খুলনা | বৃহস্পতিবার | ১৮ অক্টোবর ২০১৮ | ২ কার্তিক ১৪২৫ |

Shomoyer Khobor

নিখোঁজ ৬ ট্রলারসহ অর্ধশতাধিক 

বঙ্গোপসাগরে ১০টি ফিশিং ট্রলার ডুবি ভাসমান অবস্থায় ১১৩ জেলে উদ্ধার

মংলা ও শরনখোলা প্রতিনিধি | প্রকাশিত ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০১:২১:০০

বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপের প্রভাবে আকস্মিক প্রচন্ড ঢেউয়ের আঘাতে শরণখোলাসহ উপকূলীয় এলাকায় অন্ততঃ ১০টি ফিশিং ট্রলার ডুবে গেছে। এর মধ্যে সাগরে ভাসমান অবস্থায় ১১৩ জেলেকে উদ্ধার করেছে কোস্ট গার্ড ও স্থানীয় জেলেরা। তবে  এখনও নিখোঁজ রয়েছে ৬ টি ট্রলারসহ অর্ধ-শতাধিক জেলে।  এদিকে, ডুবে যাওয়া এবং নিখোঁজ ফিশিং ট্রলারগুলির জেলেদের স্বজনদের মাঝে উদ্বেগ ও উৎকন্ঠা ক্রমেই বেড়ে চলেছে।
কোস্ট গার্ড পশ্চিম জোনের কচিখালী স্টেশনের অপারেশন কর্মকর্তা ইয়াকুব আলী জানান, গত বৃহস্পতিবার দুপুরে সুন্দরবন সংলগ্ন কচিখালীর অদূরে গভীর সমুদ্রে ঝড়ের কবলে পড়ে ডুবে যায় ১৬ জেলেসহ দু’টি ফিশিং ট্রলার। দুর্ঘটনার পর ডুবে যাওয়া ট্রলার দু’টির মধ্যে এফবি নুরুল আমীন নামে একটি ট্রলারসহ ৮ জেলেকে শুক্রবার ভোররাতে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। তবে এখনও গভীর সমুদ্রে নিখোঁজ রয়েছে এফবি জাহঙ্গীর নামের একটি ট্রলারসহ আরও ৮ জেলে। এ ছাড়া দুবলার চরাঞ্চাল সংলগ্ন সাগরে বিচ্ছিন্নভাবে আরও বেশ কয়েকটি ট্রলার ডুবির খবর পাওয়া গেছে। কোস্ট গার্ড পশ্চিম জোনের অপারেশন কর্মকর্তা জাহিদ আল হাসান জানান, তাদের পক্ষ থেকে সাগরে উদ্ধার অভিযান শুরু করা হয়েছে। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।  
দুবলা ফিশারমেন গ্র“পের সাধারণ সম্পাদক মোঃ কামাল হোসেন জানান, দুবলার চরের কাছাকাছি কটকা, কচিখালী, নারকেলবাড়িয়া, মাঝের চর, মান্দারবাড়িয়া ও ১ নম্বর ফেয়ারওয়ে বয়া এলাকায় ৬টি ট্রলার ডুবির খবর পাওয়া গেছে। ট্রলারগুলো কোন এলাকার এবং জেলেদের পরিণতি কি হয়েছে তা জানাতে পারেননি তিনি। এছাড়া, শরণখোলার আরো ৫টি ফিশিং ট্রলার নিখোঁজ রয়েছে বলে ফিরে আসা জেলেরা জানিয়েছে।
বরগুনা জেলা ফিশিং ট্রলার শ্রমিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক দুলাল মাস্টার জানান, পাথরঘাটাসহ বরগুনা জেলার ৭০ জেলেসহ ৪টি ফিশিং ডুবে গেছে এবং নিখোঁজ রয়েছে পাথরঘাটার এফবি তানজিলা, এফবি আরমান, এফবি মা, মহিপুরের এফবি মারিয়া ট্রলারের অন্ততঃ ৫০ জন জেলে। বরগুনা জেলা মৎস্য আড়ৎদার সমিতি সূত্রে জানা যায়, গতকাল শনিবার দুপুরে সাগরের ভাসমান জেলেকে ১১৩ জন জেলেকে উদ্ধার করা হয়েছে।
শরণখোলা উপজেলা মৎস্য আড়ৎদার সমিতির সভাপতি দেলোয়ার ফরাজী জানান, গত রবিবার উপজেলার রাজৈর গ্রামের সহিদুল ফরাজীর মালিকানাধীন এফবি মারিয়া ট্রলারটি ১৭ জেলেসহ ডুবে গেলেও ৯ জেলেকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়। কিন্তু ৮ জেলের এখনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। এছাড়া, রাজাপুর গ্রামের ইউনুচ মিয়ার নাম বিহীন একটি ট্রলার ১০ জেলেসহ ডুবে গেলেও জেলেদের উদ্ধার করা হয়েছে। অপরদিকে, উপজেলার রায়েন্দা বাজারের বিলাস রায় কালু, তহিদুল তালুকদার, মালেক মোল্লা ও ইউনুচ ফকিরের ট্রলার গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় ভারত থেকে নিরাপদে ফিরে এসেছে।  
পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের চাঁদপাই রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) মোঃ শাহিন কবির জানান, সমুদ্র প্রচন্ড উত্তাল থাকায় উদ্ধার অভিযানে যেতে পারছে না কোস্ট গার্ড। দুর্যোগপূর্ণ অবহাওয়ায় ইতোমধ্যে সাগরে জেলে ও সহস্রাধিক ট্রলার সুন্দরবনের বিভিন্ন খালে আশ্রয় নিয়েছে। আশ্রয় নেয়া এসব ট্রলার ও জেলেদের নিরাপত্তার জন্য সংশ্লিষ্ট স্টেশন ও ক্যাম্পের দায়িত্বরত বন রক্ষীদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। তবে গভীর সমুদ্রে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ও উত্তাল সমুদ্রে টিকতে না পারায় শত শত মাছ ধরার ফিশিং ট্রলার সুন্দরবনের বিভিন্ন নদী-খাল ও লোকালয়ে ফিরে আসছে। কোস্ট গার্ড ও জেলেরা জানায়, গত মঙ্গলবার রাত থেকে সাগর হঠাৎ করে প্রচন্ড উত্তাল হয়ে ওঠে এবং ঝড়ের কবলে পড়ে মাছ ধরা জেলেরা। এদিকে, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড়ের কারণে মংলা বন্দরকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অফিস। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে মংলাসহ আশপাশ উপকূলীয় এলাকার ওপর দিয়ে ঝড়ো দমকা হাওয়া বয়ে যাচ্ছে এবং থেমে থেমে ভারী বৃষ্টিপাত হচ্ছে।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন




আরো সংবাদ










শারদীয় দুর্গোৎসবের  আজ মহানবমী

শারদীয় দুর্গোৎসবের  আজ মহানবমী

১৮ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:৪৯




ব্রেকিং নিউজ











শারদীয় দুর্গোৎসবের  আজ মহানবমী

শারদীয় দুর্গোৎসবের  আজ মহানবমী

১৮ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:৪৯