছিল ২ হাজার ৮০০ টাকা। অক্টোবর মাসের প্রথম দিন থেকে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৯০০ টাকা। অর্থাৎ ৪৫ কেজি ওজনের প্রতি সিলিন্ডার গ্যাসের দাম বেড়েছে ১ হাজার ১০০ টাকা।   
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, আন্তর্জাতিক বাজারে এলপি গ্যাসের কাঁচামালের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে টনপ্রতি ২০ ডলার। যা বাংলাদেশি টাকায় দাঁড়ায় ১ হাজার ৬শ’ (৮০ টাকা দর)। সেই হিসেবে প্রতি কেজি এলপি গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে ১ টাকা ৬০ পয়সা। এতে ১২ কেজি ওজনের গ্যাস ভর্তি সিলিন্ডারের দাম বেড়ে দাঁড়ায় প্রায় ২০ টাকা। তবে স্থানীয় বাজারে কোম্পানি ও পরিবেশকরা এ সময়ের মধ্যে তিন দফায় গ্যাসের দাম বাড়িয়েছে ২শ’ টাকা। এর মধ্যে সর্বশেষ গত ১ অক্টোবর থেকে ১৪০ টাকা মূল্য বাড়ানো হয়েছে। সেই অনুযায়ী আন্তর্জাতিক বাজারে কাঁচামালের মূল্য বৃদ্ধির চেয়ে ১০ গুণ চড়া মূল্যে ১২ কেজি ওজনের এলপি গ্যাস কিনতে হচ্ছে স্থানীয় গ্রাহকদের। আন্তর্জাতিক বাজারে কাঁচামালের দাম বৃদ্ধির দোহাই দিয়ে গ্যাস ও সিলিন্ডারের দাম বৃদ্ধিতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ব্যবসায়ীরা। তাদের মতে এলপি গ্যাসের দাম বৃদ্ধি পেয়ে সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে যাচ্ছে। 
সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, খুলনায় পাইপ লাইনে গ্যাস সংযোগ নেই। বর্তমানে খুলনার প্রায় এক লাখ গ্রাহক এলপি গ্যাস ব্যবহার করেন। গৃহস্থালি কাজ ও ছোট-মাঝারি কারখানায় এলপি গ্যাস ব্যবহার করে এ অঞ্চলের মানুষ। ইদানীং হোটেল-রেস্তোরাঁয় রান্নার কাজেও ব্যবহার হচ্ছে এলপি গ্যাস।  এর সিংহভাগই সরবরাহ করে বেসরকারি গ্যাস কোম্পানিগুলো। বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের সরবরাহ কম থাকায় বেসরকারি কোম্পানিগুলো নিজেদের ইচ্ছামতো দাম বাড়াচ্ছে। এ অবস্থায় গ্যাসের দাম বৃদ্ধির সামগ্রিক প্রভাব পড়েছে খুলনার জনজীবন ও অর্থনীতিতে।খুলনা এলপি গ্যাস ব্যবসায়ী সমিতির নেতারা জানান, বিশ্ব বাজারে যখন লিকুইড পেট্রোলিয়ামের মূল্য নিম্নগতির ঠিক তখন সিন্ডিকেটের মাধ্যমে বেসরকারি কোম্পানিগুলো এলপি গ্যসের মূল্য বৃদ্ধি করেছে। সিলিন্ডার প্রতি এলপি গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি করা হয়েছে বসুন্ধরা ১৯০ টাকা এবং অন্যান্য কোম্পানির ১৪০ টাকা। পাশাপাশি ১ হাজার ৭০০ টাকার গ্যাস ভর্তি সিলিন্ডারের মূল্য বৃদ্ধি করা হয়েছে ২ হাজার ১০০ থেকে ২ হাজার ২০০ টাকা। বারবার এলপি গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধিতে জনসাধারণ অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে এবং অনেকে এলপি গ্যাস ব্যবহার থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে।   
খুলনা এলপি গ্যাস ডিলার সমিতির সভাপতি শেখ তোবারেক হোসেন তপু বলেন, হঠাৎ করেই গত ১ অক্টোবর থেকে এলপি গ্যাসের মূল্য বাড়িয়ে দেয়া হয়েছে। ১২ কেজি ওজনের সব কোম্পানির গ্যাস আগে ছিল ৯৫০ টাকা। যা এখন বিক্রি হচ্ছে ১১শ’ টাকা। আর বসুন্ধরা ১১৫০ টাকা। তিনি বলেন, সরকারি গ্যাস খুলনায় ঠিক মতো আসে না। বছরে ১০টার মতো পাওয়া যায়। এই গ্যাস ঠিকমতো আসলে গ্যাসের দাম বাড়তো না।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ







খুলনায় আসা হলো না আইয়ুব বাচ্চু’র

খুলনায় আসা হলো না আইয়ুব বাচ্চু’র

১৯ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:৩৮







ব্রেকিং নিউজ


রংপুরের বিপক্ষে খুলনার ড্র

রংপুরের বিপক্ষে খুলনার ড্র

১৯ অক্টোবর, ২০১৮ ০১:১৫